সাতক্ষীরায় জামায়াতের চার মহিলা কর্মীর জামিন না মঞ্জুর: মায়ের দুধ খেতে কান্না কাটি শিশু সুরাইয়ার

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটায় আটক মহিলা জামায়াতের চার নেত্রীর সাথে কারা ফটকে সাক্ষাৎ করেছে তাদের পরিবার। জেল কোটের নিমানুযায়ী মঙ্গলবার দুপুরে আটককৃত চার সদস্যের সজনরা কারাফটকে কথা বলেন। এসময় কারা ফটকে এক হৃদয় বিদারক অবস্থার সৃষ্টি হয়। কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন আটককৃতের স্বজনরা। এসময় একটি শিশু মা মা করে চিৎকার করতে থাকে। আপর একটি শিশু আম্মু দুধ খাব বলে ডাকতে থাকেন। দুই শিশুর মা জেল খানার ভেতরে থাকায় বাচ্ছাদের বোঝানোর চেষ্টা করেন, আমরা আসছি। মিনিট দশেকের পর আটককৃতদের জেল পুলিশ নিয়ে গেলে বাচ্ছাদের কান্নার শোকে যেন স্বজনরা পাথর হয়ে যায়। এমন তথ্য জানালেন জেল খানায় দেখতে আসা আটককৃতের স্বজনরা।
এলাকা বাসি জানায়,সোমবার রাতে পাটকেলঘাটার কুমিরা ইউনিয়ন জামায়াতের মহিলা নেত্রী ও কর্মীদের বিভিন্ন বাড়িতে পুলিশ অভিজান চালায়। অভিজান কালে পুলিশ বিভিন্ন স্থান থেকে জামায়াতের চার মহিলা কর্মীকে আটক করে।পুলিশের দাবী এদের মধ্যে দুজন রোকন ও দু’জন কর্মী। রাত একটা থেকে আটক অভিজান শুরু হয় এবং ভোর চারটা পর্যন্ত চলে । এ সময় পুলিশ অভিজান চালিয়ে ঘুমান্ত অবস্থায় দাদপুর গ্রামের শেখ সামছুর রহমানের স্ত্রী রহিমা খাতুন (৫০), বাদামতলা গ্রামের বক্কর সরদারের স্ত্রী মহিলা জামাতের রোকন লাইলা বেগম (৪০), ইয়াছিন সরদারের স্ত্রী জোহরা বেগম (২৬), আলী সরদারের স্ত্রী তাসলিমা বেগম (২৫) কে তাদের বাড়ি থেকে আটক করে।
আটককৃত তাসলিমা বেগমের ছোট ছেলে ওবায়দুল্লাহ(৩) তার মাকে কাছে পেতে কান্না কাটি করছে। মায়ের হাতে ছাড়া কারোর কাছ থেকে সে ভাত খাবে না। পুলিশি ভয়ে তাসলিমা বেগমের দিনমজুর স্বামী ও বাড়ি ছাড়া। মঙ্গলবার জেলখানায় তার মায়ের সাথে সাক্ষাতের পর শিশু ওবায়দুল্লাহকে তার মামারা নিয়ে যায়।
অন্যদিকে আটক জোহরা বেগমের দুধপান করা মেয়ে সুমাইয়া(২) মায়ের দুধ খাওয়ার জন্যে ছটফট করতে থাকে। কারাফটকে তার মাকে পেয়ে কোলে উঠার জন্যে বার বার কাদতে থাকে। সুমাইয়ার মা তখন শাড়ির আচল দিয়ে মুখ ঢেকে কাঁদতে থাকে। জোহরার স্বামী ইয়াছিন বলছে,তার স্ত্রীকে আটক না করে পুলিশ তাকে আটক করলে ভাল হত। তার শিশু মেয়ের কান্না কাটি দেখতে হত না।
এদিকে মঙ্গলবার সাতক্ষীরা আমলিয়া আদালত ৬এ আসামীদের জামিনের আবেদন করা হয়। বিজ্ঞ আদালতের বিচারক রাজিব রায় শুনানি শেষে আসামীদের জামিন না মঞ্জুর করেন। আসামী পক্ষে মামলার শুনানি করেন এড.রেজওন উল্লাহ ও এড.রতনা রায় । আসামী পক্ষের আইন জীবি জানান,মামলাটা সাজানো । তাই তার আসামীরা জামিন পাওয়ার যোগ্য।
পুলিশের দাবী পাটকেলঘাটায় গোপন বৈঠকের অভিযোগে জামায়াতের রোকনসহ চার মহিলাকর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে তারা। পুলিশ জানা যায়, সোমবার ভোর ৬টার দিকে পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কুমিরা বাদমতলা নামক স্থানের একটি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে গোপন বৈঠককালে দাদপুর গ্রামের শেখ সামছুর রহমানের স্ত্রী রহিমা খাতুন (৫০), বাদামতলা গ্রামের বক্কর সরদারের স্ত্রী মহিলা জামাতের রোকন লাইলা বেগম (৪০), ইয়াছিন সরদারের স্ত্রী জোহরা বেগম (২৬), আলী সরদারের স্ত্রী তাসলিমা বেগম (২৫) কে গ্রেপ্তার করে। পরে নাশকতার পরিকল্পনাকারী ও সহায়তার অপরাধে ১৯৭৪ সালের স্পেশাল পাওয়ার এ্যাক্ট এর ১৫ (৩)/২৫-ঘ এর আইনে মামলা করে পুলিশ। মামলা নং-৪। তাং-২০-০২-১৮।

Please follow and like us:
Facebook Comments