মামা-ভাগ্নের বিরুদ্ধে পাইকগাছায় বিরোধপূর্ণ স্থানে আ’লীগের দলীয় সাইনবোর্ড টাঙানোর অভিযোগ#পাইকগাছা-কয়রা সড়কে গাইড হ্যাজিংয়ে নিম্নমানের ইট ব্যবহারের অভিযোগ

পাইকগাছা প্রতিনিধি ॥
পাইকগাছায় বিরোধপূর্ণ স্থানে দলীয় সাইনবোর্ড দিয়ে বিতর্কে জড়িয়েছেন লস্কর ইউনিয়ন আ’লীগের আহবায়ক ও তার ভাগ্নে। এ ঘটনা জানাজানির পর খোদ বিভিন্ন স্তরের দলীয় নেতাকর্মীরা বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছে। উপজেলা সহ জেলা পর্যায়ের নেতারা এ বিষয়ে কিছু জানেন না বলে গণমাধ্যম কর্মীদের জানিয়েছেন। সোমবার সকালে উপজেলার লস্করের খড়িয়া বাইনতলা খেয়াঘাট সংলগ্ন স্থানে এ সাইনবোর্ড টাঙানোর ঘটনা ঘটেছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, সোমবার সকালে লস্কর ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের আহবায়ক ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গোলাম মোস্তফা ও তার ভাগ্নে আ’লীগনেতা এ্যাডঃ ইদ্রিসুর রহমান মন্টু তাদের কিছু কর্মী সমর্থক নিয়ে বাইনতলা খেয়াঘাট সংলগ্ন স্থানে দলীয় কার্যালয়ের নামে একটি সাইনবোর্ড দিয়েছেন। আলমতলা-গড়ইখালী সড়কের পানি উন্নয়ন বোর্ডের রাস্তা সংলগ্ন এ সম্পত্তি নিয়ে কয়েকজনের মধ্যে মতপার্থক্য রয়েছে এবং থানা পুলিশ পর্যন্ত বসাবসির ঘটনা ঘটেছে। এদিকে এ সম্পত্তি ক্রয় সূত্রে মালিক হিসেবে ভিলেজ পাইকগাছার চিংড়ি ঘের মালিক আলহাজ্ব জি,এম, রেজাউল করিম জানান, বিগত ২০১০ সালে তিনি ভিলেজ পাইকগাছার আরেক ঘের মালিক প্রফুল্ল সরদারের নিকট থেকে ঢেমসাখালী মৌজার ৭৫৮ খতিয়ানের এস,এ ৩১০ দাগের ৪৪ শতক সম্পত্তি ক্রয় করে ভোগ দখলে রয়েছেন। যা ২০১৩-১৪ সালে ১৪০৪ নং কেসে নামপত্তন করেছেন। তিনি অভিযোগ করেন, কোন রকম আলোচনা ছাড়াই সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও তার ভাগ্নের সাইনবোর্ড টাঙানো রীতিমত প্রশ্নবিদ্ধ। অপরদিকে, এ সম্পত্তি নিয়ে লস্করের মিজান গাজী ও আলমতলার সোহরাব জমাদ্দারের মধ্যে বিরোধ রয়েছে বলে জানা গেছে। মিজান গাজী, সোহরাবের সঙ্গে স্বত্ব নিয়ে বিরোধ দেখা দিলে যা থানা পর্যন্ত গড়ায়। সর্বশেষ পানি উন্নয়ন বোর্ড তার একটি দখল স্বত্বে কাগজ দিয়েছেন বলে দাবী করেন। ইউনিয়নের অধিকাংশ দলীয় নেতাকর্মীরা সাইনবোর্ড টাঙানোর ঘটনা কিছুই জানে না বলে ইউনিয়ন আ’লীগের সদস্য সচিব বিভূতি ভূষণ সানা বলেন, শুনেছি ইউনিয়ন আহবায়ক ও তার ভাগ্নে দু’জনে মিলে সাইনবোর্ড দিয়েছেন। লস্কর আ’লীগের দলীয় ইউপি চেয়ারম্যান কে,এম, আরিফুজ্জামান তুহিন জানান, আমি এ সম্পর্কে কিছুই জানি না এবং আমাকে কেউ বলেনি। এ বিষয়ে ইউনিয়ন আ’লীগের আহবায়ক গোলাম মোস্তফা ও তার ভাগ্নে এ্যাডঃ ইদ্রিসুর রহমান মন্টু বলেন, আমরা সরকারের পানি উন্নয়ন বোর্ডের জায়গায় দলীয় কার্যালয়ের জন্য সাইনবোর্ড দিয়েছি। যারা এ সম্পত্তি দাবী করছে তাদের কোন কাগজপত্র নেই বলে এ দু’নেতা দাবী করেছেন। জেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি ও উপজেলা আ’লীগের আহবায়ক গাজী মোহাম্মদ আলী জানান, দলীয় কার্যালয়ের সাইনবোর্ড সম্পর্কে আমি জানি না এবং এ সম্পর্কে আমাকে কেউ কিছু বলেনি। সাংবাদিকদের মুখে এ কথা শুনেছি বলে তিনি মন্তব্য করেন।

আইনশৃংখলা কমিটির সভায় উত্থাপন
পাইকগাছা-কয়রা সড়কে গাইড হ্যাজিংয়ে নিম্নমানের ইট ব্যবহারের অভিযোগ
পাইকগাছা প্রতিনিধি ॥32
পাইকগাছা-কয়রা সড়কে সংস্কার কাজে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে সড়কের দু’ধারে গাইড হ্যাজিংয়ে নিম্নমানের ইট ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবারে উপজেলা আইনশৃংখলা কমিটির সভায় বিষয়টি উত্থাপন হলে সংশ্লিষ্টরা ঐ ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছেন।
জানা গেছে, পাইকগাছা-খুলনা ও পাইকগাছা-কয়রা অভিমুখী সড়কে আলমতলা কালভার্ট পর্যন্ত সংস্কার কাজে নির্ধারিত কৃষি কলেজের স্থানে সড়কের দু’ধারে গাইড হ্যাজিংয়ে খুবই নিম্নমানের ইট বসানো হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। খবর পেয়ে লস্কর ইউপি চেয়ারম্যান কে,এম, আরিফুজ্জামান তুহিন সরেজমিনে গিয়ে গাইড হ্যাজিংয়ের কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন বলে জানান। এ বিষয়ে তিনি মঙ্গলবারে অনুষ্ঠেয় আইনশৃংখলা কমিটির সভায় বিষয়টি উত্থাপন করলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ তদন্ত সাপেক্ষে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিবেন বলে মতামত ব্যক্ত করেছেন। এ বিষয়ে ঐ ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের লাইন সুপারভাইজার লুৎফর রহমান বলেন, ইউপি চেয়ারম্যান নিম্নমানের ইটের অভিযোগ করায় কাজ বন্ধ করে দিয়েছি এবং ভালো ইট এনে কাজ করা হবে বলে জানান।

প্রেরক
জি,এ, গফুর
পাইকগাছা, খুলনা।

Facebook Comments
Please follow and like us: