জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমীর অধ্যাপক মুজিবুর রহমান ও ৪ জেলা আমীরসহ ১০ নেতা আটক:আজ দেশব্যাপী জামায়াতের বিক্ষোভ

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমানসহ জামায়াতের ১১ জন নেতাকেরাজশাহী শহরের একটি ঘরোয়া সাংগঠনিক বৈঠক থেকে পুলিশের অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করার ঘটনার তীব্র নিন্দা এবং প্রতিবাদ জানিয়ে জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমীর ও সাবেক এমপি মাওলানা শামসুল ইসলাম এবং সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা এটিএম মা’ছুম যুক্ত বিবৃতিতে বলেন, সরকার জামায়াতে ইসলামীকে নেতৃত্ব শূন্য করার যে গভীর ষড়যন্ত্র করছে তারই অংশ হিসেবে সোমবার রাজশাহী শহরের একটি ঘরোয়া সাংগঠনিক বৈঠক থেকে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমানসহ জামায়াতের ১১ জন নেতাকে পুলিশ অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করেছে। তারা সরকারের রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার হয়েছেন। নেতৃদ্বয় এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।
গতকাল সোমবার দেয়া বিবৃতিতে তিনি বলেন, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী দেশের একটি বৈধ রাজনৈতিক দল। জামায়াতে ইসলামীর নেতাগণকে ঘরোয়া সাংগঠনিক বৈঠক থেকে গ্রেফতার করে সরকার দেশের আইন ও সংবিধান লংঘন করেছে। এ থেকেই প্রমাণিত হচ্ছে যে, দেশে গণতন্ত্র ও আইনের শাসন বলতে আর কিছুই অবশিষ্ট নেই। এভাবে জামায়াতসহ ২০-দলীয় জোটের নেতা-কর্মীদের সরকার অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করে দেশকে রাজনীতি শূন্য করছে। দেশকে রাজনীতি শূন্য করে তারা একদলীয়ভাবে নির্বাচনের প্রহসনের নাটক করে দেশে একদলীয় ফ্যাসিবাদী শাসন কায়েমের ষড়যন্ত্র করছে। জনগণের ভোটাধিকার হরণ করে দেশে একদলীয় ফ্যাসিবাদী শাসন কায়েমের পরিণতি কখনো শুভ হবে না। স্বৈরাচারী সরকারের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে গণপ্রতিরোধ গড়ে তোলার জন্য নেতৃদ্বয় দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান।
নেতৃদ্বয় জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর এবং সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমানসহ জামায়াতে ইসলামীর গ্রেফতারকৃত সকল নেতা-কর্মীকে নিঃশর্তভাবে মুক্তি দেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান।
বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর এবং সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমানসহ সারাদেশে জামায়াতের গ্রেফতারকৃত সকল নেতা-কর্মীর মুক্তির দাবিতে  নেতৃদ্বয় আজ মঙ্গলবার দেশব্যাপী শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করেন। ঘোষিত এ বিক্ষোভ কর্মসূচি শান্তিপূর্ণভাবে পালন করার জন্য তারা জামায়াতের সকল শাখা সংগঠনের প্রতি আহ্বান জানান এবং দেশবাসীর সহযোগিতা কামনা করেন।

জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমীর অধ্যাপক মুজিবুর রহমান ও ৪ জেলা আমীরসহ ১০ নেতা আটক

গতকাল সোমবার রাজশাহীতে জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর অধ্যাপক মুজিবুর রহমানসহ (নীল পাঞ্জাবি পরিহিত) আটক জামায়াত নেতৃবৃন্দ

রাজশাহী অফিস : বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর ও জামায়াতের সাবেক সংসদীয় দলের উপনেতা অধ্যাপক মুজিবুর রহমানসহ সংগঠনটির ১০ নেতাকে আটক করেছে রাজশাহী মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। সোমবার সকালে নগরীর হাতেম খান ছোট মসজিদ এলাকায় অবস্থিত একটি বাসায় একটি ঘরোয়া কর্মসূচি চলাকালে তাদের আটক করা হয়। এ সময় বাসার মালিক জামায়াত নেতা মাওলানা মুজিবর রহমানকেও আটক করা হয়।
আটককৃত অন্য নেতারা হলেন, জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও রাজশাহী মহানগর জামায়াতের আমীর প্রফেসর ড. এম আবুল হাশেম (৭১), জামায়াতের রাজশাহী অঞ্চলের পরিচালক অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম (৬৪), কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও রাজশাহী মহানগর জামায়াতের সেক্রেটারি অধ্যক্ষ সিদ্দিক হোসেন, রাজশাহী জেলা পশ্চিম জামায়াতের আমীর আব্দুল খালেক (৫৫), রাজশাহী পূর্ব জেলা জামায়াতের আমীর রেজাউর রহমান (৭০), চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা জামায়াতের আমীর আবুজার গিফারী, রাজশাহী পূর্ব জেলা জামায়াতের নায়েবে আমীর অধ্যাপক মইনুল হোসেন (৫২) ও জামায়াত নেতা তৈয়ব আলী (২৮)। পুলিশ জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে পুলিশ ওই এলাকায় অভিযান চালায়। পরে জামায়াতের এই ১০ নেতাকে আটক করা হয়। মহানগর ডিবি পুলিশের সহকারি কমিশনার আল-আমিন হোসাইন এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, নগরীর হাতেম খান এলাকার একটি পাঁচতলা বাড়িতে ‘গোপন বৈঠক’ করছিলেন জামায়াতের নেতারা। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ডিবি পুলিশের একটি দল বাড়িটি ঘেরাও করে। পরে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। আল-আমিন হোসাইন জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটক জামায়াত নেতারা জানিয়েছেন, আগামী সিটি নির্বাচনকে ঘিরে তারা দলীয় সভা করছিলেন। তবে সে সভায় অন্য কোনো বিষয়ে আলোচনা চলছিল কি না তা জানতে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

Please follow and like us:
Facebook Comments