সহিংসতা বন্ধে এটাই সুচির শেষ সুযোগ, নইলে পরিস্থিতি ভয়ঙ্কর হবে: জাতিসংঘ

ডেস্ক: মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর দেশটির সেনা হামলা বন্ধে এটাই সুচির শেষ সুযোগ বলে মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তনিও গুতেরেস। অন্যাথায় পরিস্থিতি ভয়ঙ্কর হবে বলেও তিনি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

জাতিসংঘের মহাসচিব বলেছেন, রোহিঙ্গা মুসলমানদের জন্য রোহিঙ্গা ইস্যুকে তীব্র করে তুলেছে।

অ্যান্তনিও গুতেরেস বিবিসিকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে জানান, তিনি এখন অভিনয় করেন না, “ট্র্যাজেডি একেবারে ভয়ঙ্কর হবে”।

জাতিসংঘ সতর্ক করে দিয়েছে, জাতিগত শুদ্ধির জন্য পরিস্থিতি আক্রমণাত্মক হতে পারে।

জাতিসংঘ মহাসচিব জানান রোহিঙ্গা নাগরিকদের ওপর মিয়ানমার যে সহিংসতা চালাচ্ছে তা অস্বীকার করছে।

এই সপ্তাহে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের সামনে বিবিসির হার্টটক অনুষ্ঠানে সাক্ষাত্কারে   অ্যান্তনিও গুতেরেস বলেন, মঙ্গলবার সাধারণ পরিষদের বৈঠকের আগে রোহিঙ্গাদের ওপর সেনা অভিযান বন্ধের শেষ সুযোগ পাবেন সুচি।

“যদি সে এখন পরিস্থিতি পরিবর্তন না করে, তাহলে আমি মনে করি ট্রাজেডি একেবারে ভয়ঙ্কর হবে এবং দুর্ভাগ্যবশত আমি জানি না এর ভবিষ্যৎ বিপরীত কী হতে পারে?”

রোহিঙ্গাদের বাড়ি ফেরার অনুমতি দেওয়া উচিত উল্লেখ করে জাতিসংঘ মহাসচিব আরও বলেন, এটা স্পষ্ট যে, মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর দেশটিতে এখনও “নিয়ন্ত্রণ রয়েছে”।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে ক্রমবর্ধমান সমালোচনার সম্মুখীন হচ্ছেন মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সুচি। জান্তা পরিচালিত মিয়ানমারের মধ্যে গৃহবন্দী থাকার কারণে অনেক বছর কাটিয়েছিলেন নোবেল শান্তি পুরস্কার বিজয়ী সুচি।

তিনি নিউইয়র্কে জাতিসংঘের ৭২তম সাধারণ পরিষদে যোগদান করবেন না। তিনি দাবি করেছেন, “ভুলবশত বিশাল বিশাল স্থান” দ্বারা সংকট সৃষ্টি হচ্ছে।

মিয়ানমার থেকে জীবন রক্ষায় এই মধ্যে বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছেন ৪ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা মুসলিম।

Please follow and like us:
Facebook Comments