মায়ের আহাজারি ‘আগে জানলে বাবারে জঙ্গির বাসায় কামে দিতাম না’

‘আমার বাবায় জঙ্গি নয়, আগে জানলে বাবারে জঙ্গির বাসায় কামে আইতে দিতাম না। বাবায় বিয়ে করছে মাত্র কয় মাস হয়।’

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর মিরপুরের দারুস সালাম এলাকায় ‘জঙ্গি আস্তানা’র সামনে দাঁড়িয়ে এভাবেই প্রলাপ করছিলেন নূরজাহান বেগম।

মঙ্গলবার রাতে দারুস সালাম এলাকায় ‘জঙ্গি আস্তানা’য় বিস্ফোরণে ‘নিহত হন জঙ্গি’ আবদুল্লাহর কর্মচারী কামাল হোসেন (২২)। নূরজাহান বেগম নিজেকে কামালের মা বলে পরিচয় দেন। তাঁর গ্রামের বাড়ি ভোলা জেলায়।

যদিও পুলিশ বলছে, সেখানে কারা কারা নিহত হয়েছেন, তা এখনি বলা সম্ভব নয়। কারণ, পোড়া দেহ এতটাই বিকৃত যে, সেগুলো ডিএনএ টেস্ট ও ময়নাতদন্ত ছাড়া নিশ্চিত করা সম্ভব নয়।

টেলিভিশনে অভিযানের ঘটনার খবর জানতে পেরে গতকাল বুধবার রাতে ভোলা থেকে ঢাকার পথে রওনা দেন কামাল হোসেনের মা নূরজাহান বেগম ও বাবা আবদুল মালেক।

‘জঙ্গি আস্তানার’ সামনে দাঁড়িয়ে কাঁদতে কাঁদতে নূরজাহান বেগম জানান, তাঁর পাঁচ সন্তানের মধ্যে কামাল দ্বিতীয়। গত বছরের নভেম্বরে বিয়ে করেছেন তিনি। বউ গ্রামের বাড়িতে থাকেন। আর কামাল হোসেন মিরপুরে ‘জঙ্গি’ আবদুল্লাহর বাড়িতে কবুতর দেখাশোনার কাজ করতেন। থাকা-খাওয়া বাদে প্রতি মাসে তাঁকে ছয় হাজার টাকা মাইনে দেওয়া হতো। এবার ঈদে বাড়ি যাননি কামাল। ঈদের পর বাড়ি যাওয়ার কথা ছিল। ঈদের দিন ও ঈদের পরের দিন মায়ের সঙ্গে কথা হয়েছে কামালের।

এ সময় কামালের বাবা আবদুল মালেক বলেন, ‘আমার পোলা কাজ করতে আইস্যা মারা গেল।’ এরপর কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি।

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার এলেঙ্গার মসন্দি এলাকার একটি বাড়ি থেকে গত সোমবার রাতে জঙ্গি সন্দেহে দুই ভাইকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব। তাদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতেই ‘ফলোআপ’ হিসেবে মিরপুরে ‘কমলপ্রভা’ নামের বাড়িতে অভিযান চালায় র‍্যাব। বাড়িটির মালিক টিঅ্যান্ডটির কর্মকর্তা মোহাম্মদ আজাদ।

গত মঙ্গলবার দিনভর আবদুল্লাহকে আত্মসমর্পণের আহ্বান জানানো হয়। দুপুরে ‘জঙ্গি’ আবদুল্লাহর বোন মেহেরুন্নেসা বাড়ি থেকে বেরিয়ে এসে র‍্যাবের কাছে আত্মসমর্পণ করেন। তাঁকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করে র‍্যাব। এ সময় ওই বাড়ির ২৩টি ফ্ল্যাট থেকে ৬৫ বাসিন্দাকে সরিয়ে নেওয়া হয়। ‘জঙ্গি’ আবদুল্লাহ আত্মসমর্পণে রাজিও হন।

পরে রাতে র‍্যাবের গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কর্মকর্তা মুফতি মাহমুদ সাংবাদিকদের জানান, ‘জঙ্গিরা আত্মসমর্পণ না করে নিজেরাই ওই ভবনে বোমা বিস্ফোরণ ঘটায়। এতে চার র‍্যাব সদস্য আহত হন।’

বুধবার দুপুরে ওই ভবনের একটি কক্ষ থেকে তিনজনের পোড়া দেহ উদ্ধারের তথ্য দেওয়া হয় র‍্যাবের পক্ষ থেকে। পরে বিকেলে র‍্যাবপ্রধান জানান,বাড়ি থেকে সাতটি কঙ্কাল উদ্ধার করা হয়েছে।

Facebook Comments
Please follow and like us: