কলারোয়ায় নাশকতার অভিযোগে বিএনপি-জামাতের ৩২ জনের নামে মামলা

ক্রাইমবার্তা রিপোট: মনি: কলারোয়ায় নাশকতা পরিকল্পনা ও পুলিশের উপর হামলার অভিযোগে ৭ জন বিএনপি-জামাত নেতা-কর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। রবিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার লাঙ্গলঝাড়া সম্বলিত মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠ থেকে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়। এসময় ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ বিস্ফোরিত ককটেলের অংশ, জালের কাঠি, কাচের চুকরা ও কয়েকটি লাঠি উদ্ধার করেছে। এঘটনায় রবিবার গভীর রাতে ৩২ জন বিএনপি-জামাত নেতা-কর্মির নাম উল্লেখ করে আরো অজ্ঞাত ৩৫/৪০জনকে আসামী করে কলারোয়া থানায় মামলা দায়ের করেছে।
গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, উপজেলার সোনাবাড়ীয়া গ্রামের মৃত মোন্তাজ সরদারের ছেলে ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুল হামিদ সরদার (৬১), ব্রজববসা গ্রামের মৃত, হোসেন আলী গাজীর ছেলে ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম (৫৯), বোয়ালিয়া গ্রামের নেছার আরী গাজীর ছেলে ইউনিয়ন যুবদলের সভাপতি জিয়াউল ইসলাম (৩৭), পৌরসদরের ঝিকরা গ্রামের মৃত খোদাবক্্েরর ছেলে বিএনপি নেতা সহিদুল ইসলাম (৬৩), জালালাবাদ গ্রামের মৃত ওমর আলীর ছেলে ওয়ার্ড যুবদলের সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম (২৬), ওফাপুর গ্রামের শহিদুল ইসলাম সরদারের ছেলে ইউনিয়ন শিবিরের সভাপতি জাহিদ হোসেন (১৯) ও ছলিমপুর গ্রামের জিয়াদ গাজীর ছেলে শিবির কর্মি মো. সাগর (২২)।
সোমবার সকালে কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মারুফ আহম্মেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন বিএনপি ও জামাতের একদল নেতা-কর্মি নাশকতা পরিকল্পনা করার জন্য উপজেলার লাঙ্গলঝাড়া সম্বলিত মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠে গোপন বৈঠক করছে। তিনি বলেন, এমন অভিযোগ পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছালে তারা পুলিশের উপর ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে গ্রামের মধ্যে দিয়ে পালিয়ে যায়। এসময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে সাত জন বিএনপি-জামাতের নেতাকর্মিকে আটক করতে সক্ষম হয়। তিনি বলেন, এঘটনায় ৩২জন বিএনপি-জামাত নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ ও আরো ৪০/৪৫জনকে অজ্ঞাত আসামী করে কলারোয়া থানায় একটি মামলা (নং-৪) দায়ের করা হয়েছে। আসামীদের গ্রেপ্তারের জন্য উপজেলাব্যাপী পুলিশের অভিযান চলছে। এদিকে সোমবার দুপুরে গ্রেপ্তারকৃত আসামীদের আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

Facebook Comments
Please follow and like us: