বৃহস্পতিবার , ২ জুলাই ২০২০

তালায় ৫০ টি বসতির যাতায়াতের রাস্তা বন্ধে নানামুখী ষড়যন্ত্রের অভিযোগ

নিজিস্ব প্রতিনিধি ॥
সাতক্ষীরার তালার আড়ংপাড়া এলাকার প্রায় ৫০ টি পরিবারের যাতায়াতের একমাত্র রাস্তা বন্ধ করতে ফের ষড়যন্ত্র শুরু করেছে স্থানীয় জনৈক আরশাদ আলী গাজী নামে এক ব্যক্তি। ইতোপূর্বে তাদের যাতায়াতের রাস্তা না থাকায় প্রায় ৩ মাস আগে ভাইদের সাথে ১৮ শতাংশ জমির এওয়াজ মূলে রাস্তার ঐ জমি দেন আরশাদ। এরপর নিজ খরচে ভূক্তভোগীরা সেখানে একটি ইটের সোলিং রাস্তা নির্মাণ করেন। সর্বশেষ আরশাদ রাস্তার জায়গা দখলে নিতে নানা অপতৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে,এমনকি সমন্বয়কারী স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ এলাকার সাধারণ মানুষের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনলাইনে অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। ঘটনায় সাধারণ মানুষের ক্ষোভ চরম আকার ধারণ করেছে।

অভিযোগে জানাগেছে যে, সাতক্ষীরার তালা উপজেলার আড়ংপাড়া গ্রামের মৃত.পাচু গাজীর ছেলে নুর আলী গাজী,রাজ আলী গাজী ও খোরশেদ আলী গাজীসহ গ্রামবাসীরা জানান,যাতায়াতের রাস্তার জন্য এলাকার জনপ্রতিনিধি ও গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের উপস্থিতিতে ভূক্তভোগীদের সাথে উক্ত আরশাদ আলীর একটি আপোসনামা হয় যে,প্রায় ৫০ ঘর বসতির যাতায়াতের জন্য তিনি ১৮ শতাংশ জমির এওয়াজমূলে উক্ত জায়গা ছেড়ে দিবেন। মাস তিনেক আগে চুক্তি মোতাবেক ভূক্তভোগীরা সেখানে নিজেদের অর্থায়নে একটি ইটের সোলিং রাস্তাও নির্মাণ করেন। যাতে আরশাদ আলী ও তার ছেলে আতিয়ার সহযোগিতাও করে।

অভিযোগে জানানো হয়েছে,স্থানীয় একটি স্বার্থান্বেষী মহলের প্রত্যক্ষ ইন্ধনে আরশাদ গংরা সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্যসহ অন্যান্যদের বিরুদ্ধে নানাবিধ অপবাদসহ অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। বিভিন্ন অনলাইনে এনিয়ে একাধিক খবরও প্রকাশ করিয়েছে। এতে চুক্তিভঙ্গসহ এলাকায় বিশৃঙ্খলার আশংকা রয়েছে বলেও জানানো হয়।

তারা আরো অভিযোগ করেন যে,এনিয়ে এখন পর্যন্ত এলাকায় একাধিক শালিসী বসলেও আরশাদ কারো কথায় কর্ণপাত না করে বিভিন্নজনকে নানা অযুহাতে হত্যার হুমকি অব্যাহত রেখেছে।

সূত্র জানায়, ১৯৮৫ সালের ২৮ জুলাই আরশাদ গাজী স্থানীয় জনৈক আমির সরদার হত্যা মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হয়ে জেল খেটে বাড়িতে আসার পর থেকে অদ্যবধি আপন ভাইসহ অন্যান্যদের একর পর এক জীবন নাশের হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। ইতোপূর্বে হত্যা মামলায় সাজা ভোগের পর এমন হুমকিতে ভাইদের মধ্যেও আতংক ছড়িয়ে পড়েছে।

এব্যাপারে স্থানীয় ইউপি সদস্য বাবর আলী জানান,এলাকাবাসীর চলাচলের বৃহৎ স্বার্থে স্থানীয় বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের সমন্বয়ে আপোষনামা প্রস্তুতপূর্বক প্রায় মাস তিন মাসে আগে তার আপন ৬ ভাইদের মধ্যে ১৮ শতাংশ জমি এওয়াজ বদল মূলে সেখানে একটি ইটের সোলিং রাস্তা নির্মাণ করে দেওয়া হয়। ঘটনায় বিস্তীর্ণ এলাকায় প্রশংসিত হলেও একটি কূ-চক্রী স্বার্থান্বেষী মহল খুশী হতে পারেনি। পরে তাদের ইন্ধনে আরশাদ গাজী উক্ত রাস্তা বন্ধে বিভিন্ন স্থানে নানা উপায়ে মিথ্যা অপপ্রচার চালিয়ে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

About ক্রাইমবার্তা ডটকম

Check Also

সালমানের সঙ্গে ৩ মাস বাগানবাড়িতে কাটালেন জ্যাকলিন

করোনারভাইরাসের কারণে অনেক দিন বন্ধ ছিল সব ধরনের শুটিং। এই সময় নিজের বাগানবাড়িতে কাটিয়েছেন সালমান …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *