আলোচনা শেষের আগে কিছু বলব না: সেতুমন্ত্রী

:‘বাবা আমি ভাল হয়ে গেছি না! আমার হাত অনেক হালকা হয়ে গেছে তাই না!’ এসব কথা বাবা ইব্রাহীম হোসেনকে জিজ্ঞেস করছিলো অপারেশন হওয়া শিশু মুক্তামনি।

রবিবার (১৩ আগস্ট) সকালে বার্ন ইউনিটের আইসিইউ’র সামনে মুক্তামনির বাবা ইব্রাহীম হোসেন এসব কথা সাংবাদিকেদের জানান।

গত শনিবার (১২ আগস্ট) অপারেশনের পর থেকে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) বার্ন ইউনিটের নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়েছে। আইসিইউ’র ৫ নম্বর বিছানায় রয়েছে মুক্তামনি। আরো বেশ কয়েকদিন তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হবে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

ইব্রাহীম হোসেন  জানান, অপারেশনের পর থেকে মুক্তামনিকে খাওয়ানো নিষেধ ছিলো। তবে রাতে ডাক্তারদের কথা মত তাকে স্যুপ খাওয়ানো হয়।

এরপর রবিবার (১৩ আগস্ট) সকালে মুক্তামনিকে স্যুপ, দুধ ও ডিম খাওয়ানো হয়েছে। এ সময় সে তার বাবাকে জিজ্ঞেস করে, ‘বাবা আমি ভাল হয়ে গেছি না! আমার হাত অনেক হালকা হয়ে গেছে তাইনা!”

তখন বাবা ইব্রাহীম তার কথায় সম্মতি দিয়ে বলেন, ‘হ্যা মা, তোমার হাতের সব ঘা কেটে ফেলে দিয়েছে, তোমার হাত অনেক হালকা হয়ে গেছে। তুমি তাড়াতাড়ি ভালো হয়ে যাবে।’

এ সময় মুক্তামনিকে খুব উৎফুল্ল দেখাচ্ছিলো বলে জানান তার বাবা ইব্রাহীম।

মুক্তামনির মা আসমা বেগম সংবাদ মাধ্যমকে ধন্যবাদ দিয়ে বলেন, ‘আপনাদের সহযোগিতায় এবং ডাক্তারদের প্রচেষ্টায় আজ আমার মুক্তা অনেক ভাল আছে। গত রাতে একটু জ্বালা পোড়া ছিল। আজকে সকাল থেকে তার আর জ্বালা পোড়া নাই। অনেক ভাল আছে মুক্তা।’

ঢামেক হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের সমন্বয়কারী ডা. সামন্ত লাল সেন  জানান, মুক্তামনি ভাল আছে। সকালে তিনি নিজে আইসিইউতে গিয়ে মুক্তামনিকে দেখে এসেছেন। তখন তিনি মুক্তামনিকে জিজ্ঞাস করেছিলেন, তোমার কেমন লাগছে? সে বলেছে- আমার খুব খিদে পেয়েছে, আমি ভাত খাবো।

তিনি আরো জানান, মুক্তামনির অবস্থায় ভালো হলেও সে এখনও ঝুঁকিমুক্ত নয়। তাকে বিশেষভাবে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। আগামী বৃহস্পতিবার (১৭ আগস্ট) তার হাতের ড্রেসিং করা হবে। তারপর বুঝা যাবে তার হাতের অবস্থা।

উল্লেখ্য, বিরল রোগে আক্রান্ত সাতক্ষীরার সদর উপজেলার কামারবায়সা গ্রামের মুদি দোকানি ইব্রাহীম হোসেনের মেয়ে মুক্তামনির (১২) গত শনিবার (১২ আগস্ট) সকাল ৯টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে অস্ত্রোপচার করা হয়।

Please follow and like us:
Facebook Comments