কলারোয়ায় প্রতিপক্ষের হামলায় যুবলীগ কর্মী নিহত

নিজস্ব প্রতিনিধি:সাতক্ষীরার কলারোয়ায় ধানকাটাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের লাঠির আঘাতে মেহেদি হাসান(২১)নামের এক যুবলীগ কর্মী নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার সন্ধায় কলারোয়ার খোর্দ্দ বাটরা এলাকায় এঘটনা ঘটে।সে কলারোয়ার খোর্দ্দ বাটরা গ্রামের কেরামত গাজীর ছেলে।
স্থানীয় বাসিন্দা জিয়াউর রহমান বলেন, মাটে ধান কাটাকে কেন্দ্রকরে দুপক্ষের মধ্যে সকালে এবং দুপুরে খোর্দ্দ বাটরা এলাকার গফফারের ছেলে জাহিদের সাথে হাতাহাতি হয়। এরপর সন্ধায় মেহেদি হাসান বাজার করে বাড়ি ফেরার সময় জাহিদ হোসেন রাস্তায় তার উপর অতর্কিত হামলা চালায়। একপর্যায়ে জাহিদ হোসেনের বাঁশের লাঠির আঘাতে মেহেদি হাসান গুরুতর আহত হয়। স্থানীয়রা উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় ডাক্তারের কাছে ও পরে কলারোয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ শফিকুল ইসলাম তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
নিহতের চাচা মাস্টার হাবিবুর রহমান জানান, ওই গ্রামের গফ্ফার গাজির ছেলে জাহিদ হাসান ও মেহেদী হাসান খোর্দবাটরা মাঠে এক ব্যক্তির জমিতে শ্রমিক হিসেবে কাজ করছিলেন। এ সময় কাজ কমবেশী করাকে কেন্দ্র করে উভয়ের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। এরই জের ধরে সন্ধার দিকে যখন মেহেদী সরসকাটি বাজারে যাচ্ছিল পথিমধ্যে ওই মোড়ে পৌঁছালে পূর্বে থেকে ওৎ পেতে থাকা ওই জাহিদ তাকে বাশেঁর লাটি দিয়ে এলোপাতাড়ী পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে মেহেদীর আত্মচিৎকারে পার্শ্ববর্তী লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে কলারোয়া হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত্যু বলে ঘোষনা করেন। কলারোয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বিপ্লব কুমার নাথ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহভাজন আসামীকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে।

Please follow and like us:
Facebook Comments