স্বামীর সীমাহীন অত্যাচারে ঘড়ছাড়া নূরনগরের মাফুজা

 ক্রাইমবার্তা রিপোর্ট:শ্যামনগরের নূরনগর দক্ষিণ হাজিপুর গ্রামের আব্দুল গফ্ফার মোল্লার মেয়ে মাফুজা খাতুন (৩০)। ২ সন্তানের জননী। গত ২০০৪ সালে কালিগঞ্জ উপজেলার রতনপুর ইউনিয়নের আড়ংগাছা গ্রামের মৃত: আব্দুল্যাহ গাজীর ছেলে অহিদুল্লাহ (৩৫) এর সঙ্গে বিবাহ হয়। দাম্পত্য জীবনে তাদের ২টি মেয়ে সন্তান তাপসিয়া তামান্না (১২), সানজিদা (৭)।
গৃহবধু মাফুজা খাতুনের মাতা রহিমা বেগম ও ভাই লাভলু মোল্যা জানান, রতনপুর পীরগাজন গ্রামের আমির আলীর ছেলে আব্দুল মজিদ ও দুরমুজখালীর আলাউদ্দীনের ছেলে জুব্বার আলীর যোগসাজসে মজিদের ছোট বোনকে মাফুজার স্বামীর সাথে বিবাহ দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে গত ১১/০৬/২০১৭ তারিখ সাতক্ষীরা জর্জ কোর্টের এড. এম.এস. ইয়ারুল হক এর মাধ্যমে ১৮১০নং ক্রমিকে ১১/০৬/২০১৭ তারিখ এভিডেভিটের মাধ্যমে অহিদুল্লাহ গাজী মাফুজা খাতুনকে তালাক দেয়। পরে স্থানীয় গ্রামের গণ্যমান্য ব্যক্তি জুলফিকার, আয়জুল মোল্যা, বাবলু মোল্যা, লাভলু মোল্যা, জলিল সরদরসহ অনেক ব্যক্তিদের মধ্যস্থতায় নতুনভাবে অহিদুল্লাহ ও মাফুজাকে বিবাহ পড়ানো হয়। সকল দ্বন্দ ভুলে যেয়ে ২জন ঘর সংসার করছিল। কিন্তু হঠাৎ করে ২৫/১২/২০১৭ তারিখে সকালে মাদক সেবন করে অহিদুল্লাহ বাড়ি এসে স্ত্রী মাফুজাকে ৫০ হাজার টাকা পিতার বাড়ি থেকে আনতে হবে বলে শারিরীক নির্যাতন করে। ২ মেয়ে ও স্ত্রী মাফুজাকে ঘরের মধ্যে তালাবদ্ধ করে তার স্বামী অহিদুল্লাহ ২টা গরু, মাফুজার স্বর্ণের ২টি দুল, ১টি আংটি, হাতের ২টি রুলি, ১টি চেইন সহ প্রায় ৩ লক্ষ টাকার মালামাল নিয়া মজিদ ও জুব্বার আলীর সাথে আত্মগোপণ করে। কয়েকদিন পর প্রতারকর অহিদুল্লাহ নিজের কৃতকর্ম ঢাকার জন্য স্ত্রী মাফুজা ও তার ২ ভাইসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে সাতক্ষীরা জর্জকোর্টে সি.আর- ২৬১/১৭ একটি মিথ্যা মামলা করে। পরে গত ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ দিবাগত রাতে অজ্ঞাত ২/৩ জন লোকজন নিয়ে অহেদুল্লাহ মাফুজার নুরনগরে পিতার বাড়িতে মাফুজার হত্যা করার জন্য ও মুখে এসিড মারার জন্য হাতে এসিডের বোতল নিয়ে ঘোরাঘুরি ও ঘরের দরজা জানালার পাশে দাড়িয়ে থাকে। তার এই কর্মকান্ড মাফুজার ভাই লাভলু মোল্যার দৃষ্টিতে আসলে অহিদুল্লাহসহ ভাড়াটিয়া গুন্ডারা দৌড় দিয়ে পালিয়ে যায়। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।
Facebook Comments
Please follow and like us: