অভয়নগরে শীতে জবুথবু সাধারণ মানুষ

গরম পোষাকের বিকিকিনি চলছে স্থানীয় হাট-বাজারে : বাড়ছে ঠা-াজনিত রোগব্যাধি : প্রায় অর্ধ ডজন মানুষের মৃত্যু
বি.এইচ.মাহিনী : যশোরের অভয়নগরের ভৈরব উত্তর জনপদে শীত এসেছে কুয়াশার চাদর মুড়ি দিয়ে। দেশের ইতিহাসে সর্বনি¤œ তাপমাত্রায় জবুথবু সাধারণ মানুষ। সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, শৈত্য প্রবাহ অব্যাহত থাকায় গত এক সপ্তাহ ধরে শীতবস্ত্রের বিকিকিনি চলছে ধুমছে। প্রচন্ড শীত প্রশমনে সাধারন মানুষ গরম কাপড় কেনার জন্যে ভৈরব উত্তরের বিভিন্ন বাজারের ছোট বড় দোকান ও ফুটপাথে ভিড় জমাচ্ছে। তবে অপেক্ষাকৃত দরিদ্র, নি¤œমধ্যবিত্ত ও খেটে খাওয়া মানুষদের ফুটপাতের দোকানে দেখা মিলছে। গতকাল বুধবার বিকালে সরেজমিনে গিয়ে ভৈরব উত্তরের ঐতিহ্যবাহী চাকই গরুহাটে তাদেরকে শীতবস্ত্র বেচাকেনা করতে দেখা গেছে। এ বাজারের ফুটপাথের কাপড় ব্যবসায়ী রকিব হাসান ক্রাইম বার্তার এ প্রতিবেদককে জানান, দেশের ইতিহাসে সর্বনি¤œ তাপমাত্রায় গত কয়েকদিনের ঠান্ডা ও শৈত্য প্রবাহ অব্যাহত থাকার কারণে শীতবস্ত্র বেচাকেনা হচ্ছে পুরোদমে। তবে খোজ নিয়ে দেখা গেছে, অত্যধিক ঠা-া ও শৈত্য প্রবাহের কারণে গরম কাপড়ের চাহিদা বেশি থাকায় ব্যবসায়ীরা সুযোগ নিচ্ছেন অনেকটাই। শীতের পোষাক ক্রেতা সবুর গাজী জানান, গত বারের তুলনায় এবার গরম কাপড়ের দাম একটু বেশি। তবে কয়েকদিন আগে এমন বেশি দাম ছিল না। শীত বৃদ্ধির সাথে সাথে কাপড়ের দামও বেড়েছে। অন্যদিকে শৈত্য প্রবাহ অব্যাহত থাকায় শিশু ও বৃদ্ধদের ঠা-া ও শাসকষ্টজনিত রোগ, নিউমনিয়াসহ নানাধরণের রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। অধিক ঠা-ায় মৃত্যুর খবরও পাওয়া গেছে। জানা গেছে, চলতি সপ্তাহে শৈত্য প্রবাহের তীব্র ঠা-ার ফলে ভৈরব উত্তর জনপদে প্রায় অর্ধডজন বৃদ্ধ মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

Please follow and like us:
Facebook Comments