বিরাজনীতিকরণের প্রক্রিয়া শুরু করেছে সরকার : মির্জা ফখরুল

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেছেন, সরকার দেশে বিরাজনীতিকরণের প্রক্রিয়া শুরু করেছে। তিনি বলেন, আমাদের দলের চেয়ারপারসন ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান, শীর্ষ নেতৃবৃন্দসহ সর্বস্তরের নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে সরকার ষড়যন্ত্রমূলকভাবে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছে, কারাগারে আটক করে রাখছে এবং স্বাভাবিক রাজনৈতিক যে কার্য্ক্রম তা থেকে তাদেরকে বিরত রাখা হচ্ছে।
আজ বুধবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন মামলায় তারেক রহমানের জামিন বাতিলে প্রসঙ্গে বিএনপির মহাসচিব এই অভিযোগ করেন।
তিনি বলেন, আমরা মনে করি, সামগ্রিক যে নীল নকশা, বাংলাদেশে বিরাজনীতিকরণের প্রক্রিয়া শুরু করে রাজনীতিবিদদেরকে রাজনীতি থেকে সরিয়ে দেয়ার যে নীলনকশা, সেটাকে বাস্তবায়িত করার জন্য এটা করা হচ্ছে। তারেক রহমানের বিরুদ্ধেও ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা দিয়ে তাকে দূরে রাখা চক্রান্ত করছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। একইসঙ্গে তারেক রহমানে বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিও জানান বিএনপি মহাসচিব।
উল্লেখ্য, বিগত জরুরি অবস্থার সময় বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে দায়ের করা চাঁদাবাজির তিন মামলার স্থগিতাদেশ তুলে নিয়ে জামিন বাতিল করে তাকে এক মাসের মধ্য যে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করতে মঙ্গলবার নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট। খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমানের কর ফাঁকির দুই মামালার স্থগিতাদেশও আদালত তুলে নিয়েছে। ফলে পরোয়ানা মাথায় নিয়ে গত আট বছর ধরে লন্ডনে অবস্থানরত তারেকের বিরুদ্ধে এই পাঁচ মামলার বিচার চালিয়ে যেতে আর কোনো আইনি বাধা থাকল না।
রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের শুনানি করে বিচারপতি কাজী রেজাউল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহর হাই কোর্ট বেঞ্চ মঙ্গলবার এই আদেশ দেয়।
নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলন হয়। মহান বিজয় দিবস ও বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে কর্মসূচি ঠিক করতে দলের যৌথ সভা শেষে এই সংবাদ সম্মেলন হয়।
এসময়বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, ব্যারিস্টার কায়সার কামাল, অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Facebook Comments
Please follow and like us: