জানুয়ারি ১৩, ২০১৯
বৈচিত্রময় হয়ে উঠছে রূপসী দেবহাটা ম্যানগ্রোভ

ক্রাইমবার্তা রিপোটঃ  শাওন :: সাতক্ষীরার ইছামতি নদীর সীমান্তে গড়ে ওঠা নয়নাভিরাম ম্যানগ্রোভ বনটি ধীরে ধীরে রূপসী দেবহাটা ম্যানগ্রোভ পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে সাতক্ষীরাবাসীর কাছে জনপ্রিয় হয়ে ওঠার পাশাপাশি ইতিমধ্যেই জেলার বাইরেও পরিচিতি লাভ করতে শুরু করেছে। মাত্র কয়েক বছরেই গড়ে ওঠা বনটি নদী ভাঙ্গন রোধ করে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার সাথে সাথে বিনোদনের খোরাক জোগাতে শুরু করেছে।

দুই বাংলার আন্তর্জাতিক সীমানা নির্ধারনী ইছামতি নদীর ভাঙন রোধকল্পের প্রাথমিক পদক্ষেপ হিসেবে তৎকালীন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আ ন ম তরিকুল ইসলামের উদ্যোগে দেবহাটার সীমান্তবর্তী শিবনগর এলাকায় ইছামতির তীর ঘেষে লবনাক্ততা সহনশীল বিভিন্ন প্রজাতির ফলজ, বনজ ও ঔষধি গাছের সারিবদ্ধ কয়েক হাজার চারা রোপনের মাধ্যমে সুন্দরবনের আদলে সৃষ্টি করা হয় রূপসী দেবহাটা ম্যানগ্রোভ পর্যটন কেন্দ্রটি।

০৭ একর আয়তনের একটি সুন্দর লেকসহ ম্যানগ্রোভ পর্যটন কেন্দ্রটির মোট আয়তন ৩১.৪৬ একর । মাত্র কয়েক বছরের মধ্যেই রোপনকৃত এসব কেওড়া, গোলপাতা, গেওয়া, গরানসহ অন্যান্য বনজ, ফলজ ও ঔষধি গাছের চারা গুলি আয়তনে এবং উচ্চতায় বৃদ্ধি হয়ে প্রাকৃতিক সৃষ্ট বনাঞ্চলের মতো রুপ নিলে মানুষের চিত্ত বিনোদনের অন্যতম স্থান হিসেবে গড়ে তুলতে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসন ও দেবহাটা উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সুন্দরবনের আদলে গড়ে তোলা রূপসী ম্যানেগ্রাভ পর্যটন কেন্দ্রটি বর্তমান নির্বাহী অফিসার হাফিজ-আল-আসাদের সু-ব্যবস্থাপনায় উদ্বোধন করেন সাতক্ষীরার সাবেক জেলা প্রশাসক ড. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার।

বাংলাদেশের ঐতিহ্য ও বিশ্বপর্যটকদের অন্যতম আকর্ষনীয় ম্যানগ্রোভ বন সুন্দরবনের বিভিন্ন প্রজাতির গাছ নিয়ে এসে তৈরী করা হয়েছে রূপসী দেবহাটা ম্যানগ্রোভ পর্যটন কেন্দ্রটি। বর্তমানে বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা ভ্রমন পিপাসু পর্যটকদের পদচারনায় মুখরিত হয়ে উঠেছে রূপসী দেবহাটা ম্যানগ্রোভ পর্যটক কেন্দ্র। শুধু পর্যটকদের পদচারনায় নয়, সন্ধ্যা আগত হওয়ার সাথে সাথেই বিভিন্ন প্রজাতির পাখির সুমধুর কলরবেও মুখরিত হয়ে ওঠে পর্যটন কেন্দ্রটি।

বর্তমানে দেশীয় বিভিন্ন প্রজাতির পাশাপাশি এখানে আসছে কয়েক প্রকারের অতিথি পাখি। দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাফিজ-আল-আসাদের উন্নয়ন পরিকল্পনায় রোপন করা হয়েছে আরো বেশ কিছু প্রজাতির জাতের গাছের চারা, নির্মান করা হয়েছে মূল প্রবেশের গেট, পর্যটকদের ভ্রমনের ট্রেইল, আধুনিকায়ন করা হয়েছে লেক ও রেস্ট হাউজ।

শিশুদের বিনোদনের জন্য স্থাপন করা হয়েছে দোলানা, স্লিপিং ট্রেইল ও বিভিন্ন প্রকারের কৃত্রিম জীবযন্তু। দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাফিজ-আল-আসাদ যোগদানের পর থেকে তারই গৃহীত বিভিন্ন উন্নয়নমূখী পদক্ষেপে বর্তমানে বদলে যাচ্ছে ম্যানগ্রোভ বনের দৃশ্য।

বিনোদন কেন্দ্রটিকে আরো নান্দনিক ও নয়নাভিরাম সৌন্দর্যমন্ডিত বিনোদন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলার জন্য যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে রাস্তা নির্মানের কাজ প্রায় শেষের পথে। নির্মান করা হয়েছে চলাচলের ট্রেইল ও রন্ধনশালা, লেকটিতে দেয়া হয়েছে প্যাডেল বোর্ড,পর্যটকদের বসার জন্য পাকা বেঞ্চ ও বিশ্রামস্থল নির্মাণ, বিভিন্ন কৃত্রিম পশুপাখি ও জীবযন্তু স্থাপন সহ ছোটদের জন্য উপযোগী খেলাধুলার ব্যবস্থা।

এছাড়াও উপজেলা সদর থেকে রুপসী ম্যানগ্রোভ পর্যন্ত বরাদ্দ হয়েছে পিচের কার্পেটিং রাস্তা নির্মান প্রকল্পের কাজ। শীতের শুরু থেকেই রূপসী দেবহাটা ম্যানগ্রোভ পর্যটন কেন্দ্রে ভিড় জমাতে শুরু করেছে জেলা ও জেলার বাইরে থেকে আসা ভ্রমন পিপাসুরা।

শনিবার সরেজমিনে দেখা যায় যে, প্রায় সহ¯্রাধীক পর্যটক ও বিনোদন প্রেমীরা পিকনিকে ভিড় জমিয়েছে রুপসী দেবহাটা ম্যানগ্রোভ পর্যটন কেন্দ্রে। দর্শনার্থীদের পদচারনায় এসময় মুখরিত হয়ে ওঠে স্থানটি।

দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাফিজ-আল আসাদ-জানান, রূপসী দেবহাটা ম্যানগ্রোভ পর্যটন কেন্দ্রটি আরো আকর্ষনীয় ও সাতক্ষীরার অন্যতম বিনোদনের স্থান হিসেবে গড়ে তোলার জন্য সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের সার্বিক সহযোগীতায় পর্যায়ক্রমে অভূতপূর্ব উন্নয়নমূখী পদক্ষেপ ও পরিকল্পনা গ্রহন করছে উপজেলা প্রশাসন।

এখানে আসা পর্যটকদের থাকার ব্যবস্থা হিসেবে একটি গেষ্ট হাউজ নির্মানের পরিকল্পনা রয়েছে। তাছাড়া দর্শনার্থী ও পর্যটকদের প্রয়োজনীয় যাবতীয় ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে উপজেলা প্রশাসন বদ্ধ পরিকর বলেও জানান তিনি।

Facebook Comments
Please follow and like us:
একই রকম সংবাদ


Thia is area 1

this is area2