সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগ নেতা ইমন হত্যা মামলায় নিহতের চাচা পৌর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আলম গ্রেফতার

ক্রাইমবার্তা রিপোট:  জেলা ছাত্রলীগের সহ-সাধারণ সম্পাদক শেখ হাসিবুল হাসান ইমনকে হত্যার পরিকল্পনাকারী হিসেবে হত্যা মামলার বাদী শেখ আলমগীর হাসান আলমকে সিআইডি পুলিশ গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরণ করেছে। একই সাথে আরো জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫দিনের রিমান্ডের আবেদন করেছে সিআইডি পুলিশ। সাতক্ষীরা শহরের সুলতানপুরের শেখ ইকবাল হাসান লিটনের পুত্র শেখ হাসিবুল হাসান ইমন (২১) কে গত ২০১৭ সালের ১৬ জানুয়ারি দিবাগত রাতে হত্যা করা হয়। হত্যাকারীরা সদর থানার মাটিয়াডাঙ্গা আমতলার ইকবাল বিশ্বাসের ঘেরে ফেলে রেখে যায়। পরদিন ১৭ জানুয়ারি সকাল ১০টায় সদর থানার পুলিশ ইমনের লাশ উদ্ধার করে। মামলার বাদী হিসেবে ইমনের পিতা মামলার সময় উপস্থিত থাকা সত্বেও পিতাকে বাদী হতে না দিয়ে ইমনের চাচা সাতক্ষীরা পৌর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শেখ আলমগীর হাসান আলম বাদী হন এবং বাদী ও তার সঙ্গে থাকা জনৈক আব্দুর রশিদের ইঙ্গিতে শেখ মুস্তাফিজুর রহমান মুরাদ (২৫), শেখ বখতিয়ার রহমান বিপ্লব ও রেজাউল মোল্লা রনিকে গ্রেপ্তার করায়। সে সময় সদর থানার পুলিশ কয়েক দফা রিমান্ড নিয়ে তাদের নিকট থেকে হত্যার ঘটনার স্বীকারোক্তি আদায়ে সম্ভাব্য সকল তৎপরতা চালিয়ে মামলার কোন সুরাহা করতে পারেনি। দ্বিতীয় পর্যায়ে মামলার তদন্তভার সিআইডি পুলিশ কর্মকর্তা হাবিবুর রহমানের নিকট হস্তান্তর হলে তিনি বীর মুক্তিযোদ্ধা স. ম আলাউদ্দীন হত্যা মামলার আসামী কাজী সাইফুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করেন। সাইফুল ইসলাম প্রথমে মামলার বাদী শেখ আলমগীর হাসান আলমের নাম ইমন হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী হিসেবে পুলিশকে তথ্য প্রদান করে। তারপরও মামলার অগ্রগতি আশাব্যাঞ্জক না হওয়ায় এবং মামলাটি কোনভাবে রাজনৈতিক প্রভাবের আওতায় না থাকতে পারে সে বিবেচনায় তৃতীয় পর্যায়ে মামলার তদন্তভার বাগেরহাট সিআইডি পুলিশের পরিদর্শক সাইফুল ইসলামের উপর ন্যস্ত করা হয়। সিআইডি পুলিশ পরিদর্শক কয়েক দফা সুলতানপুর গ্রাম ও ঘটনাস্থলে বিভিন্ন পর্যায়ে নিবিড় তদন্তের এক পর্যায়ে গত ২৫ জুন বেলা ১১টায় মামলার বাদী যিনি হত্যার মুল পরিকল্পনাকারি হিসেবে ক্লু পাওয়ায় শেখ আলমগীর হাসান আলমকে গ্রেপ্তার করে জিজ্ঞাসাবাদ করে।
সিআইডি পুলিশ নিশ্চিত হওয়ার পর শেখ আলমগীর হাসান আলমকে ইমন হত্যার মুল নায়ক হিসেবে বিবেচনা করায় তাকে গত ২৬ জুন আদালতে সোপর্দ করে এবং ৫দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। আদালতের বিজ্ঞ বিচারক রিমান্ড আবেদনের শুনানির দিন আগামী ১০ জুলাই মঙ্গলবার ধার্য করেন বলে সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে।

Facebook Comments
Please follow and like us: