পাটকেলঘাটায় সুব্রতর জমি দখল করছে প্রতিপক্ষ

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : জীবদ্দশায় তার ঠাকুরদাদা কানাইলাল মন্ডল ছেলে হরেকৃষ্ণ মন্ডল এবং তার ছেলে সুব্রত কুমার মন্ডল (আমি নিজে) প্রত্যেককে সোয়া আট শতক করে জমি দলিল করে দেন। এর পর ঠাকুরদাদার মৃত্যুর পর আমার বাবা (হরেকৃষ্ণ মন্ডল) তার অংশের জমি বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন জনের কাছে বিক্রি করলেও তার ছেলে সুব্রত মন্ডল জমি বিক্রি করেন নি। এই জমিতে সুব্রত দীর্ঘকাল যাবত ভোগ দখলে রয়েছেন।
সোমবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করে একথা বলেন পাটকেলঘাটা থানার লালচন্দ্রপুর গ্রামের হরেকৃষ্ণ মন্ডলের ছেলে সুব্রত কুমার মন্ডল। তিনি বলেন তার বাবার জমি ক্রেতারা এখন তার (সুব্রতর) জমি দখল করছেন। অথচ ওই জমি তো সুব্রত মন্ডলের নামীয়।
সুব্রত মন্ডল বলেন তার বাবার জমির ক্রেতা বিমল বিশ্বাস, সন্তোষ বিশ্বাস, পরিতোষ বিশ্বাস, শান্তনা রানী বিশ্বাস, হোসেন আলি, শেখ রবিউল ইসলাম, মাজেদ শেখ ও আমিনুর শেখ তাদের ক্রয় করা সোয়া আট শতকসহ ১৪৪ দাগের মোট সাড়ে ১৬ শতক জমি দখলের পাঁয়তারা করে। এতে বাধা দিলে তারা মারমুখী হয়ে খুন জখমের হুমকি দেয়। বাধ্য হয়ে সুব্রত সহকারির জজ আদালতে একটি মামলা করেন। আদালত মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত জমিতে স্থিতাবস্থা জারি করেন। এই আদেশের বিরুদ্ধে প্রতিপক্ষ হাইকোর্টে মামলা করে। হাইকোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী চার সপ্তাহের মধ্যে সুব্রত তার জবাবও দেন। অথচ প্রতিপক্ষ আইন আদালতের তোয়াক্কা না করেই গত ৮ মে দলবদ্ধ হয়ে সুব্রতর জমিতে ঘর নির্মান করতে শুরু করে। এতে বাধা দিতে গেলে তারা তাকে খুন জখম করতে আসে। জমির বিষয়ে তাকে সহায়তা করায় তারা পাটকেলঘাটার শেখ রফিউদ্দিনের ছেলে শেখ রবিউল ইসলামকে হত্যার হুমকি দিলে তিনি পাটকেলঘাটা থানায় একটি জিডি করেন।
সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন শেখ হোসেন আলি, কুমিরার শেখ রবিউল, আমিনুর শেখ একাধিক নাশকতার মামলায় জেল খেটেছে। বর্তমানে তাদের অত্যাচারে গ্রামবাসী অতীষ্ঠ হয়ে উঠেছে। তারাই সুব্রত মন্ডলের জমি জবর দখল করছে। সুব্রত মন্ডল এর প্রতিকার দাবি করে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

Please follow and like us:
Facebook Comments