জুন ৩০, ২০১৭
সমকামীরা বিয়ের বৈধতা পেল

ক্রাইমবার্তা বিনোদন ডেস্ক:জার্মানিতে বিয়ের বৈধতা পেয়েছেন সমকামীরা। জার্মান পার্লামেন্টে সমকামীদের বিয়ের বৈধতার আইন পাস হয়েছে। শুক্রবার জার্মান পার্লামেন্টে সমকামীদের বিয়ের বৈধতার আইনটির পক্ষে ৩৯৩ জন সাংসদ ও বিপক্ষে ২২৬ জন সাংসদ ভোট দেন।

ইউরোপ তথা জার্মানিতে সমকামীরা দীর্ঘদিন ধরে নিজেদের মধ্যে বিয়ের জন্য আন্দোলন করছেন। এটি রংধনু আন্দোলন নামে পরিচিত।

বার্লিনে জার্মান পার্লামেন্টে ক্ষমতাসীন জোটের শরিক সোশ্যাল ডেমোক্র্যাট দল, বিরোধী দি লিংকে বা বাম দল এবং পরিবেশবাদী সবুজ দল দীর্ঘদিন আলোচনা শেষে সমকামীদের বিয়ের বিষয়টি পার্লামেন্টে আইন আকারে বৈধতা দেওয়ার প্রস্তাব দেন।

জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা ম্যারকেলের ক্ষমতাসীন খ্রিষ্টান ডেমোক্র্যাট দল প্রস্তাবটির পক্ষে ছিলেন না। তবে সমকামীদের বিয়েতে বৈধতা দিতে তাঁরা বাধা হয়ে দাঁড়াননি। জার্মানির ক্ষমতাসীন জোটের ছোট শরিক দল ব্যাভেরিয়া রাজ্যের খ্রিষ্টান সোশ্যাল ইউনিয়নই কেবল এই বৈধতার বিপক্ষে ছিলেন।

জার্মানিতে নাৎসি হিটলারের শাসনামলে ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ চলাকালীন সমকামীদের গ্রেপ্তার করে নির্যাতন করা হতো। অনেককেই পাঠানো হতো বন্দীশিবিরে। কয়েক দশক আগেও জার্মানিতে সমকামীদের কার্যকলাপকে দুর্বৃত্তায়ন ও দণ্ডযোগ্য অপরাধ বলে বিবেচিত করা হতো।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের বাজেট ও মানব বিষয়ক কমিশনার ও জার্মানির খ্রিষ্টান ডেমোক্র্যাট দলের নেতা গুন্টার ওটিঙ্গার জানান, এখনকার সমাজব্যবস্থায় সমকামীদের বিষয়টি অনেকটাই স্বীকৃত। তা ছাড়া সম লিঙ্গের দুটি নর বা নারী যদি একসঙ্গে বসবাস করতে চান ও দম্পতির সম্পর্ক গড়তে চান সেখানে আইনি স্বীকৃতির বিষয়টি সমাজের জন্য আরও সুফল বয়ে আনবে। জার্মান পার্লামেন্টের স্পিকার নবার্ট লেমার্ট বলেন, আইনটি সংসদের সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্যদের ভোটে গৃহীত হয়েছে। এটি আমাদের সমাজে দীর্ঘদিনের আবেগপূর্ণ আলোচনার অবসান ঘটাল।

বিয়ের বৈধতা জার্মানির পার্লামেন্টে পাস হওয়া পর বার্লিনে আনন্দমিছিল করেছেন সমকামীরা। এটি রংধনু আন্দোলনের বিজয় বলে ভাবছেন তাঁরা।

 

Facebook Comments
Please follow and like us:
একই রকম সংবাদ


সম্পাদক ও প্রকাশক ----- ------ মো: আবু শোয়েব এবেল ....... ...মোবাইল: ০১৭১৫-১৪৪৮৮৪ ------------------------- -

ইউনাইর্টেড প্রির্ন্টাস,হোল্ডিং নং-০, দোকান নং-০, শহীদ নাজমুল সরণী,সাতক্ষীরা অফিস যোগাযোগ ০১৭১২৩৩৩২৯৯ e-mail: crimebarta@gmail.com