ফরিদপুরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় চালক-সুপারভাইজারসহ ছয়জন নিহত

ক্রাইমবার্তা রিপোর্ট:ফরিদপুরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ছয়জন নিহত হয়েছেন। এদের মধ্যে সদর উপজেলার ধুলদী রেলগেটে একটি বেপরোয়া গতির বাস দুর্ঘটনায় পড়ে চালকসহ ৩ জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের একজন ভারতীয় নাগরিক। এছাড়া অপর এক দুর্ঘটনায় ভাঙ্গা উপজেলার আজিমনগর ইউনিয়নে নিহত হয়েছেন আরো ৩ জন।

ধুলদী রেলক্রসিংয়ে দুর্ঘটনায় নিহতরা হলেন, দুর্ঘটনাকবলিত ঈগল পরিবহনের চালক রাজবাড়ি জেলা ভবানীপুরের জনৈক আব্দুস সাত্তার মোল্যার ছেলে মাসুদ রানা (৩৮), বাসের সুপারভাইজার সাভারের এফ/৪৪ উত্তরপাড়ার মো: হাশেম আলীর ছেলে এমদাদুল হক ও পশ্চিমবঙ্গের বারাসাতের নাগরিক সুকান্ত মল্লিক।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কনস্ট্রাকশন কেমিকেল স্পেশালিস্ট নামের একটি কোম্পানীর প্রায় ৪৫জন কর্মী থ্যালাসেমিয়া রোগের প্রচারাভিযানে দুর্ঘটনাকবলিত বাসটিতে যশোর থেকে ঢাকায় যাচ্ছিলেন।

ফরিদপুর কোতয়ালী থানার এসআই শামীম ও পুলিশ লাইনের নায়েক জহুরুল জানান, আজ মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১০টার দিকে ধুলদী রেলগেটে বেনাপোল থেকে ছেড়ে আসা ঈগল পরিবহনের একটি বাস রেলক্রসিং অতিক্রম করার সময় দুর্ঘটনার কবলে পরে। এতে বাসটির চালক, সুপার ভাইজার এবং বাসটির যাত্রী একজন ভারতীয় নাগরিক নিহত হন।

ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইমার্জেন্সি চিকিৎসক ডা. ফরিদউদ্দিন জানান, আহতদের মধ্যে ২৮জনকে সার্জারি ওয়ার্ডে এবং তিনজনকে ট্রমা সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী রাকিব হাসান নামে এসিআই কোম্পানীর একজন কর্মী বিতরণকর্মী জানান, প্রচন্ড গতিতে ঈগল পরিবহনের ওই বাসটি ডান সাইড দিয়ে রেল ক্রসিং অতিক্রম করছিলো। এসময় বিপরীত দিক থেকে অপর একজন মোটরসাইকেল চালিয়ে আসছিলো। বাসচালক রং সাইড দিয়ে দ্রুতগতিতে রেলক্রসিং অতিক্রম করার সময় মোটরসাইকেলটিকে চাপা দিয়ে পাশের একটি গাছের সাথে ধাক্কা খায়।

ঈগল পরিবহনে থাকা কনস্ট্রাকশন কেমিকেল স্পেশালিস্ট নামে পশ্চিমবঙ্গের ওই কোম্পানীর কর্মী সুপ্রভাত কর্মকার (৪৮) বুকে প্রচন্ড ব্যাথা নিয়ে এই প্রতিবেদককে জানান, বাসচালক শুরু থেকেই বেপরোয়াভাবে গাড়ি চালাচ্ছিলো। রেলক্রসিং অতিক্রম করার সময়ও গতি কমায়নি সে। দুর্ঘটনার জন্য বাসচালকই সম্পূর্ণভাবে দায়ি বলে জানান তিনি। একই কথা জানান ট্রমা সেন্টারে ভর্তি বারাসাতের নাগরিক মর্তুজা মোল্যা (২৬) ও আল আমীন (২৫)।

আহতরা জানান, দু’টি বাসে করে প্রায় ৯০জনের মতো ঢাকায় যাচ্ছিলেন। এর মধ্যে পেছনের বাসটি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। এইবাসে তাদের প্রায় ৪৫ জন কর্মী ছিলো।

ফমেক হাসপাতালে ভর্তি আহতরা হলেন, আইয়ুব রহমান (৪৫), বিমল (৬০), শেখ ইদ্রিস আলী (৪৫), কুতুবউদ্দিন (৩৪), আবুল খায়ের (৫৫), আলমগীর (৩৩), সাইফুল (৩৩), রাকিবুল (২৫), জয়দেব (৪০), শম্বু দাস (৪০), আব্দুল হালিম (২৫), সৌরভ ঘোষ (২০), অভিজিৎ পাল (৪০), সঞ্জয় দাস (৩৬), স্বরুপ রাজ (৪৯), ইসহাক মন্ডল (৪০), আবুল কালাম (৩০), নির্মল ঘোষ (৪৯), সাইফুদ্দিন সরকার (৪৮), হাফিজুল ইসলাম (৪০), ইকবাল (৩২), মৃত্যুঞ্জয় গাইন (৪১), সাহাবুদ্দিন (২৭), ও অজ্ঞাতনামা আরো একজন। এছাড়া আবুল হাজি (৩৭)সহ আরো কয়েকজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এদিকে, আজ মঙ্গলবার সকাল ৯টার দিকে উপজেলার ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের ভাঙ্গা উপজেলার আজিমনগর ইউনিয়নের ব্রাহ্মনপাড়া নামক স্থানে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় তিনজন নিহত হয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা পাথর বোঝাই একটি বড় ট্রাকের সাথে শিবচরগামী ইট বোঝাই একটি ট্রাকের সংঘর্ষ হলে ৩ জন নিহত হন।

পুলিশ জানায়, এ সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই ট্রাক চালকের সাহায্যকারী মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলার গুপ্তেরচর গ্রামের আলাপ শেখের ছেলে চাঁন মিয়া শেখ (২০) নিহত হয়। ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনার পর মারা যায় ট্রাকের অপর হেলপার একই গ্রামের নিলু মোল্যার ছেলে মিলন মোল্যা (২২)। ফরিদপুর মেডিকেলে নেওয়ার পথে মারা যায় শ্রমিক নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার গাওছিয়া গ্রামের রিংকু (৩০)।

ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এজাজুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।০৬ফেবরুয়ারী,২০১৮মঙ্গলবার:ক্রাইমর্বাতা.কম/প্রতিনিধি/আসাবি

Please follow and like us:
Facebook Comments