খালেদার চেয়ে বড় সমাবেশ কক্সবাজারে করেছি কোনো জনদুর্ভোগ হয়নি: কাদের

ক্রাইমবার্তা রিপোর্ট:ঢাকা: কথায় কথায় নালিশ করা বিএনপির পুরনো অভ্যাস বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

রবিবার দুপুরে ঢাকার একটি রেস্তোরাঁয় জাতীয় সড়ক পরিবহন নিরাপত্তা কাউন্সিলের সাধারণ সভা শেষে বেরিয়ে আসার পর বিএনপির অভিযোগের প্রতিক্রিয়ায় তিনি এই মন্তব্য করেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, খালেদা চেয়ে বড় সমাবেশ আমি কক্সবাজারে করেছি। কোনো জনদুর্ভোগ হয়নি। কিন্তু ক্ষমতার বাইরে থেকেও সমাবেশের নামে বিএনপি এখন রাস্তা ঘাট অচল করে দিয়েছে, এ থেকে বোঝা যায় ক্ষমতা গেলে তারা দেশ অচল করে দিবে।

রবিবার বিকালে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপির সমাবেশের আগে সকাল থেকে আশাপাশের জেলা থেকে ঢাকাগামী অধিকাংশ বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে।
বিএনপি নেতারা অভিযোগ করেছেন, তাদের কর্মসূচিতে জনসমাগম ঠেকাতে সরকার পরিকল্পিতভাবে বাস চলতে দিচ্ছে না।

বিএনপির এই অভিযোগ প্রসঙ্গে কাদের বলেন, এটা খতিয়ে দেখতে হবে, খোঁজ নিতে হবে বাধাটা কে দিচ্ছে? বিএনপি তো নিজেরাই নিজেদের বাধা দেয়।

তিনি বলেন, অতীতে আমরা যখন এসব অভিযোগের খোঁজ-খবর নিয়ে দেখি, তখন অনেক সময় দেখা যায়, এসব অভিযোগের বাস্তব কোনো ভিত্তি নেই। আসলেই কথায় কথায় নালিশ করা বিএনপির পুরনো অভ্যাস।

সমাবেশে জনভোগান্তির জন্য বিএনপি নেতা-কর্মীদের বিশৃঙ্খলাকে দায়ী করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ১৮ নভেম্বর ৭ মার্চের ভাষণের বিশ্ব স্বীকৃতির জন্য আমরা সমাবেশ দিয়েছি শনিবার দেখে। এ ধরনের সমাবেশে জনভোগান্তি হবেই, এটাকে সহনীয় মাত্রায় রাখা রাজনৈতিক দলের দায়িত্ব। কিন্তু আজকে তো সহনীয় মাত্রায় নেই। মাত্রা অতিক্রম করে এখন রাস্তা অচল হয়ে গেছে।

তিনি আরো বলেন, বেগম জিয়ার সংবর্ধনার দিনও একই অবস্থা হয়েছিলো। আমরা শেখ হাসিনাকে যে সংবর্ধনা দিয়েছিলাম সেখানে আমাদের মহিলা উপস্থিতিও তাদের সম্মিলিত উপস্থিতির চেয়েও বেশি ছিল। তারপরও আমরা ছিলাম সুশৃঙ্খল পরিবেশে, নেতাকর্মীরা ছিল ফুটপাতে। যারা আজকে রাস্তা অচল করে সভাসমাবেশ করে, তারা ক্ষমতায় আসলে তারা দেশ অচল করবে।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, সরকার কি সহায়ক না কি তত্ত্বাবধায়ক? তারা একবার বলে সহায়ক সরকার আবার বলে তত্ত্বাবধায়ক সরকার। আসলে কী চান তারা, তা কি আজ পরিষ্কার করবেন বেগম খালেদা জিয়া?

সৈয়দ আশরাফের সঙ্গে দেখা করলেন ওবায়দুল কাদের
আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলির সদস্য ও জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের সঙ্গে দেখা করেছেন দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি সৈয়দ আশরাফের স্ত্রী শীলার মৃত্যুতে সমবেদনা জানিয়েছেন।

ওবায়দুল কাদের শনিবার সকাল পৌনে ১১টার দিকে আশরাফের বেইলি রোডের সরকারি বাসভবনে যান। প্রায় ৪০ মিনিট সময় কাটান। ব্যক্তিগতভাবে সমবেদনা জানান এবং বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা হয় দুই নেতার মধ্যে।

সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের স্ত্রী শীলা ইসলাম লন্ডনে মারা যান। দাফন শেষে লন্ডন থেকে গত ৪ নভেম্বর সৈয়দ আশরাফ দেশে ফেরেন।

শনিবার বিকালে সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের স্ত্রীর কুলখানি অনুষ্ঠিত হবে। বিকেলে গাজীপুরে দলের একটি কর্মসূচিতে যোগ দেবেন ওবায়দুল কাদের। তাই কুলখানিতে থাকতে পারবেন না। এ কারণে ওবায়দুল কাদের সকালে সৈয়দ আশরাফের সঙ্গে দেখা করতে যান।

Please follow and like us:
Facebook Comments