কালের চিত্রের সিনিয়র সাংবাদিক রবিউলকে শ্রমিক লীগ নেতার মারপিট:সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের নিন্দা

‘ছবি তুলছিস ক্যান’ বলেই সাংবাদিককে মারধর
ক্রাইমবার্তা রিপোট:  সাতক্ষীরা :এই ছবি তুলছিস ক্যান’ হুংকার ছেড়েই তিনি ঝাঁপিয়ে পড়লেন একজন সাংবাদিকের ওপর। তাকে কিল চড় ঘুষি মেরে নিজেই কেড়ে নিলেন তার মোবাইল ও ক্যামেরাটি। পরপরই কয়েকজন শ্রমিককে ডেকে সাইফুল করিম সাবু বললেন ‘একে আরও ভালো করে বানান দে’।
শনিবার বেলা ১২ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে শহরের বাস টার্মিনাল এলাকায় । এ সময় বাস মিনিবাস মালিক সমিতির দুই গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা চলছিল। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সেখানে জেলা প্রশাসক প্রতিনিধি এনডিসি এবং পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত হন। এনডিসি চলমান বিরোধের বিষয়টি নিয়ে রোববার জেলা প্রশাসকের সাথে বৈঠকের জন্য দুইপক্ষকে আহবান জানান । এর আগে মালিক সমিতির সভাপতির চেয়ারে খেয়ালখুশী মতো বসে পড়েন শ্রমিক লীগ সভাপতি সাইফুল করিম সাবু। তিনি চেয়ারে বসে নাটকীয় ভঙ্গিতে নানা কথা বলছিলেন। এ অবস্থা প্রত্যক্ষ করেন মালিক সমিতির বর্তমান সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদ। তার সমর্থকরা এর প্রতিবাদ করতে শুরু করেন। অবস্থা বেগতিক দেখে সাইফুল করিম সাবু চেয়ার ছেড়ে উঠে যান। ওই মূহুর্তে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক রবিউল ইসলাম এসব ঘটনার ছবি ধারন করতে থাকেন । এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন সাইফুল করিম সাবু। তিনি নিজ হাতে রবিউল ইসলামকে মারধর করে ধরাশায়ী করেই ক্ষান্ত হননি। তার অনুগত শ্রমিকদের ডেকে বলেন রবিউল ইসলামকে আরও পিটাতে। এতে পুলকিত হয়ে রবিউলের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েন আবু জাহিদ, মো. শাহজাহান, কালু, শওকত, ইব্রাহিম, ছোটবাবু, টাকবাবু, মিলনসহ বেশ কয়েকজন শ্রমিক। তারাও তাকে মারধর করে। পরে সাংবাদিক রবিউল অন্যান্য শ্রমিক ও পুলিশের সহায়তায় রক্ষা পান।
এ বিষয়ে সাইফুল করিম সাবুর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন ‘মেরেছি তো। পারলে নিউজ করে দেন’।
সাবুর এই সন্ত্রাসী আচরনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন সাতক্ষীরার সাংবাদিকরা। তারা এর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনেরও দাবি জানান।

সাংবাদিক রবিউলের ওপর হামলায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের নিন্দা

সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক রবিউল ইসলামের ওপর জেলা শ্রমিক লীগ সভাপতির নিরর্দেশে সন্ত্রাসী হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে প্রেসক্লাব। এক বিবুতিতে তারা বলেন দিবালোকে এ ধরনের নগ্ন হামলা প্রমান করে সমাজের সন্ত্রাসীরা এখনও সাংবাদিকদের টার্গেট করছে। হামলা কারিরা দুপুরে সাংবাদিক রবিউল ইসলাম কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে তার পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে সন্ত্রাসীরা তার উপর আক্সশিক ভাবে হামলা করে মোবাইল ফোন ও তার কেমেরা ছিনিয়ে নেয়। এই ঘটনায় তীব্র নিন্দা ওপ্রতিবাদ জানিয়েছে।

এর আগে দুপুরে সাংবাদিক রবিউল ইসলামের ওপর কোনো কারণ ছাড়াই হামলা করে তার মোবাইল ফোন ও ক্যামেরা ছিনিয়ে নেওয়ার খবর প্রেসক্লাবে পৌছালে সাংবাদিকদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। সাংবাদিকরা এর নিন্দায় ফেটে পড়েন।
সাইফুল করিম সাবু ও তার অনুগত কয়েকজন শ্রমিকের এই হামলার প্রতবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন প্রেসক্লাব সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, সহ সভাপতি আবদুল ওয়াজেদ কচি , সাধারন সম্পাদক আবদুল বারী, যুগ্ম সম্পাদক গোলাম সরোয়ার, অর্থ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন, সাহিত্য ক্রীড়া ও সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক আমেনা বিলকিস ময়না, দফতর সম্পাদক আহসানুর রহমান রাজীব,
বিবৃতিতে তারা বলেন সাতক্ষীরা জেলা বাস মিনিবাস মালিক সমিতির অভ্যন্তরীন দ্বন্দ্বকে কেন্দ্র করে শনিবার সৃষ্ট উত্তেজনাকালে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. রবিউল ইসলাম ক্যামেরায় ঘটনাবলীর ছবি ধারন করছিলেন । এ সময় জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি সাইফুল করিম সাবু তাকে মারধর করে তার ক্যামেরা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেন।
সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে এর প্রতিকার দাবি করেন। অন্যথায় এর বিরুদ্ধে কর্মসূচি ঘোষনা করা হবে বলে উল্লেখ করেন।

 

Facebook Comments
Please follow and like us: