জুন ২১, ২০১৭
পাইকগাছা হাসপাতালের ডাঃ সঞ্জয় মন্ডলের অসৌজন্যমূলক আচরণে প্রশাসন ও জনগণ অতিষ্ট : তোপের মুখে পলায়ন

ক্রাইমবার্তা রিপোট:পাইকগাছা প্রতিনিধি ॥পাইকগাছা উপজেলা হাসপাতালের চিকিৎসক সঞ্জয় মন্ডলের অসৌজন্যমূলক আচরণে প্রশাসন থেকে শুরু করে জনগণ অতিষ্ট। এ ব্যাপারে উপজেলা আইনশৃংখলা সভায় অভিযোগ উঠলে আরো বেপরোয়া হয়ে উঠেছে সঞ্জয়। জনতার রোসানলে ডাক্তারের পলায়ন। পাইকগাছায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে এলাকাবাসী। 18
সরেজমিনে জানা যায়, পাইকগাছা উপজেলার ৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালের কর্মরত চিকিৎসক সঞ্জয় মন্ডল যোগদান করার পর থেকে রোগীদের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করে আসছে। এমনকি পুলিশ ও কোস্টগার্ড হত্যা, ডাকাত, জলদস্যু, বনদস্যুদের ধরতে যেয়ে উভয়ে আহত হলে হাসপাতালে আসলে তাদের সাথেও অসৌজন্যমূলক আচরণ করে থাকে। চিকিৎসক সঞ্জয় মন্ডলের এ আচরণের জন্য গত ৮ জুন উপজেলা আইনশৃংখলা সভায় উত্থাপন হয়। বুধবার সকালে পাইকগাছা থানার কনষ্টেবল (ড্রাইভার) কং- ১৫৮৫ মোঃ বাপ্পি শারীরিক অসুস্থ হয়ে পোশাক পরা কনষ্টেবল শামীম ও তার স্ত্রীকে নিয়ে সকালে হাসপাতালে কর্তব্যরত ডাঃ সঞ্জয়ের রুমে যান। তার রুমে গেলেই পুলিশের পোশাক পরা দেখেই তেলে বেগুনে জ্বলে উঠে বলেন, একজন বিসিএস ক্যাডারের রুমে কার অনুমতিতে ঢোকা হয়েছে। তিরস্কার করে বের করে দেন। বিষয়টি হাসপাতালে আগত রোগীরা দেখে হতভম্ব হয়ে থানার ওসি আমিনুল ইসলাম বিপ্লবকে জানালে ওসি পাইকগাছার কর্মরত সাংবাদিকদের নিয়ে ঘটনাস্থলে গেলে জনতার ঢল নামে। এক পর্যায়ে জনতার চাপের মুখে তার রুম থেকে পালিয়ে স্বাস্থ্য ও প.প. কর্মকর্তা ডাঃ প্রভাত কুমার দাশের রুমে অবস্থান নেন। এক পর্যায়ে ওসি আমিনুল ইসলাম উত্তেজিত জনতাকে শান্ত করেন। স্বাস্থ্য ও প.প. কর্মকর্তা প্রভাত কুমার দাশ জানান, বিষয়টি মোবাইলে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। ডাঃ সঞ্জয় মন্ডলের কাছে মোবাইলে জানতে চাইলে তিনি বিষয়টির কোন মন্তব্য না করে তার সঙ্গে দেখা করতে বলেন। থানার ওসি আমিনুল ইসলাম উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন এবং তিনি আরো বলেন, ডাঃ সঞ্জয়ের বাড়ী উপজেলার সন্ত্রাস কবলিত কুমখালী গ্রামে। সেখানে ইতিপূর্বে জলদস্যু, বনদস্যুদের সাথে কোস্টগার্ডের ও পুলিশের সাথে বন্দুক যুদ্ধে একজন নিহত হলেও প্রশাসনের লোকজন আহত হয়। এ বিষয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসলে ডাক্তার অসৌজন্যমূলক আচরণ করে। সে জলদস্যু, বনদস্যুদের সহযোগী হতে পারে বলে পুলিশের ধারণা। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পাইকগাছাবাসী একজন ডাক্তারের এহেন অপরাধের শাস্তির দাবী জানিয়েছে। এব্যাপারে এলাকায় টান টান উত্তেজনা বিরাজ করছে।

 

Facebook Comments
Please follow and like us:
একই রকম সংবাদ


সম্পাদক ও প্রকাশক ----- ------ মো: আবু শোয়েব এবেল ....... ...মোবাইল: ০১৭১৫-১৪৪৮৮৪ ------------------------- -

ইউনাইর্টেড প্রির্ন্টাস,হোল্ডিং নং-০, দোকান নং-০, শহীদ নাজমুল সরণী,সাতক্ষীরা অফিস যোগাযোগ ০১৭১২৩৩৩২৯৯ e-mail: crimebarta@gmail.com