ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্ণিতির অভিযোগে কালিগঞ্জ থানার ওসি সুবীর দত্তকে বদলি:

ক্রাইমবার্তা রিপোট: সাতক্ষীরা:  দুর্ণিতির অভিযোগে সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ থানার ওসি সুবীর দত্তকে স্টান্ড রিলিজ করে বাংলাদেশ রেলওয়ে পুলিশে বদলি করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়ন ও দুর্ণিতির অভিযোগ উঠার পর পুলিশের হেডকোয়াটার থেকে বদলির আদেশ আশে। মঙ্গলবার(২৪/০৪/২০১৮) রাতেই কালিগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রাজীব হোসেনের নিকট দায়িত্ব হস্তান্তর করা হয়।
২০১৭ সালের ১১ নভেম্বর ওসি সুবীর দত্ত কালিগঞ্জ থানায় অফিসার ইনচার্জ হিসাবে যোগদান করার পর তার বিরুদ্ধে নানা

অভিযোগ উঠে।
মামলার ভয় দেখিয়ে ব্যবসায়ি থেকে শুরু করে দিন মজুরকে চাঁদার কাকা দিতে হত। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগের সভাপতিসহ একাধিক ব্যক্তি তার বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম, দুর্নীতি, স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ করে।

 

কালিগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ. লীগের চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব শেখ ওয়াহেদুজ্জামান জানান, ওসি সুবীর দত্ত কোটি কোটি টাকা অবৈধ ভাবে উপার্জন করছিল। কোন ভাবেই তাকে দমিয়ে রাখা যাচ্ছিল না। ফলে স্বরাস্ট্রমন্ত্রী, আইজিপি ও

 

ডিআইজি, এন এস আই, ডি জি এফ আই, এফ এস সহ সরকারের গুরুত্বপুর্ন দপ্তর বরাবর আমি অভিযোগ করি।

 

জানা গেছে, থানা অফিসার ইনচার্জ কালিগঞ্জ থানায় (১১/১১/২০১৭) যোগদানের পর থেকে এলাকার নিরীহ মানুষদের তুলে নিয়ে মোটা অংকের টাকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া, সন্ত্রাসীদের পরিবর্তে জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক নেতাদের ধরে মিথ্যা মামলায় জেলে পাঠানো, সাংবাদিককে খাইয়ে ফেলানোর হুমকী দেয়ার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।
অভিযোগ আছে, ওসি সুবীর অবৈধ ও অনৈতিকভাবে থানা এলাকার প্রায় তিন শতাধিক ধনি ব্যক্তিকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে ওসির বাসায় রেখে চাপ দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা আদায় করতো। অভিযোগের সাথে ভুক্তভোগীদের নামের তালিকাও গণমাধ্যমের কাছে এসেছে। এমনিভাবে কালিগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস.এম নাসির উদ্দীনের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেয়ার অভিযোগ উঠে ভুক্তভোগীর পরিবারের পক্ষ থেকে।
মৌতলা ইউপি সদস্য ডালিম ও স্বরাস্ট্রমন্ত্রী, আইজিপি ও ডি আই জিসহ বিভিন্ন দপ্তরে সুবীর দত্তের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে। এসব অভিযোগের প্রেক্ষিতে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারের কার্যালয় থেকে তার বিরুদ্ধে একাধিক তদন্ত সম্পন্ন হয়। একপর্যায়ে থানার উপ-পরিদর্শক প্রকাশ ও ই¯্রাফিলকে ক্লোজড করা হয়ে। কিন্তু বিতর্কিত ওসি সুবীর দত্তসহ জড়িতদের অপসারণে দাবি অব্যাহত থাকায় মঙ্গলবার তাকে স্টান্ড রিলিজ করা হয়েছে।
পুলিশ জনতাজনতাই পুলিশ” এই কথা বাংলাদেশ পুলিশের মূল নীতি থাকলেও কালিগঞ্জ থানার ওসি সুবির দত্ত ছিলেন যেন ধরা ছুয়ার বাইরে। তবে
ওসি সুবীর দত্ত জানান,তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সমূহ বেশির ভাগ মিথ্যা। তার সময়ে কালিগঞ্জে ব্যাপক হারে অপরাধ হ্রাস পেয়ে ছিল। অপরাধ করতে না পেরে অপরাধীরা তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তোলে। বদলি সরকারী চাকুতে একটা নিয়মিত বিষয়। তারই অংশ হিসেবে তাকে বদলি করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

 

 

Facebook Comments
Please follow and like us: