নাটোরের বনপাড়া পৌরসভা ও দুই ইউপি নির্বাচন বৃহস্পতিবার

নাটোর সংবাদদাতা: বৃহস্পতিবার নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার বনপাড়া পৌরসভা, মাঝগ্রাম ও জোয়ারী ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন। ৩৭টি কেন্দ্রে এই ভোট অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিটি কেন্দ্রকেই ঝুকিপূর্ণ বলে মনে করছেন নির্বাচন সংশ্লিষ্টরা। নির্বাচনের প্রচারনা বন্ধসহ সব ধরনের প্রস্তুতি ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে। বুধবার দুপুরে সকল কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসারদের কাছে রিটার্নিং অফিসার ও নাটোর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আবুল হোসেন ব্যালট পেপারসহ নির্বাচনের সব সামগ্রী হস্তান্তর করেছেন।
নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও নাটোর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আবুল হোসেন জানিয়েছেন, বনপাড়া পৌরসভায় দুইজন মেয়র প্রার্থী ও ৬১জন কাউন্সিলর প্রার্থী এই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। এর মধ্যে সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ডের প্রার্থী রয়েছেন ১৮জন। দুটি ইউনিয়নে রয়েছেন ৫জন চেয়ারম্যান প্রার্থী ছাড়াও শতাধিক মেম্বার প্রার্থী। বনপাড়া পৌরসভা ১২টি ও দুটি ইউনিয়নের মোট ২৫টি কেন্দ্রের প্রতিটিতে নিরাপত্তা বজায় রাখার জন্য একজন এসআই, একজন এএসআই ও চারজন সিপাহী এবং ১৭জন আনসারসহ মোট ২৩জন করে দায়িত্বপালণ করবেন। এ ছাড়া ভ্রাম্যমান টিম হিসেবে র‌্যাবের ৬টি টিমে ৬০জন, বিজিবির ৮টি টিমে ৮০জন এবং পুলিশের আরো ১৮টি টিম কাজ করবে। এছাড়াও ৬জন ম্যাজিষ্ট্রেট সকাল থেকে শেষ পর্যন্ত ৬টি ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করবেন। বনপাড়া পৌরসভায় মোট ২১ হাজার ৩০৯জন ভোটার, জোয়ারী ইউনিয়নে ২৮ হাজার ৫৭৫জন এবং মাঝগ্রাম ইউনিয়নে ২৪ হাজার ৩শ’ ৪৩জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। ইতোমধ্যে নির্বাচন কমিশনার রফিকুল ইসলাম বনপাড়ায় এসে নির্বাচনের প্রার্থী, দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও আইন শৃংখালা রক্ষাকারী বাহিনীর সাথে মতবিনিময় সভা করে নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠুভাবে ভোট গ্রহনের সব ধরনের অঙ্গিকার ব্যক্ত করে গেছেন। ফলে এবার এখানে শান্তিপূর্ণ ভোটাধিকার প্রয়োগ করা সম্ভব হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন পৌরসভার সাধারন ভোটাররা।
পৌরসভার ১২নং ওয়ার্ডে কেন্দ্র করার মতো কোন প্রতিষ্ঠান নেই। অস্থায়ী ভোট কেন্দ্রের জমির মালিকানা নিয়ে মামলা জটিলতায় ভোটের মাত্র একদিন আগে বনপাড়া পৌরসভার ১২নং ওয়ার্ডের নির্বাচন তিন মাসের জন্য স্থগীত করেছে উচ্চ আদালত। ফলে আজ সেখানে ভোট হচ্ছে না।

Facebook Comments
Please follow and like us: