তালা মৎস অফিসার নির্মল ঘোষের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

আকবর হোসেন,তালা: তালায় ১২ আগষ্ট মৎস অধিদপ্তরের রাজস্ব খাতের আওতায় মাছের পোনা অবমুক্ত করণে ভারপ্রাপ্ত মৎস অফিসার নির্মল কুমার ঘোষের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে ।
রুই,কাতলা.মৃগেল দেওয়ার কথা থাকলেও বেশীর ভাগ মৃগের এবং সিলভার কার্প মাছ দেওয়া হচ্ছে । হাতুড়ে পাল্লায় মাপা হচ্ছে মাছ । মৎস অফিসের কর্তারা যেখানে বাজারে এনালক মেশিনে বিক্রির জন্য মোবাইল কোট করে সাজা দেন । সেখানে মৎস কর্মকর্তা হাতুড়ে পাল্লায় মাপছেন মাছ । দাড়ী পাল্লায় রয়েছে ২শ গ্রাম পাষান (কম) । পুকুরে পানির ভিতর হতে মাছ মাপার ফলে প্রতি কেজিতে ১শ গ্রামের বেশী কম হওয়ার অভিযোগ উঠেছে । নিজেদের লাভের স্বার্থে রক্ষক হয়ে ভক্ষকের ভুমিকায় মৎস অফিসার ।
সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়,জেলেরা পুকুরে জাল দিয়ে মাছ ধরছে । মাছের বেশীর ভাগ মৃগেও এবং সিলভার । যেখানে রুই মাছ ৪০%,কাতলা ৩০% এবং মৃগেল ৩০% দেওয়ার কথা । সেখানে বেশীরভাগ মৃগেল এবং সিলভার । ভারপ্রাপ্ত মৎস অফিসার নির্মল কুমার ঘোষকে জানালে তিনি কোন পদক্ষেপ গ্রহন করেননী । মৎস অফিসার নিজে দাড়িয়ে থেকে জেলেদেরকে পুকুরের ভিতরে পানির মধ্যে থেকে হাতুড়ে পাল্লায় মাছ মেপে দিতে আদেশ দিচ্ছেন । পানি সহকারে মাছ মাপার ফলে প্রতি কেজিতে প্রায় ১শত গ্রামের বেশী মাছ কম হচ্ছে বলে মাছ গ্রহনকারীরা অভিযোগ করেছে । নাম না বলা শর্তে কয়েকজন মাছ গ্রহনকারী ব্যক্তি বলেন,বাজারে ব্যবসায়ীয়া ডিজিটাল পাল্লায় না মাপলে জরিমানা করেন মৎস অফিসার । অতচ তিনি হাতুড়ে পাল্লায় মাপছেন । তার তার জরিমানা কে করবে । তিনি কম দেওয়ার উদ্দেশে এটা করছেন বলে অভিযোগ করেছেন অনেকেই । জানা যায়, মৎস অফিসার প্রতিকেজি রই,কাতলা এবং মৃগেলের পোনা গড়ে ২২০ টাকা দামে ক্রয় দেখানে হয়েছে । কিন্ত সিলভার মাছের প্রতি কেজি ৬০শত টাকার কম । এ টাকা কার পকেটে যাবে । মাছ অবমুক্ত করনের সময় উপস্থিত ছিলেন,উপজেলা চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার,মহিলা ভাইচ চেয়ারম্যান জেবুন্নেছা খানম,সাতক্ষীরা জেলা সদর সিনিয়র মৎস কর্মকর্তা মো: রাশেদুল হক প্রমুখ । ১২টি জলাশয়ে ২দিনে মোট ৪৫৫ কেজি মাছের পোনা বিতরন করা হবে । ১২ আগষ্ট ৩২৭. কেজি এবং ১৩ আগষ্ট ১২৭.৫ কেজি ।
এ বিষয়ে,ভারপ্রাপ্ত মৎস কর্মকর্তা নির্মল কুমার ঘোষকে জিঞ্জাসা করলে তিনি সত্যতা স্বীকার করে বলেন,কিছু সিলভার মাছ আছে দেওয়ার সময় বেছে দিবো। এনালক(হাতুড়ে পাল্লায় কেন মাপা হচ্ছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন পুকুরে পানিতে মাছ না মাপলে মাছ মারা যেতে পারে । যারা গ্রামে গ্রামে সারাদিন হাড়ির ভিতর নিয়ে মাছ ফেরী করে বিক্রি করে তারা কিভাবে করে । এ প্রশ্নের জবাবে তিনি কোন উত্তর দিতে পারেন নী ।
মো: আকবর হোসেন

Facebook Comments
Please follow and like us: