দৈনিক উপমা লটারি’র ফাঁদে লাখো মানুষ

নাটোর প্রতিনিধি:
নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার গ্রাম-গঞ্জে ‘দৈনিক উপমা র‌্যাফেল ড্র’ নামে জুয়ার ফাঁদে পড়ে লাখ লাখ মানুষ আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। আয়োজকরা প্রতিদিন প্রায় হাতিয়ে নিচ্ছে অর্ধকোটি টাকা। সেই সাথে বনপাড়া বাইপাস মোড়ে গ্রামীণ পল্লী মেলার নামে চলছে গভীর রাতে নগ্ননৃত্য ও হাউজি নামের জুয়া। এতে সর্বশান্ত হচ্ছে এলাকার মানুষ। এলাকার উঠতি বয়সের ছেলে ও স্কুল-কলেজ পড়–য়া শিক্ষার্থীরা ওই নগ্ননৃত্য দেখে তাদের নৈতিকতার অবক্ষয় ঘটছে। যার ফলে এলাকায় যৌন হয়রানির মত অপরাধ প্রবণতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাছাড়া লোভে পড়ে একাকজন ১শ’ দেড়শ’ টিকেট ক্রয় করছে বলে জানাগেছে। গ্রামে গ্রামে, হাটে-বাজারে ইজি-বাইক, সিএনজি, ভ্যান গাড়িতে করে ওই র‌্যাফেল ড্র’র টিকিট বিক্রি হচ্ছে। মানুষকে ফাঁদে ফেলতে শুরু থেকেই দিচ্ছে ১৫০সিসি’র মোটর সাইকেলসহ বিভিন্ন ধরনের আকর্ষণীয় পুরষ্কার। ডিস লাইনের চ্যানেলে এ লোটারির খেলাটি প্রচার করায় জনগণের মাঝে বিশ^াস সৃষ্টি হয়। এতে জনগণের মাঝে ব্যাপকহারে সৃষ্ট বিশ^াসকে পুঁজি করে ‘দৈনিক উপমা র‌্যাফেল ড্র’র নামে এই জুয়াটি চালিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে কোটি কোটি টাকা। লোভে পরে লোটারী নামক জুয়ায় বাদ পরছে না শিশু, কিশোর , যুবক, যুবতীসহ বৃদ্ধারাও। ওই র‌্যাফেল ড্র’র টিকেট গুরুদাসপুর-বড়াইগ্রাম ছাড়াও পাশর্^বর্তী সিংড়া, লালপুর, বাগাতিপাড়া, পাবনার ঈশ^র্দী, চাটমোহর, সিরাগঞ্জের তাড়াশেও টিকেট বিক্রি হচ্ছে বলে তথ্যে জানা যায়। এতে করে দরীদ্র শ্রেনীর মানুষ হচ্ছে সর্বশান্ত। ভুক্তভোগীরা অবিলম্বে এ জুয়া বন্ধে প্রশাসনের কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করছেন। ভুক্তভোগী আবু তাহের জানান, এ কয়দিনে অনেক টিকেট কিনেছি, আরনা। নিজেতো কিছু পাইনি, এমনকি কাউকে পাইতেও দেখিনি। জানা গেছে, গত ১২ জানুয়ারী-২০১৮ থেকে বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়কের বনপাড়া বাইপাস মোড়ে ওই মেলার নামে জুয়া ও নগ্ননৃত্যের আয়োজন করা হয়। প্রশাসনের নাকের ডোগায় তা চললেও কোন পদক্ষেপ নেই সংশ্লিষ্টদের। গুরুদাসপুর উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশে সকাল থেকে দুপুর ২টাা পর্যন্ত যে কোন প্রচার মাইক বন্ধ থাকার কথা থাকলেও সকল বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে সকাল থেকেই চলছে উপমার মাইক। এতে স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসা-মসজিদ এমনকি পরীক্ষা চলাকালীন কেন্দ্রের পাশে উচ্চ স্বরে বাজছে এসব মাইক। সে ক্ষেত্রেও প্রশাসন নিরব রয়েছে। চলমান ওই গ্রামীণ পল্লী মেলা পরিচালনার দায়িত্বে থাকাদের সাথে যোগাযোগ করলে তারা জানান, সকলকে ম্যানেজ করে এ মেলা চালানো হচ্ছে। গুরুদাসপুর ভারপ্রাপ্ত উপজেলার নির্বাহী অফিসার সহকারী কমিশনার (ভূমি) গনপতি রায় জানান, লোটারি নামক জুয়াটি আইনত দ-নীয় আপরাধ। গুরুদাসপুর এলাকায় এগুলো হচ্ছে তা জানা নাই। তবে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Please follow and like us:
Facebook Comments