ঝালকাঠি রাজাপুরে মামলায় ফাসিঁয়ে বসত ঘর গুরিয়ে দিয়েছে প্রতিপক্ষরা

ক্রাইমবার্তা রিপোট:রাজাপুর(ঝালকাঠি)প্রতিনিধি ঃ ঝালকাঠির রাজাপুরে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করার জন্য মামলায় ফাঁসিয়ে বসত ঘর গুরিয়ে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। রাজাপুর উপজেলার কানুদাসকাঠি গ্রামের মৃত ঃ নয়ন তালুকদারের বসত ঘর গুরিয়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন নয়ন তালুকদারের মেয়ে সাহিদা বেগম। সরোজমিনে গিয়ে দেখা যায় বসত ঘরটি ভেঙ্গে চুরে সকল কিছু তছনছ করে ফেলে যায়।20
তিনি অভিযোগ করে বলেন যে, তার মা,ভাই, বোন,স্বামীসহ তাদের ৭ জনকে একটি মার্ডার কেছে আসামী করে দুরে রেখে তার বাবার ঘরটি ভেঙ্গে মাটিতে গুরিয়ে দিয়ে ঘরের থাকা জমি জমার কাগজ পত্রাদিসহ মূল্যবান মালামাল লুটে নিয়েছে প্রতিপক্ষরা। সাহিদা বেগম আরো জানান যে, আমি ঢাকায় একটি গার্মেন্টসে চাকুরী করি এবং আমার স্বামী কালাম মালয়েশিয়াতে প্রবাসি রয়েছেন। অথচ ঐ মামলায় আমি এবং আমার স্বামীকেও আসামী করা হয়েছে। দীর্ঘ তদন্ত শেষে রাজাপুর থানা পুলিশ এজাহারকৃত ১নং আসামী লাকি বেগম(৩৫) ২নং আসামী জামাল খাঁ(৪৫) ও ৫নং আসামী চেয়ার বানু(৫০)’র বিরুদ্ধে ঝালকাঠির আদালতে চার্জসিট দাখিল করেছে। তিনি আরো জানান, মামলা করেছে-বিচার করবে আদালত। অথচ মামলা চলা অবস্থায় আসামীদের বসত ঘর ভেঙ্গে মাটিতে গুরিয়ে দিয়ে ঘরের মূল্যবান মালামল ও কাগজ পত্রাদী লুট করে নিয়েছে প্রতিপক্ষরা।
এব্যাপারে মামলার বাদী লাইজু বেগমের কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ঐ বাড়ীটি খালী পরে আছে। কে বা কাহারা ঘর ভেঙ্গেছে আমি বা আমরা কিছুই জানিনা। আমরা আমার বোনকে দাফন করে আসার পরে ঐ বাড়ীতে ৩দিন আগে একবার গিয়েছিলাম এবং তখন ঘর ভাঙ্গা দেখেছি। আমরা ঘর ভাঙ্গার ব্যাপারে কিছুই জানিনা তবে পার্শ্ব বর্তি ভান্ডারীয়া থানার বর্ডার হওয়ায় নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বয়স্ক দুজন লোক জানান বাদী লাকী বেগম ঐ বসত বাড়ীতে থাকা বড় বড় মেহগনী, রেন্ডী গাছ বিক্রি করে টাকা দিয়ে নিহত দুলু বেগমের কবর পাকা করেন এবং বসত ঘরে থাকা মূল্যবান জমি জমার কাগজ পত্র নিয়ে যান।
উল্লেখ্য, জমি জমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে গত ২ নভেম্বর ১৬ দুলু বেগম নামে এক বৃদ্ধাকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে প্রতিপক্ষরা। শেবাচিম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঐদিনই ঐ বৃদ্ধা মৃত্যুবরন করেন। ১নং আসামী লাকি বেগম এবং তার মা ৫নং আসামী চেয়ার বানু বর্তমানে জেল হাজতে রয়েছে।

Please follow and like us:
Facebook Comments