জাপানে হামলার দায়ে ৭ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর

ক্রাইমবার্তা রিপোট  ১৯৯৫ সালে জাপানের সাবওয়েতে সারিন গ্যাস হামলার দায়ে শুক্রবার একটি ধর্মীয় গোষ্ঠীর নেতাসহ সাতজনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছে জাপান৷ ওই হামলায় ১৩ জন নিহত ও প্রায় ৬ হাজার মানুষ আহত হয়েছিলেন৷

‘আউম শিনরিকিয়ো’ নামের ওই ধর্মীয় গোষ্ঠীর নেতার নাম শোকো আসাহারা৷ আংশিকভাবে অন্ধ আসাহারা যোগব্যয়ামের শিক্ষক ছিলেন৷ বৌদ্ধ ও হিন্দু ধর্মের কিছু বিশ্বাসের সঙ্গে মহাকালের শিক্ষা মিশিয়ে তিনি এক ধরনের ধর্মবিশ্বাস প্রচার করতেন৷ জাপানের উল্লেখযোগ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ অনেকেই আউম শিনরিকিয়োর সদস্য ছিলেন৷

১৯৯৫ সালের মার্চ মাসে টোকিওর সাবওয়েতে সারিন গ্যাস হামলা হয়েছিল৷ আউম শিনরিকিয়োর সদস্যরা পলিথিন ব্যাগে সারিন ভরে সাবওয়ের বগিতে ফেলে রেখেছিলেন৷ পরে ছাতা দিয়ে ফুটো করে পালিয়ে যায় তারা৷ এই হামলায় ১৩ জন নিহত হন৷ আহত হন কমপক্ষে ৫ হাজার ৮০০ জন৷

এই হামলা চালানোর দায়ে শুক্রবার সকালে প্রথমে আসাহারার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়৷ এরপর একে একে বাকিদেরও ঝোলানো হয়৷ বিভিন্ন জেলখানায় তাদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয় বলে রয়টার্স, এপির বরাদ দিয়ে এ খবর দিয়েছে জার্মান ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডয়েচে ভেলে৷

জাপানে সাধারণত মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের পর সেই খবর প্রকাশ করা হয়৷ দেশটির বিচারমন্ত্রী ইয়োকো কামিকাওয়া আজ এক সংবাদ সম্মেলনে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়া ৭ জনের নাম পড়ে শোনান৷ এ সময় তারা ‘খুবই নৃশংস’ কাজ করেছে বলে মন্তব্য করেন বিচারমন্ত্রী৷

Please follow and like us:
Facebook Comments