সাতক্ষীরায় ১৪ মাসে ৭৬ বাল্য বিবাহ বন্ধ

নিজস্ব প্রতিনিধি: সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ ও শ্যামনগর উপজেলায় ৭৬ টি বাল্য বিবাহ বন্ধ করা হয়েছে গত এক বছর আড়াই মাস সময়ের ব্যবধানে সাড়ে সাত হাজারেরও বেশি নারীর পরিবারকে খাদ্য নিরাপত্তার আওতায় আনা হয়েছে। তাদের জন্য সৃষ্টি করা হয়েছে আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ ।
বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করে এই তথ্য প্রকাশ করেন নবযাত্রা নামের একটি বেসরকারি সংস্থার কর্মকর্তারা। তারা বলেন তাদের গৃহীত প্রকল্প দক্ষিনাঞ্চলের সাড়ে আট লাখ জনগোষ্ঠীর মধ্যে বাস্তবায়িত হচ্ছে। কৃষি জীবিকায়ন ও আয়বর্ধক কর্মসূচির মাধ্যমে তাদের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হচ্ছে বলেও উল্লেখ করেন তারা।
ওয়ার্লড ফুড প্রোগ্রাম, সুশীলন ও উইনরক নামের তিনটি সংস্থার সমন্বয়ে গঠিত ‘নবযাত্রা’ আরও জানিয়েছে যে পাঁচ বছর মেয়াদি প্রকল্পে দেশের দক্ষিন পশ্চিামাঞ্চলের নারী ও পুরুষের সমতা নিশ্চিতকরনের মাধ্যমে খাদ্য নিরাপত্তা, পুষ্টি ও দুর্যোগসহনশীলতার উন্নতির চেষ্টা চলছে। এ সময় তারা বিভিন্ন কর্মসূচি ও তার সাফল্যও তুলে ধরেন। সুন্দরবন সংলগ্ন উপকূল জুড়ে মনুষ্যসৃষ্ট নানা প্রতিবন্ধকতা ছাড়াও প্রাকৃতিক দুর্যোগের ঝুঁকি রয়েছে। এমন একটি এলাকায় নারী পুরুষের সমতাভিত্তিক উন্নত সমাজ ব্যবস্থা গড়ে তোলার প্রচেষ্টা চলছে বলে জানান তারা।
সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি আবু আহমেদের সভাপতিত্বে ‘জেন্ডার ভিত্তিক নির্যাতনমুক্ত শিক্ষাঙ্গন নিশ্চিতকরন’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি সুভাষ চৌধুরী, মো. আনিসুর রহিম, আবুল কালাম আজাদ, সহ-সভাপতি আব্দুল ওয়াজেদ কচি, যুগ্ম-সম্পাদক গোলাম সরোয়ার, দক্ষিণের মশালের সম্পাদক আশেক-ই-এলাহী, সাংবাদিক এম. জিললুর রহমান, আব্দুস সামাদ, সংস্থাটির কর্মকর্তা মো. আবদুস সাত্তার, মো. আশিক বিল্লাহ, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা নাজমুন্নাহার, লায়লা আঞ্জুমান খানম, মো. আবদুল কাদের, জাকির হোসেন ও মো. হাবিবুর রহমান প্রমুখ। এ সময় তারা এ এলাকায় সুপেয় পানি সংকট, শিক্ষা এবং কৃষিসহ নানা বিষয় নিয়ে কাজ করছেন বলেও জানান।

Please follow and like us:
Facebook Comments