কুশখালি সীমান্তে বিএসএফ এর হামলায় গরু রাখাল আহত(ভিডিও)

সাতক্ষীরা সংবাদদাতাঃ কুশখালী সীমান্তে ভারতীয় বি এস এফ এর হামলায় এক বাংলাদেশী গরু রাখাল আহত হয়েছে। গরু রাকালের নাম রাজু হোসেন ওরফে পিচ্চিরাজু(২০)। সে সাতক্ষীরা সদরের কুশখালী (ছয়ঘরিয়া) গ্রামের আশরাফুল ইসলামের ছেলে। মারাত্মক জখম অবস্থায় পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। বর্তমানে সে হাসপাদতালের সার্জারী ওয়ার্ডের এক্রটারা ২০ বেডে চিকিৎসাধীন আছে। রবিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা বলেন, রাজু একজন গরু রাখাল। সে প্রতিনিয়ত কুশখালীর হাবিবুল্লাহ, সাদ্দাম, মাদুলী, সোহাগ, কওছারের সাথে ভারতে গরু আনতে যায়। ওই দিন ও তারা গরু আনতে গিয়েছিল। এ সময় ভারতীয় বিএসএফ তাদের উপর হামলা করে। এতে রাজু মারাত্মক আহত হয়। পরে তার সাথে থাকা সহকর্মীরা রাজুকে কোন রকমে বাংলাদেশে নিয়ে আসে।

রাজুর বাবা আশরাফুল ইসলাম বলেন, রবিবার ভোরে কয়েকজন যুবক অজ্ঞান অবস্থায় রাজুকে বাড়িতে আনে এবং  বলে যে ভারতীয় বিএসএফ রাজুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করেছে। এ সময় আমরা দ্রত রাজুকে হাসপাতালে ভর্তি করি।

কুশখালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ইউসুফ আলী ও সাধারণ সম্পাদক তাজুল ইসলাম বলেন, নির্দেশনা আছে গরু আনতে বাংলাদেশী কোন রাখাল ভারতে যাবেনা। কিন্তু কুশখালী খাটাল মালিকের ইন্ধনে এবং বিজিবির সহায়তায় কুশখালী সীমান্ত দিয়ে রাতের আঁধারে প্রতিনিয়ত বাংলাদেশী রাখাল ভারতে প্রবেশ করছে। আমাদের এলাকায় এর আগেও মুকুুল নামের একজন বাংলাদেশী গরু রাখাল মারা যায়। এভাবে বাংলাদেশী রাখাল ভারতে প্রবেশ করলে এমন দূর্ঘটনা ঘটবে এটাতো স্বাভাবিক।

কুশখালী খাটাল মালিক দেব্রতরায় রায় বলেন, আমরা কোন রাখলকে গরু আনার জন্য ভারতে পাটায় না। কেউ যদি নিজ ইচ্ছায় রাতের আঁধারে ভারতে যায় তাতে আমরা কি করতে পারি।

কুশখালী বিজিবি ক্যাম্পের নায়েক সুবেদার আতাহার হোসেন বলেন, রাজুর ব্যাপারে আমরা কিছুই জানিনা। স্থানীয়রা জানানোর পর জেনেছি। এছাড়া আমাদের জানামতে কোন বাংলাদেশী রাখাল ভারতের অভ্যন্তরে গরু আনতে যায় না।

সাতক্ষীরা সদও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মারুফ আহমেদ বলেন, এ ব্যাপারে আমরা কিছ্ইু জানিনা। তবে কেউ অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Facebook Comments
Please follow and like us: