পাইকগাছায় কাঁকড়া ধরতে গিয়ে পানিতে ডুবে এক ব্যক্তির মৃত্যু

ক্রাইমবার্তা রিপোট:পাইকগাছা প্রতিনিধি ॥   পাইকগাছার পল্লীতে কাঁকড়া ধরতে গিয়ে পানিতে ডুবে আছাদুল সানা (৪৫) নামে এক ব্যক্তির করুণ মৃত্যু হয়েছে। 45 শুক্রবার দুপুরে উপজেলার গদাইপুর ইউনিয়নস্থ কপোতাক্ষ নদের চরমলই স্লুইস গেটে  মৃত্যুর ঘটনাটি ঘটেছে। হতভাগা আছাদুল সানা চরমলই গ্রামের মৃত আঃ গফুর সানার পুত্র। এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, প্রতিদিনের ন্যায় আছাদুল সানা শুক্রবার দুপুরে কপোতাক্ষ নদের চরমলই স্লুইস গেটের মুখে কাঁকড়া  ধরতে যায়। প্রত্যক্ষদর্শী রিজিয়া বেগম জানান, আছাদুল সানা ডুব দিয়ে দিয়ে কাঁকড়া ধরছিল। একপর্যায়ে ডুব দেয়ার পর আছাদুল আর উপরে উঠে না আসলে আমি (রিজিয়া) চিৎকার দিলে পাশ্ববর্তী লোকজন ছুটে এসে পানির নিচ থেকে আছাদুলের মৃতদেহ উদ্ধার করে। আছাদুল সানার অনাকাঙ্খিত এই মৃত্যুর ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

পাইকগাছায় চাঁদার দাবীতে মৃত মুক্তিযোদ্ধার লীজ ঘেরে হামলা : থানায় অভিযোগ দায়ের
পাইকগাছা প্রতিনিধি ॥
পাইকগাছার পল্লীতে চাঁদার দাবীতে মৃত মুক্তিযোদ্ধার মৎস্য লীজ ঘেরে হামলা, মারপিট, লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় স্ত্রী অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা বাদী হয়ে থানায় ৩ জনের নামে অভিযোগ দায়ের করেছে। থানার অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পাইকগাছা উপজেলার লস্কর গ্রামের মৃত মুক্তিযোদ্ধা এটিএম শাহারাবুল ইসলামের কড়–লিয়া মৌজায় প্রায় ১৭ বিঘা জমিতে একটি মৎস্য লীজ ঘের রয়েছে। গত শনিবার সকালে গোপালপুর গ্রামের মৃত সোনাই সরদারের ছেলে নিজাম সরদার, হাফিজ সরদার ও পৌর সদরের ৬নং ওয়ার্ডের নজরুল বিশ্বাসের ছেলে ইব্রাহিম খলিলসহ ৮/১০ জন অজ্ঞাত ব্যক্তি ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করে মৎস্য লীজ ঘেরে হামলা চালায়। ঘেরের পাহারাদার তৈয়েবুর গোলদার চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় তারা ঘেরে ভাংচুর ও লুটপাট করতে থাকে। তৈয়েবুর ও অন্য পাহারাদার মিন্টু গোলদার বাঁধা দিলে তাদেরকে বেদম মারপিট করে ঘের হতে নগদ সহ প্রায় ৫০ হাজার টাকার মালামাল লুটপাট করে। এ ঘটনায় মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী ফরিদা ইয়াসমিন বাদী হয়ে পাইকগাছা থানায় নিজাম, হাফিজ, ইব্রাহিম সহ ৮/১০ জন অজ্ঞাত ব্যক্তির নামে অভিযোগ দাখিল করেছে।

মাদরাসার নামে লক্ষাধিক টাকা আত্মসাৎ
পাইকগাছায় দু’যুগ পর খালের উপর মাদরাসা তৈরীর কাজ শুরু
জি,এ, গফুর, পাইকগাছা ॥
পাইকগাছায় অস্তিত্বহীন মাদরাসার ২ শিক্ষক ৮/১০ বছরে লক্ষাধিক ভাতার টাকা জালিয়াতি করে আত্মসাৎ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। অর্থ ফেরত ও আইনী জটিলতার ভয়ে তড়িঘড়ি করে দু’যুগ পর খালের উপর মাদরাসা তৈরী কাজ শুরু হয়েছে।
অভিযোগে প্রকাশ, জেলার পাইকগাছা উপজেলার বাহিরবুনিয়া এলাকা মাদরাসা তৈরীর জন্য শহিদুল ইসলাম গাজী ৫২ শতক জমি ১৯৯০ সালে ৪২৩৬ দলিলে দান করেন। নামকরণ করা হয় বাহিরবুনিয়া ইবতেদায়ী (স্বতন্ত্র) মাদরাসা। প্রতিষ্ঠান না থাকলেও শিক্ষক ও ছাত্র/ছাত্রী হাজিরা খাতা যথারীতি ছিল বলে সভাপতি শহিদুল ইসলাম জানান। মসজিদের পাশে জনৈক শাহাজান মাস্টারের প্রাইভেট পড়ানোর ঘর মাদরাসা হিসেবে দেখানো হতো। অডিটের সময় অছাত্র বা অন্য স্কুলের কয়েকজন ছেলে/মেয়ে ও অল্প বয়সী অছাত্র উপস্থিত করে দেখানো হতো বলে স্থানীয় কালাম গাজী, মোক্তার গাজী, ইব্রাহিম গাজী সহ উপস্থিতিরা এ প্রতিনিধিকে জানান। জমিদাতা শহিদুল ইসলাম জানান, শিক্ষক ওয়াজেদ আলী গাজী ও আনোয়ারা খানম জালিয়াতি করে কয়েক বছর ধরে ৫শ করে ভাতার টাকা তুলেছে। এসব অনিয়ম ও দুর্নীতি করা চেয়ারম্যান ও মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড, ঢাকাকে সম্প্রতি লিখিত অভিযোগ করেছেন এবং অনুলিপি দিয়েছেন বিভিন্ন জায়গায়। এ ব্যাপারে তৎকালীন সুপার সাইদুর রহমান জানান, ৮/১০ বছর ধরে এ মাদরাসার ২ শিক্ষক ভাতার টাকা উঠিয়েছেন। যার পরিমাণ লক্ষাধিক। তিনি আরো বলেন, ২০০৯ সালে আইলার সময় প্রতিষ্ঠানটি বিধ্বস্ত হলে সকল কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগের খবর জানাজানি হলে, অর্থ ফেরত ও আইনী জটিলতার ভয়ে দু’যুগ পর তড়িঘড়ি করে বাঁশ-খুটি দিয়ে মাদরাসা তৈরীর কাজ করতে দেখা গেছে। স্থানীয় নজরুল গাজী নিজেকে সভাপতি বানিয়ে গোলাম মোস্তফা, তার স্ত্রী আনোয়ারাকে শিক্ষক দেখিয়ে কার্যক্রম চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে উপস্থিত লোকজন জানান। এ ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা অফিসারের কাছে জানতে চাইল তিনি বলেন, ইবতেদায়ী মাদরাসাগুলো ইউএনও নিয়ন্ত্রণ করেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উচ্চ শিক্ষার জন্য বিদেশে যাওয়ায় অফিস মাধ্যমে জানা যায়নি।

কামাল সভাপতি, এন ইসলাম সাগর সম্পাদক
পাইকগাছা কম্পিউটার, ফটোষ্ট্যাট ও স্টুডিও সমিতির কমিটি গঠণ
পাইকগাছা প্রতিনিধি ॥
পাইকগাছায় কামাল হোসেনকে সভাপতি ও সাংবাদিক এন ইসলাম সাগরকে সম্পাদক করে কম্পিউটার, ফটোষ্ট্যাট ও স্টুডিও সমিতির কমিটি গঠণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পৌর সদরের আল-মদিনা মার্কেটে সংগঠণের অস্থায়ী কার্যালয়ে ব্যবসায়ী আব্দুল হামিদ হায়বাতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক সভায় এ কমিটি গঠণ করা হয়। কমিটির অন্যান্যরা হলেন, সহ-সভাপতি অজিতেষ মন্ডল, কোষাধ্যক্ষ শেখ সোহেল, সদস্য উদয় মন্ডল, সোহাগ ইসলাম ও কার্তিক চন্দ্র মন্ডল। অনুষ্ঠিত সভায় ব্যবসায়ীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, পংকজ কুমার ঢালী, মিলন কুমার রায়, হারুন-অর-রশিদ ইমন, ইয়াছিন, সঞ্জয় কুমার মন্ডল, ডাবলু হোসেন, কবির হোসেন, পলাশ মন্ডল, রাজীব মন্ডলসহ কম্পিউটার, ফটোষ্টাট ও স্টুডিও মালিকবৃন্দ।

Please follow and like us:
Facebook Comments