শ্যামনগরে মুক্তিযোদ্বা নজরুল ইসলাম আর নেই#শ্যামনগরে মানব ব্যাংকের ফাঁদে মানুষ, প্রতিনিয়ত হয়রানি ও প্রতারনা শিকার!

শ্যামনগর ব্যুরো ঃ শ্যামনগরের কাশিমাড়ী ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্বা কমান্ডার নজরুল ইসলাম(৭৫) আর নেই। গতকাল ১৯ সেপ্টে¤র রাত ২ টার দিকে ঢাকার পি জি হাসপাতালে মুক্তিযোদ্বা কমান্ডার নজরুল ইসলাম তরফদার বার্ধক্য জনিত কারণে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যবরণ করেন। তিনি এমপি এস,এম জগলুল হায়দারের ফুফাতো ভগ্নিপতি, কাশিমাড়ীর চেয়ারম্যান এস,এম, আব্দুর রউফ এর বড় দুলা ভাই, মরহুম শামছুর রহমান তরফদারের বড় প্ত্রু, মেজর অবঃ আমিরুল ইসলামের বড় ভাই, এবং নওয়াবেকীর মরহুম আব্দুল মেম্বার এর বড় শ্যালক ছিলেন। রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাকে পারিবারিক কবর স্থানে দাফন করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন শ্যামনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ কামরুজ্জামান,থানা অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ মান্নান আলী, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার দেবী রঞ্জন মন্ডল, কাশিমাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান ডাঃ এস,এম, আব্দুর রউফ সহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন

 

।শ্যামনগরে মানব ব্যাংকের ফাঁদে মানুষ,
প্রতিনিয়ত হয়রানি ও প্রতারনা শিকার!
মোস্তফা কামালঃ সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর উপজেলা সহ প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের অসহায়ত্বের সুযোগ নিচ্ছে কিছু অসাধু সুদ ব্যবসায়ী চক্র। যা মানব ব্যাংক নামে পরিচিত। যারা ইতোমধ্যে সাতক্ষীরা জেলার বিভিন্ন উপজেলায় মানব ব্যাংক নামে পরিচিত। এসব মানব ব্যাংক কতটা মারাত্বক ও ভয়াবহ রুপ ধারন করতে পারে তা বলায় বাহুল্য। মানুষেল জীবন যাত্রার মান উন্নয়নের পাশাপাশি জীবিকা নির্বাহের তাগিদে মানুষের প্রয়োজন হয়ে পড়ে টাকার। টাকা ছাড়া মানুষের পথ চলা কিংবা অন্য কিছু ভাবাটা যেন অকল্পনীয়। প্রয়োজনের তাগিদে হঠাৎ মানুষের জরুরীভাকে টাকার দরকার হয়। তখন স্থানীয় ব্যাংক কিংবা এনজিও প্রতিষ্ঠানে নিয়ম তান্ত্রিক জটিলতার কারনে দ্রুত টাকা না পাওয়ায় মানুষ মানব ব্যাংকের ফাদে পা বাড়াচ্ছে। সে কারনে খেসারত হিসেবে মানুষকে প্রতিনিয়ত হয়রানি ও প্রতারনার শিকার হতে হচ্ছে। আমাদের সভ্য সমাজে কিছু সংখ্যক মুখোশধারী মানুষ নিয়ম বর্হিভূতভাবে চড়া সুদে টাকা বসিয়ে সহজ সরল মানুষকে নাজেহাল করছে। মানুষের অসহায়ত্বের সুযোগে মানব সুদ ব্যবসায়ীরা শর্ত সাপেক্ষে ভুক্তভোগীদের থেকে ব্লাংক চেক নিয়ে মাসিক হারে ১ লাখ প্রতি ১০ হাজার খেকে শুরু করে ১৫ হাজার টাকা এমনকি ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত মাসিক হারে টাকা আদায় করে থাকে। বিভিন্ন মেয়াদ চুক্তিতে মানব ব্যাংক থেকে চড়া সুদে টাকা উত্তোলন করে মেয়াদ শেষে লাভ সহ মুল টাকা পরিশোধে হিমসিম খেতে হচ্ছে মানুষের। কোন কোন ব্যক্তি চড়া সুদের টাকা পরিশোধ দিতে নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এমনকি নিজ পৈত্রিক সম্পত্তি অন্যত্রে কিংবা সুদ ব্যসায়ীদের কাছে বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছে এমন নজির রয়েছে অনেক। এদিকে সুদের টাকা সহ মুল টাকার দ্বিগুন পরিশোধ দিয়েও ভুক্তভোগীরা ফেরত পাচ্ছে না জামানতের ব্লাংক চেক। সুদ ব্যবসায়ী মানব ব্যাংক চক্র আজকাল করিয়া কালক্ষেপন করিয়া চেকটি অন্যত্র বিক্রি করে মিথ্যা মামলা দিচ্ছে বলে বিভিন্ন উপজেলায় ভুক্তভোগীদের কাছে এ তথ্য পাওয়া যায়। সাতক্ষীরা, কলারোয়া, আশাশুনি, দেবহাটা, তালা, কালিগঞ্জ, শ্যামনগর এ সাতটি উপজেলার মধ্যে সবচেয়ে বেশি হয়রানি ও প্রতারনার শিকার হচ্ছে কালিগঞ্জ ও শ্যামনগর। ভুক্তভোগীদের জামানতের একাধিক বেলাংক চেক গ্রহন করায় সুদ ব্যবসায়ীরা ফেরত না দিয়ে অন্যত্রে ঐসব চেক বিক্রির পথ অবলম্বন করছে বলে জানা যায়। আবার কোন কোন সময় সূদ ব্যবসায়ীরা ইচ্ছা খুশিমত মন গড়ানো মোটা অংকের টাকা ব্লাংক চেকে বসিয়ে যথাযথ ব্যাংক থেকে চেক ডিজঅনার করছে। পরবর্তীতে ঐ সমস্ত চেক নিয়ে সংশ্লিষ্ট উকিলদেরকে ভুল বুঝিয়ে এক পর্যায়ে ভুক্তভোগীদের উকিল নোটিশ প্রেরন করছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে ভুক্তভোগীরা নোটিশের অভিযোগটি মিথ্যা বলে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি মহলে বিষয়টি অবহিত করলেও মিলছেনা কোন প্রতিকার। বর্তমানে মানব ব্যাংকের প্রতারনার কাছে লোকজন এখনও অসহায়। এর ফলে এক দিকে যেমন সহজ সরল লোকজন হারাচ্ছে তাদের সহায় সম্বল, তেমনি কোন কোন ভুক্তভোগী কিছুটা পরিত্রাণ পেতে হচ্ছে ঘরছাড়া। সচেতন মহলের মতে বর্তমান সমাজে মানব ব্যাংক একটি ভয়াবহ ক্যান্সারের আকার ধারন করেছে। এখনই এটাকে থামানো উচিৎ বলে তারা মনে করেন। এ ঘটনায় একাধিক ভুক্তভোগী ও সচেতন মহল মানব ব্যাংক নামের সুদ ব্যবসায়ী প্রতারকদের বিরুদ্ধে প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
মোস্তফা কামাল
১৯/৯/১৭

Facebook Comments
Please follow and like us: