ইবি ভিসির উপর হামলার ঘটনায় তিন ডাকাত আটক

ইবি সংবাদদাতা-
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারীর গাড়িতে হামলার ঘটনায় বিল্লাল হোসেন (৩৮) ও দুর্লব হোসেন (৩২) নামে দুই ডাকাতসহ তিন জনকে আটক কেেছ পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে তাদেরকে আটক করা হয়। আটককৃতদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন শৈলকূপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা।
সূত্রমতে, গত ২৫ জানুয়ারী ঢাকা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ফেরার পথে শৈলকুপা থানার বড়দাহ নামক এলাকায় ভোর রাতে ভিসির গাড়িতে হামালা করে ডাকাতরা। এ ঘটনায় ওই দিনই শৈলকুপা থানায় দুটি মামলা করেে প্রশাসন।
মামলা তদন্ত কর্মকর্তা শৈলকূপা থানার সার্কেল এসপি তারেক আল মেহেদীর জানান, ‘ভিসি স্যারের হারানো মোবাইল ফোনের সূত্র ধরেই আমরা তদন্ত কাজ চালাই। ট্র্যাকিং এর মাধ্যমে ফোন ব্যবহারকারী মিজানুর রহমানের লোকেশন সনাক্ত করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, ফোনটি মিজানুর নয়শত টাকার বিনেময়ে একই থানাধীন (আটককৃত ডাকাত সদস্য) দূর্লব-এর থেকে ক্রয় করে। পরে পুলিশ বিল্লাল হোসেন (৩৮) ও দুর্লব হোসেন (৩২) নামে দুই ডাকাতকে আকটক করে। এছাড়াও এঘটনায় আলম হোসেন নামে এক ডাকাত সদস্য পালাতক রয়েছে।
ডাকাতদের তথ্যমতে ঝিনাইদহ বড়দাহ্ মাদ্রাসার পেছন থেকে দুইটি রামদা এবং গাড়াগঞ্জের বড়দাহ্ এলাকায় কালী নদী ব্রিজের বালুর নিচ থেকে আরো তিনটি রামদা, একটি চাপাতি, গাছ কাটার কাজে ব্যবহুত দুইটি হাতল করাত ও রশি উদ্ধার করে পুলিশ।
এছাড়াও গত ‘১৯ফেব্রয়ারী ভোর রাতে একই স্থানে বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাম্বুলেন্সে ডাকাতির ঘটনার দায় স্বীকার করেছেন আটককৃতরা । ডাকাতদের থেকে অ্যাম্বুলেন্স থেকে ছিনতায় হওয়া এক শিক্ষার্থীর মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে।
এ বিষয়ে শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন বলেন, ‘দীর্ঘ দিন চেষ্টা করে তাদেরকে আটক করা হয়েছে। আটককৃদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Please follow and like us:
Facebook Comments