জামায়াতের মহিলা নেত্রী সহ মোহাম্মদপুরে ২৮ নারী গ্রেফতার: অনুষ্ঠান থেকে গ্রেফতার পরিবারের দাবী: এক সপ্তাহের রিমান্ড চাওয়া হচ্ছে

ক্রাইমবার্তা রিপোট: ঢাকাৰ রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানা এলাকার একটি ফ্ল্যাট থেকে জামায়াতে ইসলামীর কর্মী সন্দেহে ২৮ নারীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। পুলিশের দাবী গ্রেপ্তার হওয়া নারীরা নাশকতার মাধ্যমে সরকার উৎখাতের পরিকল্পনা করছিল।14

আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মোহাম্মদপুর থানায় এক সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) বিপ্লব কুমার একথা জানান।

তিনি জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটার দিকে তাজমহল রোডে ওই বাড়িতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ২৮ জনকে গ্রেপ্তার করে।

পুলিশের এই কর্মকর্তা জানান, গ্রেপ্তার হওয়া নারীদের সবাই উচ্চশিক্ষিত। তাঁদের মধ্যে কেউ কেউ বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষক, ডাক্তারসহ বিভিন্ন পেশার সঙ্গে জড়িত। তাঁদের মধ্যে অনেক নারী মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে দণ্ডপ্রাপ্তদের পরিবারের সদস্য বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জানা গেছে। জিজ্ঞাসাবাদে তাঁরা অনেকেই তাঁদের প্রকৃত পরিচয় দিচ্ছেন না। তাঁদের আদালতে নেওয়া হচ্ছে; সাত দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়েছে।

 

আটক কৃতরা হলেন শাহনাজ বেগম (৫৬) বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর মহিলা বিভাগের সেক্রেটারী । রোখসানা বেগম (৫১), শরীফা আক্তার (৫৩) ও তাসলিমা (৫২)  জামায়াতে ইসলামীর সদস্য।

ইয়াসমিন আক্তার (৪১), আফসানা মিমি (২৫) ও উম্মে খালেদা (৪০) জামায়াতে ইসলামীর  উম্মে কুলসুম (৪২) ও খোদেজা আক্তার (৩২) জামায়াতে ইসলামীর কর্মী।

সুফিয়া ওরফে চাঁদনি (৪১), সাদিয়া (৪৫), ফাতেমা বেগম (৫১) ও রাজিয়া আক্তার (৪২) জামায়াতে ইসলামীর সমর্থক।

আটক হওয়া উম্মে আতিয়া (৪৬), রুমা আক্তার (৩২), আনোয়ারা বেগম (৪৬), আসমা খাতুন (৩৫), রহিমা খাতুন রিমা (৩০), সালমা হক (৪৫),  সাকিয়া তাসনিম (৪৭), সেলিমা সুলতানা সুইটি (৪৮), হাসসা (৪৫), আখলিমা ফেরদৌস আঁখি (৪৭), নাইমা আক্তার নাইমা (৫৫), রুবিনা আক্তার (৩৮), জোহরা বেগম (৩৫),  সৈয়দা শাহিন আক্তার (৪০) ও জেসমিন খান (৪৩) জামায়াতে ইসলামীর রোকন্ বলে পুলিশ জানিয়েছে। আটককৃত  পরিবারের পুরুষ সদস্যরা দাবী করেছে একটি অনুষ্ঠানে তারা উপস্থিত হলে পুলিশ তাদেরকে আকট করে।

 

Please follow and like us:
Facebook Comments