তালায় সরকারী গাছ কর্তনের অভিযোগ স্থানীয় প্রভাব শালীর বিরুদ্ধে

তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও তার সিনিয়র অফিসার ডেপুটি ডিরেক্টটর (ডিডি) এর আদেশ উপেক্ষিত তালায় সরকারী গাছ কর্তনের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় প্রভাব শালীর বিরুদ্ধে
আকবর হোসেন, তালাঃ তালায় সরকারী গাছ কর্তনের অভিযোগ উঠেছে বারুইহাটি গ্রামের লতিফ মাস্টারের পুত্র আসরাফুজ্জামান রিপনের বিরুদ্ধে। গতকাল মঙ্গলবার উপজেলার বারুইহাটি গ্রামে সমাজ সেবা অধিদপ্তর এর আওতাধীন গণপ্লাটুন কেন্দ্রের সীমানা থেকে ৩ টি গাছ কর্তন করা হচ্ছিল। তবে এখনো পর্যন্ত গাছ গুলো মাটিতে ফেলেনি তারা কিন্তু গোড়া খুঁচে গাছের ডাল কেটে সাবার করছে। তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও তার সাতক্ষীরা ডেপুটি ডিরেক্টটর (ডিডি) গাছ কর্তনের জন্য থানায় অভিযোগ করার আদেশ দিলেও তা পালন হয়নি ।
সরেজমিনে গিয়ে দেখাযায, বারুইহাটি গ্রামে সমাজ সেবা অধিদপ্তরের আওতাধীন গণপ্লাটুন কেন্দ্রের সীমানায় অনেকগুলো গাছ লাগানো আছে।এ সীমানার মধ্য হতে বারুইহাটি গ্রামের লতিফ মাষ্টারের পুত্র আসরাফুজ্জামান রিপন তিন টি বড় মেহগনী গাছ বিক্রি করে দেয় ব্যাপারীদের কাছে । যার আনুমানিক মুল্য ৫০হাজার টাকার উপরে।
এদিকে সংবাদ পেয়ে উপজেলা সমাজসেবা অফিসের উচ্চমান সহকারী আজহারুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ফিরে এসে বিষয়টি তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও তার সিনিয়র অফিসার ডেপুটি ডিরেক্টটর (ডিডি)কে অবহিত করলে তারা থানায় অভিযোগ দায়ের করতে বলেন। তবে এ ঘটনায় এখনো পর্যন্ত থানায় কোন অভিযোগ দায়ের করেননি সমাজ সেবা কর্মকর্তারা।
এ ব্যাপারে সমাজসেবা অফিসের সুপারভাইজার এনামুল হক এবং উচ্চমান সহকারী আজহারুল ইসলাম বলেন, ভাই আমাদের কোন বক্তব্য নাই যেহেতু আমাদের অফিসার বাইরে ট্রেনিং আছে। তবে আমরা মৌখিক ভাবে তাদের কে গাছ কর্তন করতে নিষেধ করেছি।
ব্যাপারী নুর উদ্দিন(৫০) বলেন, আমি ১টি গাছ ক্রয় করেছি যার মুল্য ২০হাজার ৫শত টাকা। তবে লতিফ মাষ্টারের ছোট ভাই আব্দুল গনি বলেন এখান থেকে ৩টি গাছ বিক্রয় করা হয়েছে ।
লতিফ মাষ্টারের পুত্র রিপন এর সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমরা সরকারী গাছ কেন বিক্রি করবো। এটা আমাদের সম্পতিছিলো আমরা দান করেছি । তাহাছাড়া সরকারী জায়গায় লাগানো গাছ কর্তন করছি না । এটা আমাদের সম্পত্তির সীমানা।
এঘটনায় তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফরিদ হোসেন এ প্রতিবেদককে বলেন, অমি বিষয়টি শুনা মাত্রই থানা পুলিশ কে অবহিত করতঃ গাছ কর্তন বন্ধ রাখার জন্য নির্দেশ দিয়েছি।

Please follow and like us:
Facebook Comments