সাতক্ষীরা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে সরকার দলীয় প্রার্থীর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার: সভাপতি পদে তিন জনই বিএনপির

বদিউজ্জামান: জেলা আইনজীবী সমিতির এবারের নির্বাচনে থাকছেন না এড. এম শাহ্ আলম। গত রবিবার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের দিন তিনি সভাপতি পদে দাখিলকৃত তার মনোনয়নপত্রটি প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। নির্বাচন কমিশনার এড. মো. আকতারুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। ফলে বারের এবারের নির্বাচনে সভাপতি পদে বিএনপি দলীয় তিন জন প্রার্থীই প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন।
জানা যায়, আগামী ২৫ মার্চ সাতক্ষীরা জেলা আইনজীবী সমিতির বার্ষিক নির্বাচন। আসন্ন এ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থক কোন প্রার্থী সভাপতি পদে মনোনয়নপত্র দাখিল না করলেও বিএনপি সমর্থিত তিন জন প্রার্থী সভাপতি পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। তাঁরা হলেন, জাতীয়তাবদী আইনজীবী ফোরাম জেলা শাখার সভাপতি এড. মো. আবুল হোসেন, জেলা বিএনপি’র সহ সভাপতি এড. মো. আব্দুল মজিদ ও কালিগজ্ঞ উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি এড. মো. আব্দুস সাত্তার। অপরদিকে বারের বর্তমান সভাপতি এক সময়ের ওয়ার্কার্স পাটির নেতা এড. এম শাহ্ আলম সভাপতি পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। গত রবিবার ছিল মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। ওই দিন অন্য কোন প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার না করলেও একমাত্র প্রার্থী এম শাহ আলম নির্বাচনী মাঠ থেকে নিজেকে গুটিয়ে নেন। এ ব্যাপারে তিনি পত্রদূতকে জানান, ব্যক্তিগত অসুবিধার কারণে তিনি নির্বাচনী মাঠ থেকে নিজের প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। তবে অপর কোন সভাপতি প্রর্থীকে সমর্থন দিচ্ছেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, বারের স্বার্থে যোগ্য প্রার্থীকেই তিনি ভোট দিবেন।
অপরদিকে এবারের নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক পদে কোন প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার না করায় মোট ৪জন প্রার্থী নির্বাচনী মাঠে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। এরা হলেন, জেলা বিএনপি’র সহ-সভাপতি এড. তোজাম্মেল হোসেন তোজাম, আশাশুনি থানা বিএনপি’র সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. মো. মোস্তফা জামান, আওয়ামী লীগ সমর্থক এড. আ ক ম রেজওয়ানউল্ল্যাহ সবুজ ও এড. মোস্তফা আসাদুজ্জামান দিলু।
এদিকে জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে সভাপতি-সম্পাদক পদে বিএনপি দলীয় একাধিক প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করার বিষয়ে জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক মো. তারিকুল হাসান  জানান, কেন্দ্রীয় নেতা সাবেক এমপি মো. হাবিবুল ইসলাম হাবিব, ডা. শহিদুল আলম, কাজী আলাউদ্দীন, জেলা বিএনপি’র সভাপতি রহমতুল্যাহ পলাশসহ সকলের সিদ্ধান্তে এড. আব্দুল মজিদকে সভাপতি পদে সমর্থন দেয়া হয়েছে। তিনি আরও জানান, সাধারণ সম্পাদক পদে এখনো সিদ্ধান্ত চুড়ান্ত হয়নি, তবে আজকের (২০ মার্চ) মধ্যে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে দলীয় কোন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করলে দল কোন ব্যবস্থা নেবেন কিনা-এমন প্রশ্নের জবাবে তারিকুল হাসান জানান, বিষয়টি হাই-কমান্ডকে অবহিত করা হবে, সেখান থেকে যে সিদ্ধান্ত দেয়া হবে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।
অপরদিকে জেলা আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সভাপতি এড. এসএম হায়দার  জানান, নানান জটিলতায় সভাপতি পদে প্রার্থী দিতে না পারলেও সাধারণ সম্পাদক পদে এড. আ ক ম রেজওয়ানউল্যাহ সবুজ আমাদের দলীয় প্রার্থী। তবে আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সাধারণ স¤পাদক ও বারের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক এবং পিপি এড. ওসমান গনি, সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে নির্দিষ্টভাবে কোন প্রার্থীর নাম বলেননি। সভাপতি পদে, বিএনপি দলীয় প্রার্থীকে ভোট দিবেন কিনা-এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, বারের জন্য যিনি ক্ষতিকর নয় বা যিনি মন্দের ভালো তাকেই ভোট দিতে হবে।

Facebook Comments
Please follow and like us: