সুন্দরবনে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে কালু বাহিনীর প্রধানসহ নিহত ৩

ক্রাইমবার্তা রিপোটঃ   খুলনা: সুন্দরবনে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে কালু বাহিনীর প্রধান আবু সাইদ ওরফে কালুসহ তিন বনদস্যু নিহত হয়েছে। এ সময় কয়রা থানার ৮ পুলিশ সদস্য আহত হন। বন্দুকযুদ্ধের পর অপহৃত চার জেলেকে উদ্ধার করেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বুধবার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে সুন্দরবনের  ময়দাপেশা এলাকায় এই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে একটি দোনলা বন্দুক, দুটি দেশি পিস্তল ও চার রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

নিহতরা হলো- সুন্দরবনের বনদস্যু কালু বাহিনীর প্রধান খুলনা জেলার কয়রা উপজেলার অর্জুনপুর গ্রামের মৃত শামসুর মোড়লের ছেলে আবু সাইদ ওরফে কালু (৪৭), একই উপজেলার গিলাবাড়ী গ্রামের মৃত দলিল গাজীর ছেলে আকবর আলী (৩৪) ও বাগেরহাট জেলার রামপাল উপজেলার হোগলাডাঙ্গা গ্রামের জব্বার মল্লিকের ছেলে শহিদুল মল্লিক (২৭)।

কয়রা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মোস্তফা হাবিবুল্লাহ জানান, তিন দিন আগে কয়রা উপজেলা সদর এলাকার বীনাপানি ও তেঁতুলতলা গ্রামের বাসিন্দা হাবিবুর ফকির, বাবু, ফরিদুল গাজী ও মজিবুর গাজীকে মুক্তিপণের দাবিতে সুন্দরবন থেকে অপহরণ করে বনদস্যু কালু বাহিনী। মুক্তিপণের দাবিতে অপহৃত জেলেদের নিয়ে কালু বাহিনী সুন্দরবনের ময়দাপেশা এলাকায় অবস্থান করছে এমন খবর পেয়ে কয়রা থানা পুলিশ বুধবার বেলা ১১টার দিকে ময়দাপেশা এলাকায় অভিযান চালায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে বনদস্যুরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে তিন বনদস্যুর লাশ উদ্ধার করা হয়।

ওসি আরো জানান, বন্দুকযুদ্ধে চকয়রা থানার এসআই রাজিউল, আজম, কিশোর, সাইদ, এএসই মোস্তফা, কনস্টেবল কাইয়ুম ও আরিফসহ ৮ পুলিশ সদস্য আহত হন। তাদেরকে কয়রা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

Facebook Comments
Please follow and like us: