প্রশাসনের দূর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের সহযোগিতায় বেতনা নদীর দু’তীর দখলের প্রতবাদে সাতক্ষীরায় মানব বন্ধন

ক্রাইমবার্তা রিপোট :জলাবদ্ধতা নিরসন ও বেতনা নদীর দুইপাশে অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ, পানি উন্নয়ন বোর্ডের উদাসীনতায় সাতক্ষীরার সকল নদী খালসহ পানি নিষ্কাশনের সংযোগগুলি বেদখল হয়ে রয়েছে। সাতক্ষীরা পৌরসভার সকল রাস্তাঘাট চলাচলের অনুপোযোগী, সুপেয় পানির প্রচ- অভাবে মানুষ পানি বাহিত রোগে ভুগছে। এছাড়া বাইপাস সড়কটি আলীপুর চেকপোস্ট পর্যন্ত বর্ধিত করা, রেল লাইন স্থাপন, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা, ভোমরাস্থল বন্দরের আধুনিক অবকাঠামো নির্মাণ, সুন্দর বনকে পরিবেশ বান্ধব পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তোলার দাবিতে আজ সকাল ১১টায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সামনে নাগরিক আন্দোলন মঞ্চ ও বেতনা বাঁচাও আন্দোলন কমিটির যৌথ মানববন্ধন বেতনা বাচাঁও আন্দোলনের আহবায়ক মোঃ আবিদার রহমানের সভাপতিত্বে নাগরিক আন্দোলন মঞ্চের সদস্য সচিব আলীনূর খান বাবুলের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা জেলা নাগরিক আন্দোলন মঞ্চের আহবায়ক এড. ফাহিমুল হক কিসলু, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি এড. আবুল কালাম আজাদ, যমুনা বাচাঁও আন্দোলনের আহবায়ক ও দক্ষিণের মশালের সম্পাদক অধ্যক্ষ আশেক ই এলাহী, জেলা জজ কোর্টের পিপি এড. ওসমান গনি, অধ্যক্ষ সুভাষ সরকার, নাগরিক আন্দোলনের যুগ্ম আহবায়ক শুধাংশু শেখর সরকার, ওবায়েদুস সুলতান বাবলু ও স্বপন কুমার শীল, জজ কোর্টের এপিপি তামিম আহমেদ সোহাগ, ভুমিহীন নেতা ওহাব আলী সরদার, নাগরিক আন্দোলন মঞ্চের সদস্য নির্মল সরকার, বেতনা বাচাঁও আন্দোলন কমিটির যুগ্ম আহবায়ক শফিকুর রহমান, সদস্য এনামুজ্জামান নিপ্পন, শ্যামল বৈদ্য, সাবান আলী বিশ্বাস প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, কতিপয় প্রশাসনের দূর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের সহযোগিতায় বেতনা নদীর দুই পাশেই অবৈধ দখলদাররা দখল করে নিচ্ছে বেতনা ভরাটি খাস জমি। এব্যাপারে বার বার প্রশাসনকে বলা হলেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন কার্যকারী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে না বলেই ভুমিদস্যুরা জেলা প্রশাসকের নামে একটি সাইন বোর্ড তুলে দিয়ে আবারও নতুন করে বেতনা দখল করা শুরু করেছে।প্রেস বিজ্ঞপ্তি: 

Facebook Comments
Please follow and like us: