আনিসুল হকের কুলখানি সম্পন্ন

ক্রাইমবার্তা রিপোর্ট:ঢাকা: ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) সদ্য প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের কুলখানি সম্পন্ন হয়েছে। বুধবার বাদ আসর রাজধানীর গুলশানের আজাদ মসজিদে মিলাদ মাহফিল ও  দোয়া-মোনাজাতে অনুষ্ঠিত হয় কুলখানি।
এসময় রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, বিশিষ্টজন ও  আত্মীয়-স্বজন, শুভানুধ্যায়ীসহ সাধারণ মানুষ উপস্থিথ ছিলেন। পরিবারের সদস্যদের মধ্যে আছেন আনিসুল হকের স্ত্রী রুবানা হক, ছেলে নাভিদুল হক, দুই মেয়ে ওয়ামিক উমায়রা হক ও তানিশা ফারিয়াম্যান হক, নাতনি, ছোট ভাই সেনাপ্রধান জেনারেল আবু বেলাল মোহাম্মদ শফিউল হকসহ অন্যরা।
কুলখানিতে আনিসুল হকের স্মৃতিচারণ করে বক্তব্য

 

দেন ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের (এফবিসিসিআই) সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন ও সাবেক সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমাদ।
উল্লেখ্য, গত ৩০শে নভেম্বর লন্ডনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান আনিসুল হক। ২রা ডিসেম্বর তার মরদেহ ঢাকায় আনার পর ওইদিনই বিকেলে বনানীতে মায়ের পাশে দাফন করা হয় তাকে।

বাদ আসর রাজধানীর গুলশানের আজাদ মসজিদে মিলাদ

 

মাহফিল, কুরআনখানি ও দোয়া-মোনাজাতে অনুষ্ঠিত হয় কুলখানি।

কুলখানিতে আনিসুল হকের স্মৃতিচারণ করে বক্তব্য দেন ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের (এফবিসিসিআই) সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন ও সাবেক সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমাদ।

গত বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) রাতে যুক্তরাজ্যের লন্ডনের ওয়েলিংটন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন আনিসুল হক। হাসপাতালে তিনি কৃত্রিম শ্বাস-প্রশ্বাস (ভেন্টিলেশন) যন্ত্র দেওয়া অবস্থায় লাইফ সাপোর্টে ছিলেন। বাংলাদেশ সময় রাত ১০টা ২৩ মিনিটে কৃত্রিম শ্বাস-প্রশ্বাস যন্ত্র খুলে নিয়ে চিকিৎসকেরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

 

গত শুক্রবার (০১ ডিসেম্বর) বাদ জুমা লন্ডনের রিজেন্ট পার্ক মসজিদে তার প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

পরদিন শনিবার (০২ ডিসেম্বর) বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে বনানী কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হন আনিসুল হক। মাত্র ছয় বছর বয়সে মারা যাওয়া ছেলে মোহাম্মদ শারাফুল হকের কবরে দাফন করা হয় তাকে। সদ্যপ্রয়াত মেয়রের মা ফাতেমা জোহুরা বেগমের কবরও পাশেই।

ওইদিন দুপুর ১২টা ৫০ মিনিটে বাংলাদেশ বিমানের বিজি ০০

২ ফ্লাইটযোগে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে মরদেহ পৌঁছানোর পর সরাসরি মেয়রের বনানীর ২৩ নম্বর সড়কের ৮০ নম্বর বাসায় নেওয়া হয়।

বাসায় গিয়ে আনিসুল হককে শেষ শ্রদ্ধা জানান, তার পরিবারের সদস্যদের শান্তনা দেন ও সমবেদনা জানান এবং তাদের নিয়ে মোনাজাত করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, আওয়ামী লীগের

০৬ ডিসেম্বর ২০১৭,বুধবার:ক্রাইমর্বাতাডটকম/প্রতনিধি/আসাবি

Please follow and like us:
Facebook Comments