সাতক্ষীরায় একব্যক্তিকে আটকের পর গুলি করার হুমকি দিয়ে ৩ লাখ টাকা আদায়ের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি: এক যুবককে গুলি করার হুমকি দিয়ে ৩ লাখ টাকা জোরপূর্বক আদায় করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে সদর উপজেলার পাথরঘাটা গ্রামের বিলের মধ্যে থেকে যুবককে আটক করে সদর থানার এসআই মোমরেজ।
একাটি দায়িত্বশীল সুত্র জানিয়েছে, সদর থানার এসআই মোমরেজ সদর থানায় যোগদান করার পর থেকে ঝাউডাঙ্গা এলাকায় ঘনঘন যাতায়াত করতে থাকে। তার সাথে পরিচয় হয় একাধিক মাদক মামলার আসামি আশরাফুল ও তার স্ত্রী জেসমিন খাতুনের। তাদের বাড়িতে যাতায়াত ও খাওয়া দাওয়া চলে আসছে কয়েক মাস ধরে। তিনি ওই এলাকায় বিভিন্ন মানুষের আটক করার ভয় দেখিয়ে প্রায় কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। তিনি মাদক ব্যবসায়ি আশরাফুল আত্মীয় পরিচয় দিয়ে এলাকায় তার সাথে চলাফেরা করেন।
সদর উপজেলার পাথরঘাটা গ্রামের কয়েক জন জানান, পাথরঘাটা গ্রামের নাশকতা মামলার আসামি আকছেদ আলির ছেলে আমিনুল ইসলামের বিরুদ্ধে কয়েকটি মামলা রয়েছে। তার নামে মামলা থাকায় পালিয়ে পালিয়ে দিন পার করে। মাঠের ভিতরে মাছের ঘেরের টোং ঘরে রাত কাটায়। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে এসআই মোমরেজ ও গ্রাম পুলিশ হেলাল ওই টোং ঘর থেকে শিবির নেতা আমিনুলকে আটক করে। এরপর ওই মাঠের ভিতরে রেখে চলে দরাদারি। তাকে গুলি করার হুমকি দেওয়া হয়। পরে হেলালের মাধ্যামে ৩ লাখ টাকা চুক্তি হয়। রাতের ভিতরে টাকা দিলে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। আমিনুরের এক ভাই আমেরিকায় থাকে। আমিনুর সকল মামলায় জামনি থাকার পরও তাকে আটক করে বিপুল পরিমান টাকা আদায় করায় এলাকায় তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। একই সাথে এলাকার সাধারণ মানুষের মুখে মুখে এঘটনা রটে যায়। এরআগে তাকে এসআই মোমরেজ আটক করে মোটা অংকের টাকা নিয়েছিলেন। এ ছাড়া তার বিরুদ্ধে মাদক ও নাশকতা মামলার আসামিদের নিকট থেকে টাকা আদায়ের একাধিক অভিযোগ রয়েছে। টাকা নিয়ে তিনি ছুটিতে চলে যান বাড়িতে। এব্যাপারে এসআই মোমরেজের সাথে সেল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।/patradoot.net

Please follow and like us:
Facebook Comments