ইউপির সদস্যের কান্ড লক্ষ্মীপুরে মসজিদ কমিটির স্বাক্ষর জালকরে টাকা আত্নসাত অভিযোগ

আলমগীর হোসেন লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার পারবতীনগর ইউনিয়নে মসজিদের জন্য জেলা পরিষদের বরাদ্ধকৃত ১ লাখ টাকা আতœসাতের অভিযোগ উঠেছে ইউপি সদস্য শামছুল ইসলাম বাবুর বিরুদ্ধে। এক লাখ টাকা আতœসাতের বিষয়টি জানতে পেরে এ ঘটনায় এলাকাবাসী ও মসজিদের মুসল্লিদের মাঝে চরম ক্ষোভ ও অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। এদিকে বিচার দাবী করে জেলা পরিষদ নির্বাহী বরাবরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন হাজী জিন্নাত আলী মুন্সিবাড়ী জামে মসজিদ কমিটির লোকজন। ঘটনার পর থেকে (৯ নং ওয়ার্ডের) ইউপি সদস্য শামছুল ইসলাম বাবু এলাকা ছেড়ে অন্যত্র পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।
হাজী জিন্নত আলী মুন্সিবাড়ী জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি নুরুল আমিন ও সাধারণ সম্পাদক শেখ ফরিদ জানান,বিগত কয়েক মাস পূর্বে লক্ষ্মীপুর জেলা পরিষদ থেকে মসজিদের উন্নয়নমুলক কাজ করার জন্য এক লাখ টাকা বরাদ্ধ দেয়া হয়। ওই টাকার খবর পেয়ে ইউপি সদস্য শামছুল ইসলাম বাবু গোপনে মসজিদ কমিটির সই স্বাক্ষর সীল জালিয়াতি করে উত্তোলন করে। পরে তারা মসজিদ কমিটির লোকজন বিষয়টি জানতে চাইলে ইউপি সদস্য অন্যত্র গিয়ে মোবাইল ফোন বন্ধ রাখেন। এঘটনায় ৩ অক্টোবর বিচার চেয়ে জেলা পরিষদ বরাবরে লিখিত অভিযোগ দেয়া হয় ইউপি সদস্য সদস্য শামছুল ইসলাম বাবুর বিরুদ্ধে।
স্থানীয়রা জানান, সদর উপজেলার পারবতীনগর ইউনিয়নে (৯ নংওয়ার্ডের) ইউপি সদস্য শামছুল ইসলাম বাবু নির্বাচিত হওয়ার পর নির্বাচনে খরচ হওয়া টাকা উত্তোলনে বেপোরোয়া হয়ে উঠেন। সরকারি বে-সরকারি বিভিন্ন প্রকল্পের টাকা আতœসাত করার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে । মসজিদ কমিটির সদস্য ও সভাপতি/সাধারণ সম্পাদকের স্বাক্ষর জাল-জালিয়াতি হাজী জিন্নত আলী মুন্সিবাড়ী জামে মসজিদের উন্নয়নের জন্য বরাদ্ধকৃত এক লাখ টাকা উত্তোলন করেন ইউপি সদস্য শামছুল ইসলাম বাবু।
পরে মসজিদ কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক মসজিদে প্রকাশ করলে এলাকাবাসী ও মসজিদের মুসল্লিরা ইউপি সদস্যের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন। এনিয়ে এলাকায় ক্ষোভ ও অসুন্তোষ দেখা দিয়েছে।
ইউপি সদস্য (৯ নং ওয়ার্ডের) শামছুল ইসলাম বাবু জানান, তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা। তবে মসজিদের জন্য জেলা পরিষদের দেয়া এক লাখ টাকার চেক গ্রহন প্রকৃয়িা শেষ করেছেন বলে জানান তিনি।
জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো: শাজাহান জানান,হাজী জিন্নত আলী মুন্সিবাড়ী জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক জেলা পরিষদ নির্বাহী বরাবরে আবেদন করেছে। তিনি বিষয়টি শুনেছেন। তবে বিষয়টি তিনিও ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান।
০৬/১০/২০১৭
আলমগীর হোসেন
লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি
০১৭২৩৪১৭০৪১

Facebook Comments
Please follow and like us: