সাতক্ষীরা জেলাতে ২২ লক্ষ বই বিতরণ

ক্রাইমবার্তা রিপোর্ট:সাতক্ষীরা প্রতিনিতি: সাতক্ষীরা-০২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি জেলা সদরে কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বই বিতরণ করেছে। 
“ নতুন বইয়ের গন্ধ শুঁকে ফুলের মতো ফুটব বর্ণমালার গরব নিয়ে আকাশ জুড়ে উঠব’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে কুয়াশামাখা, শিশির স্নিগ্ধ সোনালি সকাল। শীতের মিষ্টি রোদের হাল্কা আঁচ নিতে নিতে যেন প্রস্ফুটিত হয়ে উঠেছিল শতসহ¯্র মুকুল। সোমবার শীতের সকালে সাতক্ষীরা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের কোমলমতি শিক্ষার্থীরা নতুন বছরের শুরুতে হাতে পেল নতুন বই। নিষ্পাপ মুখের মিষ্টি হাসির সঙ্গে রঙিন বইয়ের ঝাঁপি এনে দিল নতুন বছরের নতুন আনন্দ। নতুন বই হাতে পেয়ে শিক্ষার্থীরা যেমন আনন্দিত তেমনি তাদের স্বপ্ন আর কল্পনার রাজ্যও যেন নতুন নতুন পরিকল্পনায় সেজে উঠলো। সাতক্ষীরা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে উৎসব মুখর পরিবেশের মধ্য দিয়ে বিনামূল্যে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ করা হয়েছে। সোমবার সকালে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মো. মহিউদ্দিনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বিনামূল্যে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ, পাঠ্যপুস্তক দিবস ২০১৮ বই উৎসব বেলুল ও ফেস্টুন উড়িয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন সাতক্ষীরা- ০২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি। এসময় তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে ২০১৮ শিক্ষাবর্ষে মোট ৩৫ কোটি ৪২ লাখ ৮৫ হাজার ৯৪৯ কপি পাঠ্যবই বিতরণ করা হচ্ছে। এর মধ্যে মাধ্যমিক স্তরের বই ২৪ কোটি ৩৬ লাখ ৮৪ হাজার ৪২৮ কপি এবং প্রাথমিক স্তরের বই ১১ কোটি ছয় লাখ এক হাজার ৫২১ কপি। সাতক্ষীরা জেলায় মাধ্যমিক স্তরে ২০লক্ষ ৫৭ হাজার ৯০ সেট বই এবং সদর উপজেলায় ৪লক্ষ ২০ হাজার সেট বই বিতরণ করা হচ্ছে। প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ১লক্ষ ৪০ হাজার ৬শ’ ৬১ সেট বই এবং ৩৩ হাজার ৩শ সেট বই বিতরণ করা হচ্ছে। আজকে খুব আনন্দের দিন। নতুন বই মানে আলাদা আনন্দ। উন্নত জাতি গঠনে শিক্ষাই একমাত্র পন্থা। বিশ্বে এমন কোন দেশ নেই যেখানে বছরের প্রথম দিনে বিনামূল্যে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেয়। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকার ক্ষমতায় আসার পর এই যুগান্তকারী পদক্ষেপ নিয়েছেন। শিক্ষাক্ষেত্রের বিনিয়োগ ও অর্জনকে আমাদের সরকার সবচেয়ে বড় বিনিয়োগ ও অর্জন হিসেবে দেখছে। আমাদের ছেলে-মেয়েরা যদি মানসম্মত শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে উঠে, তখন সারা পৃথিবীর জন্য উপযুক্ত হয়ে উঠবে। সে লক্ষ্যেই সরকারের এই উদ্যোগ। বিজয়ের মাস শেষ হলেও বাংলাদেশকে বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিজয়ী হিসেবে গড়ে তুলতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে। এই বিজয় আমাদের ধরে রাখতে হবে। এই জাতিকে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বব্যাপী বিজয়ী জাঁতি হিসেবে গড়ে তুলতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। উন্নত সমৃদ্ধ জাতি হিসেবে গড়ে তুলতে বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছেন তিনি। শিক্ষা-দীক্ষা সর্বক্ষেত্রে বাংলাদেশের মানুষ হবে শ্রেষ্ঠ, সেটাই জননেত্রী শেখ হাসিনার একমাত্র লক্ষ্য। শিক্ষা হলো দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার প্রধান হাতিয়ার। দারিদ্র্যমুক্ত দেশ গড়তে বর্তমান সরকার বদ্ধপরিকর।’ অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনোয়ারা খাতুন। বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন জেলা শিক্ষা অফিসার এস.এম ছায়েদুর রহমান, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার শেখ অহিদুল আলম, সাতক্ষীরা সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজের অধ্যক্ষ মো. জিয়াউল হক, জেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার অলোক কুমার তরফদার, সমরেশ কুমার দাস, মো. আব্দুর রাজ্জাক, সিরাজুল ইসলাম ও ইয়াহিয়া ইকবাল প্রমুখ। বই উৎসবে এ বিদ্যালয়ের ৩য় শ্রেণি থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের হাতে ২ হাজার ৫শ’ সেট নতুন বই তুলে দেওয়া হয়। এসময় বিদ্যালয়ের শিক্ষক/শিক্ষার্থী ও অভিভাবকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন শিক্ষক মো. আব্দুস সবুর ও শিক্ষক মো. কাবিজুল ইসলাম।

সাতক্ষীরা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে নতুন বছরে নতুন বই পেয়ে আনন্দিত শিক্ষার্থীরা
‘শিক্ষা নিয়ে গড়বো দেশ শেখ হাসিনার বাংলাদেশ” এই স্লোগানকে সামনে রেখে সাতক্ষীরা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে বই উৎসব-২০১৮ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার দুপুরে সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে সাতক্ষীরা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মো. মহিউদ্দিনের সভাপতিত্বে পাঠ্যপুস্তক দিবসে প্রধান অতিথি হিসেবে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বছরে নতুন বই তুলে দিলেন সাতক্ষীরা-০২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি। এসময় তিনি বলেন, ‘জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশের উন্নয়নে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে। বাঙালী জাতি বিশ্বের দরবারে মাথা উঁচু করে দাড়াতে হলে শিক্ষার কোন বিকল্প নেই। বর্তমান সরকার শিক্ষা বান্ধব সরকার। শিক্ষার মান উন্নয়নে সরকার নানামুখী কর্মসূচী গ্রহন করেছেন। বিশ্বের মধ্যে একমাত্র বাংলাদেশ-ই বছরের শুরুতেই শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিচ্ছে।’ এসময় বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এস.এম আব্দুল্লাহ আল-মামুন, জেলা শিক্ষা অফিসার এস.এম ছায়েদুর রহমান, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার শেখ অহিদুল আলম, জেলা সহকারী জেলা শিক্ষা অফিসার অলোক কুমার তরফদার, সহকারী প্রধান শিক্ষক সামিমা ইসমত আরা, সিনিয়র শিক্ষক মো. আনিসুর রহমান, মো. আবুল খায়ের, মো. আলাউদ্দিন, দীপা সিন্ধু তরফদার, মো. হাবিবুল্লাহ, বাবলু স্বর্ণকার, মো. ওয়ালিদুর রহমান, মো. আব্বাস আলী সরদার, ছাত্রীদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন মুর্শিদা তাসনিম প্রমুখ। বই উৎসবে এ বিদ্যালয়ের ৩য় শ্রেণি থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের হাতে ২ হাজার ৬০ সেট নতুন বই তুলে দেওয়া হয়। সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সিনিয়র শিক্ষক মো. আনিসুর রহমান।

 

বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি প্রতিবন্ধী স্কুলে বই উৎসবে
প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের নিষ্পাপ মুখের মিষ্টি হাসির সঙ্গে রঙিন বইয়ের ঝাঁপি এনে দিল নতুন বছরের নতুন আনন্দ
“ শিক্ষা নিয়ে গড়বো দেশ শেখ হাসিনার বাংলাদেশ” এই স্লোগানকে সামনে রেখে প্রতিবন্ধী নিষ্পাপ মুখের মিষ্টি হাসির সঙ্গে রঙিন বইয়ের ঝাঁপি এনে দিল নতুন বছরের নতুন আনন্দ। নতুন বই হাতে পেয়ে প্রতিবন্ধী শিশুরা যেমন আনন্দিত তেমনি তাদের স্বপ্ন আর কল্পনার রাজ্যও যেন নতুন নতুন পরিকল্পনায় সেজে উঠলো। সোমবার সকালে সুলতানপুরস্থ বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি প্রতিবন্ধী স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি বিশিষ্ট সমাজসেবক ডা. আবুল কালাম বাবলা’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বছরে নতুন রঙিন বই তুলে দিলেন সাতক্ষীরা-০২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি। এসময় তিনি বলেন, ‘প্রতিবন্ধীরা এখন আর সমাজের বোঝা নয়। প্রতিবন্ধীরা সমাজের একটি অংশ। প্রতিবন্ধীদের সঠিক শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের মাধ্যমে জনশক্তিতে পরিনত করতে হবে। দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষদের সাথে নিয়ে এগিয়ে নিতে হবে।’ বই উৎসবে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা শিক্ষা অফিসার এস.এম ছায়েদুর রহমান, সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. জাহিদুর রহমান, জেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক শেখ নুরুল হক, বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি প্রতিবন্ধী স্কুলের প্রধান শিক্ষক ফারজিনা নাহিদ নিগার, সাতক্ষীরা নবারুণ বালিকা বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি আমিনুর রহমান উল্লাস ও সৈয়দ নাজমুল হক বকুল প্রমুখ। এসময় উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি প্রতিবন্ধী স্কুলের সহকারী শিক্ষক হাবিবুল্লাহ হাবিব, আসাদুজ্জামান আসাদ, সাইফুর রহমান জুয়েল, ফাহমিদা জামান, রাজমিতা মন্ডল, তহমিনা আক্তার সুমি, কামরুজ্জামান, ইশারাত আলীসহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

সাতক্ষীরা টাউন গালর্স হাইস্কুলে রঙিন বই উৎসব
“ শিক্ষা নিয়ে গড়বো দেশ শেখ হাসিনার বাংলাদেশ” এই স্লোগানকে সামনে রেখে সাতক্ষীরা টাউন গালর্স হাইস্কুলে রুঙিন বই উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার দুপুরে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে সাতক্ষীরা টাউন গালর্স হাইস্কুল পরিচালনা পরিষদের সভাপতি মো. আলমগীর কবির’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন রঙিন বই তুলে দিলেন সাতক্ষীরা-০২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা শিক্ষা অফিসার এস.এম ছায়েদুর রহমান, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাছরিন বানু, সহকারী প্রধান শিক্ষক অসীম কুমার মন্ডল, সাতক্ষীরা টাউন গালর্স হাইস্কুল পরিচালনা পরিষদের সদস্য বিশিষ্ট ছড়াকার নাজমুল হাসান, মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ, সহকারী শিক্ষক মো. রোকনুজ্জামান ও আফজাল হোসেনসহ বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সদস্য, শিক্ষক/শিক্ষার্থী ও অভিভাবকবৃন্দ। বই উৎসবে এ বিদ্যালয়ের ১ম শ্রেণি থেকে ১০ম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের হাতে ৬শ’ ৩৩সেট নতুন বই তুলে দেওয়া হয়। সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন বিদ্যালয়ের শিক্ষক শেখ আলমগীর হোসেন।

 

তালতলা আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পাঠ্যপুস্তক দিবসে শিক্ষার্থীরা পেল নতুন বই
‘শিক্ষা নিয়ে গড়বো দেশ শেখ হাসিনার বাংলাদেশ” এই স্লোগানকে সামনে রেখে সাতক্ষীরার তালতলা আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা পাঠ্যপুস্তক দিবসে নতুন বছরে পেল নতুন রঙিন বই। সোমবার দুপুরে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো. আবিদার রহমানের সভাপতিত্বে পাঠ্যপুস্তক দিবসে প্রধান অতিথি হিসেবে শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দেন সাতক্ষীরা-০২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা শিক্ষা অফিসার এস.এম ছায়েদুর রহমান, সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. জাহিদুর রহমান, লাবসা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি এপিপি এড. মুস্তাফিজুর রহমান শ্হনওয়াজ, সাধারণ সম্পাদক আবু সুফিয়ান সজল, সাতক্ষীরা টাউন গালর্স হাইস্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আলমগীর কবির, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. রেজাউল করিম, লাবসা ইউপি সদস্য আলহাজ¦ আব্দুল হান্নান, ইউপি সদস্য মনিরুল ইসলাম, বিদ্যালয়ের শিক্ষক মোর্ত্তজা আল লিটন, লাবসা ইউনিয়ন মানবাধিকার সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ইনতাজ আলী প্রমুখ। বই উৎসবে এ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণি থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের হাতে ৪ শ’ ৫০ সেট নতুন বই তুলে দেওয়া হয়। ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মহাসেনুল হাবিব মিন্টু।এমপি রবি বলেন, আপনারা জানেন, আওয়ামীলীগ সরকার গঠনের পর থেকে একটা জিনিস নির্দিষ্ট করেছে শিক্ষা, এটা হচ্ছে মানুষের মৌলিক অধিকার। আর এই শিক্ষা সকলকেই গ্রহণ করতে হবে। বাংলাদেশকে আমরা নিরক্ষরতামুক্ত বাংলাদেশ হিসেবে গড়তে চাই। এর উদ্দেশ্য আর কিছু না। বাংলাদেশকে আমরা দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ হিসেবে গড়ব। কিন্তু সেই দারিদ্র্যমুক্তি ঘটবে যদি আমরা এ দেশের মানুষকে সুশিক্ষায় সুশিক্ষিত করতে পারি। কারণ, শিক্ষাই হচ্ছে দারিদ্র্যমুক্তির মূল ভিত্তি, যেটা আমি মনে করি। কাজেই সেদিকে লক্ষ্য রেখে আমরা শিক্ষাকে সবচেয়ে গুরুত্ব দিয়েছি এবং এই শিক্ষার জন্য আমরা বিভিন্ন কাজ করেছি। নতুন ক্লাসে নতুন বই, এটি পড়াশোনার আগ্রহ বাড়ায়। তাছাড়া অনেক বাবা-মায়ের বই কেনার পয়সা থাকে না। বছরের প্রথম দিনই শিক্ষার্থীদের হাতে বিনামূল্যে বই তুলে দিচ্ছে সরকার। ২০০৯ সাল থেকে এই ২০১৮ সাল পর্যন্ত, বিনামূল্যে এত বিপুল সংখ্যক বই বিতরণ বিশাল ব্যাপার। আওয়ামীলীগ সরকার এটি সফলতার সঙ্গে করেছে। এমনকি ২০১৩, ১৪, ১৫ সালে বিএনপি-জামায়াতের তান্ডব ও আন্দোলনের মধ্যেও সঠিক সময়ে বই পৌঁছে দিয়েছে আমাদের সরকার। আওয়ামী লীগ সরকারের জনকল্যানমূলক বিভিন্ন কাজের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘৭৫-এ বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর অবৈধ ক্ষমতার দখলের পালা শুরু হয়। ২১ বছর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় ছিল না। আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসায় মানুষ প্রথম উপলব্ধি করে এ সরকার জনগণের সেবক। শিক্ষায় সরকারের আওয়ামীলীগ সরকার বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি শিক্ষাসহ সব ধরনের শিক্ষার ওপর গুরুত্ব দিয়েছে। সেই সাথে খেলাধুলা, সাংস্কৃতিক চর্চার ওপর সমান গুরুত্ব দিয়েছে। যাতে আমাদের শিশুদের মেধা মননের বিকাশ হয়। শিক্ষার্থীরা সব কিছুতেই পারদর্শী হয়ে উঠবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। মান-সম্পন্ন লেখাপড়ার ওপর গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে যাতে আমাদের ছেলেমেয়েরা বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যেতে পারে।

১জানুয়ারী,২০১৮সোমবার:ক্রাইমর্বাতা.কম/প্রতিনিধি/আসাবি

 

 

 

 

 

Facebook Comments
Please follow and like us: