কুলিয়ায় জঙ্গী-সন্ত্রাস বিরোধী সমাবেশে বক্তরা: জঙ্গী-সন্ত্রাস করে ক্ষমতায় আসা যায় না

ক্রাইমবার্তা রিপোট:মীর খায়রুল আলম, সাতক্ষীরা: সন্ত্রাস-জঙ্গীবাদ করে দেশের শান্তি নষ্ট করে তারা কখনো দেশ প্রেমিক হতে পারে না। জঙ্গীরা দেশের উন্নয়নের বাধাগ্রস্থ করে। সন্ত্রাসবাদ করে দেশের মানুষের মন জয় করা সম্ভব না। বর্তমানে দেশের বিভিন্ন স্থানে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করে মানুষকে ভয়ভীতি দেখিয়ে যারা ক্ষমতায় আসতে চান মনে রাখবেন দেশের মানুষ শান্তি চাই। জঙ্গী-সন্ত্রাস গোষ্টি মানুষের বন্ধু হতে পারে না। আজকের সরকার জঙ্গী দমনে বিশেষ ভুমিকা রেখে চলেছে। সরকার যখন দেশে খাদ্যে স্বয়ংসম্পন্ন হয়েছে, চিকিৎসা, শিক্ষাসহ সার্বিক উন্নয়নে দেশকে মধ্যম আয়ের দেশে উপনিত করতে চলেছেন ঠিক সেই মুহূর্তে ৭১’র পরাজিত শক্তি উন্নয়নকে বাধা হয়ে দাড়িয়েছে।13 এই সাথে আওয়ামীলীগের একশ্রেণির হাইব্রিড নেতারা তাদের আশ্রয় দিয়ে শেখ হাসিনার সুনাম নষ্ট করতে বসেছে। আগামী নির্বাচনের আগে এই সব নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে কেন্দ্র থেকে ব্যবস্থা গ্রহনের অনুরোধ জানানো হয়। গত নির্বাচনের আগে যারা ২০১৩ সালে দেশকে একটি অকার্যকরী রাষ্ট্রে পরিণত করতে বিএনপি, জামায়াতের সাথে সম্পৃক্ত ছিল তারা আজ অনেকে আওয়ামীলীগের বিভিন্ন পদে আসতে চেষ্টা চালাচ্ছেন। যে সব নেতারা তাদের দালালি করছেন তাদের কোন ছাড় দেওয়া হবে না। আপনারা অচিরে নোংরা খেলা বন্ধ করেন। যারা আগামী নির্বাচনের আগে ১৩ সালের মত পরিস্থিতি ঘটবে এমন ভয় দেখাচ্ছেন মনে রাখবেন আওয়ামীগ কখনো ভয় পায় না। এসময় বক্তাদের মধ্যে উল্লেখ করে বলেন, কুলিয়া ইউনিয়নের পুষ্পকাটির বিএনপি নেতা বাবলু আওয়ামীলীগের এক শ্রেণির নেতাদের সাথে দালালি করছেন এবং বিভিন্ন ব্যক্তিদের নামে মামলা দিয়ে হয়রানি করছেন। তাছাড়া অত্র ইউনিয়নে বিভিন্ন এলাকায় মাদক, সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালাচ্ছেন। আমাদের কাছে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। যারা জয়বাংলা শ্লোগান পছন্দ করে না তারা আবার আওয়ামীলীগের নেতাদের ছবি দিয়ে পোষ্টার ছাপিয়ে আওয়ামীলীগ সাজতে চান আপনাদেরও ছাড় দেওয়া হবে না। মাদক, জঙ্গী-সন্ত্রাসবাদ করে যারা, দেশের শত্রু তারা। হঠাও জঙ্গী বাঁচাও দেশ, শেখ হাসিনার বাংলাদেশ এমন শ্লোগানে মুখোরিত হয় কুলিয়ার শহীদ মিনার চত্বর। শুক্রবার কুলিয়া ইউনিয়ন যুবলীগ ও ছাত্রলীগের যৌর্থ উদ্যেগে মাদক, জঙ্গী-সন্ত্রাস বিরোধী সমাবেশে এসব কথা বলেন বক্তরা। ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মোশারফ হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন সাবেক স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রি, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক মন্ত্রালয়ের স্থায়ী কমিটির সভাপতি অধ্যাপক আলহাজ্ব আ ফ ম রুহুল হক এমপি। বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের কোষাধ্যক্ষ ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আছাদুল হক, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি, সাংগঠনিক সম্পাদক ও সখিপুর ইউপি চেয়ারম্যান শেখ ফারুক হোসেন রতন, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান সবুজ। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক ও সাতক্ষীরা জর্জকোর্টের পিপি এড. ওসমান গনি, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব মুজিবর রহমান, সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নাজমুস সাহাদাত নফর বিশ্বাস ও নজরুল ইসলাম, যুগ্ন-আহবায়ক আনারুল হক ও আজহারুল ইসলাম, কুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি রুহুল কুদ্দুস, সাধারণ সম্পাদক বিধান বর্মণ, পারুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি শাহাবুদ্দিন বিশ্বাস আবারা, সাধারণ সম্পাদক ও পারুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম, সখিপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হান্নান, নওয়াপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মাহমুদুল হক লাভলু, সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন সাহেব আলী, দেবহাটা ইউনিয়ন সভাপতি আবুল কাশেম, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান মিন্নুর, সাধারণ সম্পাদক বিজয় ঘোষ, সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান, উপজেলা শ্রমীকলীগের সাধারণ সম্পদক রাশেদুল ইসলাম, জেলা কৃষকলীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মোজাফ্ফর রহমান, জেলা তাঁতীলীগের আজীম হোসেন, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান হাফিজ, উপজেলা তাঁতীলীগের সভাপতি এসএম নাসির উদ্দীন, সাধারণ সম্পাদক মাহবুব রহমানসহ বিভিন্ন সকল অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। সমগ্র অনুষ্ঠানটি সঞ্চলনা করেন কুলিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি আফজাল হোসেন।

Facebook Comments
Please follow and like us: