সাতক্ষীরায় যুবলীগের ৪৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষির্কীর আলোচনা সভায় রুহুল হক এমপি আগামী নির্বাচনে আওয়ামীলীগ ও শেখ হাসিনাকে আবারো ক্ষমতায় বসাতে দলকে সুসংগঠিত করার বিকল্প নেই

শেখ কামরুল ইসলাম : ‘রাষ্ট্র নায়ক শেখ হাসিনার বিশ^ শান্তির দর্শণ -জনগণের ক্ষমতায়ন সুদৃঢ় করায় আমাদের অঙ্গিকার’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের গৌরব, ঐতিহ্য ও সংগ্রামের ৪৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষির্কী উপলক্ষে র‌্যালী, কেককাটা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সন্ধায় সাতক্ষীরা শহিদ আব্দুর রাজ্জাক পার্কে সাতক্ষীরা জেলা যুবলীগের আয়োজনে এবং পৌর যুবলীগের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়। র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে শহিদ আব্দুর রাজ্জাক পার্কে আলোচনা সভায় মিলিত হয়। আলোচনা সভায় জেলা যুবলীগের আহবায়ক মো. আব্দুল মান্নানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. আ.ফ.ম রুহুল হক। এ সময় তার বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ ১৯৭২ সালে ১১-ই নভেম্বর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া একটি আদশ্যের সংগঠন। বাংলার মেহনতি শোসন বঞ্চিত অবহেলিত নিপড়িত মানুষের কল্যাণে কাজ করার জন্য এ সংগঠন প্রতিষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের একটি সুসংগঠিত দল আওয়ামী যুবলীগ। আওয়ামীলীগের এই শক্তি সন্ত্রাস জঙ্গীবাদ যতদিন এই বাংলার মাটি থেকে নির্মূল না হবে ততদিন যুবলীগের পরিক্ষীত সৈনিকরা রাজপথে থাকবে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আর্দশ বুকে ধারণ করে প্রতিটি লড়াই সংগ্রামে অংশ গ্রহণ করেছে যুবলীগের নেতা কর্মীরা। স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে যুবলীগের নেতা কর্মীরা জেল জুলুমসহ বিভিন্ন নির্যাতনের স্বিকার হয়েছে। যুবলীগের ত্যাগী নেতা-কর্মীদের মূল্যায়ন করতে হবে। তাহলে আগামী দিনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ তথা জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত আরো শক্তিশালী হবে। তিনি আরো বলেন, আগামী নির্বাচনে বাংলাদেশ আৗয়ামীলীগ ও জননেত্রী শেখ হাসিনাকে আবারো ক্ষমতায় বসাতে দলকে সুসংগঠিত করার বিকল্প নেই। আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মুনসুর আহমেদ, সাতক্ষীরা-০২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. নজরুল ইসলাম, সাবেক জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মুজিবুর রহমান, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, সৈয়দ ফিরোজ কামাল শুভ্র, শেখ সাহিদ উদ্দীন, জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদিকা ও কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামীলীগের সদস্য পৌর কাউন্সিলর জ্যোৎন্সা আরা, জেলা আওয়ামীলীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক সরদার মুজিব, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এস.এম শওকত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মো. শাহাজান আলী, পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি মোহাম্ম আবু সায়ীদ, সাধারণ সম্পাদক মো. সাহাদাৎ হোসেন প্রমুখ। আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন আশাশুনি উপজেলা যুবলীগের সভাপতি স.ম সেলিম রেজা মিলন, সদর উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি মো. গোলাম কিবরিয়া বাবু, সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক মঈনুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, শ্যামনগর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি কাজী গোলাম মোস্তফা, তালা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি সরদার জাকির হোসেন, কলারোয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি কাজী আসাদুজ্জামান শাহজাদা, দেবহাটা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান, কালিগজ্ঞ উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আনোয়ারুল কবির লিটু, পৌর যুবলীগের সভাপতি মনোয়ার হোসেন অনু, সাধারণ সম্পাদক তুহিনুর রহমান তুহিন, মহিতুর রহমান, সাইফুল ইসলাম, আসাদুজ্জান তুহিন ও বিজয় ঘোষ প্রমুখ। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক শেখ হারুন উর রশিদ. জেলা আওয়ামীলীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা এনামুল হক বিশ^াস, আইন বিষয়ক সম্পাদক জজ কোর্টের পিপি এড. ওসমান গণি, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক শহীদুল ইসলাম, সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কোহিনুর ইসলাম, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক শেখ আব্দুর রশিদ, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক শেখ মনিরুল হোসেন মাসুম, মফিজুল ইসলাম, যুবলীগ নেতা ইদ্রিস বাবু, এস.এম ইউসুফ সুলতান মিলন ও আজিবুর রহমান আলীমসহ জেলা যুবলীগের নেতৃবৃন্দ। আলোচনা সভা শেষে মনোঙ্গ সাংস্কৃতিক অনূষ্ঠান পরিবেশিত হয়। সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সদর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মো. মিজানুর রহমান মিজান।

Please follow and like us:
Facebook Comments