‘সাপ্তাহিক ইচ্ছে নদী’পত্রিকাটি বস্তুনিষ্ঠ ও গঠনমূলক খবরাখবর পরিবেশনের মাধ্যমে জাতি গঠনে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে:এমপি রবি

ক্রাইমবার্তারিপোট::  সাতক্ষীরায় ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে ‘বস্তুনিষ্ঠ ও সত্য প্রকাশের প্রত্যয়’ নিয়ে সাপ্তাহিক ইচ্ছেনদী’ রঙিন কলেবরে পথচলা শুরু করেছে। এ উপলক্ষে রবিবার সকালে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে নতুন পত্রিকার প্রকাশনা উৎসবের আয়োজন করা হয়। সাপ্তাহিক ইচ্ছেনদী পত্রিকার সম্পাদক মকসুমুল হাকিম’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে পত্রিকাটির উদ্বোধন করেন সাতক্ষীরা-০২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি। এসময় তিনি বলেন, ‘সাপ্তাহিক ইচ্ছে নদী’পত্রিকাটি বস্তুনিষ্ঠ ও গঠনমূলক খবরাখবর পরিবেশনের মাধ্যমে জাতি গঠনে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে। অসাম্প্রদায়িক চেতনায় বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশেনের মাধ্যমে সাতক্ষীরা জেলার সাধারণ মানুষের দুঃখ-কষ্ট, হাসি-কান্না এবং ঘটনাবলি তুলে ধরবে। তাৎক্ষণিক তথ্য নিয়ে শুভ আবির্ভাব হচ্ছে ‘ইচ্ছেনদী’। শিক্ষা, সংস্কৃতি, সামাজিকতা ও রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে এ জেলা বাংলার বুকে মাইল ফলক হবে। যুগোপযোগী এ পদক্ষেপের শুভ কামনা করি এবং প্রত্যাশা করি এ পদক্ষেপের সুদূর প্রসারি সফলতা। আমি প্রত্যাশা করি সাপ্তাহিক ইচ্ছেনদী-এর কলম সৈনিকেরা জেলার উন্নয়ন-অগ্রগতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে। সাতক্ষীরাসহ গোটা দেশের জন্য এটি একটি আনন্দের সংবাদ যে একটি নতুন সংবাদপত্র বের হয়েছে। সাতক্ষীরার সাংবাদিকতার ইতিহাস দীর্ঘদিনের। এখানে অনেক পত্রিকা রয়েছে। এগুলোর মধ্যে নতুন যাত্রা শুরু করল মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি হয়ে বিচরণ করবে ইচ্ছেনদী। এটি অনন্তকাল ধরে অব্যাহত থাকুক। এই প্রত্যাশা করি। সংবাদপত্রটির যাত্রা শুরুর সময়ে আমি থাকতে পেরে আমি খুব আনন্দিত। তিনি এসময় পত্রিকাটির সাথে জড়িত সাংবাদিকদের পরামর্শ দিয়ে বলেন- সংবাদ পরিবেশনের ক্ষেত্রে সাংবাদিকদের যথেষ্ট সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত। অন্যথায় ভুল সংবাদ পরিবেশনের মানুষ দেশ ও জাতির স্বার্থ ক্ষতিগ্রস্থ হবে। এটি সাতক্ষীরার উন্নয়নে অবদান রাখবে বলে আমি মনে করি। তিনি সর্বস্তরের সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলেন, নীতি ও নৈতিকতা বজায় রেখে সংবাদ পরিবেশন করুন। এতে দেশ ও জাতি উপকৃত হবে। সাংবাদিকদের মুক্তিযুদ্ধ আর স্বাধীনতার প্রশ্নে কোনো আপোস করলে চলবে না। এক্ষেত্রে দেশপ্রেমকেই অগ্রাধিকার দিতে হবে।’

সাপ্তাহিক ইচ্ছেনদী পত্রিকার আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মুনসুর আহমেদ। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুল বারী, জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদিকা জ্যোৎন্সা আরা প্রমুখ।এসময় উপস্থিত ছিলেন দৈনিক দক্ষিণের মশাল পত্রিকার সম্পাদক অধ্যক্ষ আশেক-ই এলাহী, এনটিভির জেলা প্রতিনিধি সুভাষ চৌধুরী, জেলা আওয়ামীলীগের প্রচার দপ্তর সম্পাদক শেখ হারুন উর রশিদ, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম কামরুজ্জামান, শেখ তহিদুর রহমান ডাবলু, হেনরী সরদার, এড. শফিউল ইসলাম খান, জেলা কৃষকলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এস.এম রেজাউল ইসলাম, সাংবাদিক  আব্দুল ওয়াজেদ কচি, মমতাজ আহম্মেদ বাপ্পি, দীলিপ কুমার দে ও আসাদুজ্জান আসাদ প্রমুখ। এসময় প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন। সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মণ¥য় মনির।

Please follow and like us:
Facebook Comments