মার্চ ২০, ২০২০
দেবহাটায় উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল গনিসহ ৫৯ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে

ক্রাইমবার্তা রিপোটঃ     দেবহাটা উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়নে সাম্প্রতিক সময়ে বিদেশ থেকে আসা ৫৯ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলেছে উপজেলা প্রশাসন। এদের মধ্যে সখিপুর ইউনিয়নে ২১ জন, কুলিয়া ইউনিয়নের ২৭ জন, পারুলিয়া ইউনিয়নে ৮ জন, নওয়াপাড়া ইউনিয়নে ২ জন ও সদর ইউনিয়নে ১ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এমনকি হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল গণিও। বৃহষ্পতিবার দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজিয়া আফরীন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডাঃ আব্দুল লতিফ ও পাঁচটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের দেয়া তথ্যে বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছে। তবে ক্রমশ হোম কোয়ারেন্টাইনের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। তবে পাঁচটি ইউনিয়নের মধ্যে সখিপুরে ও কুলিয়া ইউনিয়নে সর্বাধিক বিদেশ ফেরত মানুষদের কোয়ারেন্টাইনে থাকার ঘটনায় ইউনিয়ন দুটিকে অধিক ঝুকিপুর্ণ হিসেবে বিবেচনায় নিচ্ছেন সংশ্লিষ্টরা। সখিপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শেখ ফারুক হোসেন রতনের দেয়া তালিকা অনুযায়ী যাদেরকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে তারা হলেন, দক্ষিণ সখিপুরের আব্দুল মজিদের ছেলে জামাল হোসেন, একই গ্রামের গোলাম রসুলের ছেলে ওমর আলী, পরেশতুল্যার ছেলে ইয়াকুব আলী, ইয়াকুর আলীর ছেলে হাফিজুল ইসলাম, ভাদ্রশ্বরের ছেলে মধু মন্ডল, শামছুরের মেয়ে রেহানা খাতুন, সন্যাসী দাশের ছেলে মধুদাস, পাঁচপোতা গ্রামের নুর ইসলামের ছেলে ইমাম হোসেন, মাঝ সখিপুরের শফিকুল ইসলামের ছেলে সোহেল, একই গ্রামের আজিবরের ছেলে আরিফ হোসেন, আকবরের ছেলে আল আমিন, মৃত বশির গাজীর ছেলে আব্দুল মাজেদ ওরফে মান্তা হাজী, মাঘরী গ্রামের মৃত আবুল কালামের ছেলে আব্দুর রব লিটু, একই গ্রামের দিনালী গাজীর ছেলে সাবুর আলী, চন্ডিপুরের আনার আলীর ছেলে গোলাম রসুল, মাঘরী গ্রামের মাজেদ মোডলের ছেলে ফজলুর রহমান, জাফর শেখের ছেলে জলিল শেখ, উত্তর সখিপুরের তরফতুল্যাহ গাজীর ছেলে শরিফুজ্জামান পলাশ, রবিউল ইসলামের ছেলে রাকিব হোসেন ও আব্দুল হামিদের স্ত্রী মাহফুদা বেগম। এদের অধিকাংশই সাম্প্রতিক সময়ে ভারত থেকে এসেছেন। আর বাকীরা মালদ্বীপ, জর্ডান, সৌদি আরব ও দুবাই ফেরত প্রবাসী। এদিকে কুলিয়া ইউনিয়ন থেকে যে ২৭ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে তাদের মধ্যে থেকে পুষ্পকাটির মোক্তারের ছেলে, আনারুলের ছেলে জাকির হোসেন, আয়ুব লষ্কারের ছেলে শাহিন হোসেন, খাসখামারের নুরনবী সরদারের ছেলে ফিরোজ হোসেনসহ কুলিয়া ইউনিয়নের আবুল কাশেমের ছেলে আব্দুল কাদের, ফেরাজতুল্যার ছেলে রশিদ, বিষ্ণুর স্ত্রী ও পুত্র, বিমল সরকারের ছেলে ইন্দ্রজিত সরকার, আব্দুর রাজ্জাক, মৃত এরকান নিকারীর ছেলে আদর আলী, হাছিনা খাতুন, শওকাতের ছেলে মিলন, মোহাম্মাদ আলী, রেহানা খাতুন, মৃত নুর ইসলামের ছেলে রাজিবুল্যাহ, জব্বার সরদারের ছেলে আল আমিন, সুফিয়া খাতুন, মৃত ইমান আলীর ছেলে জমাত ড্রাইভার, আকলিমা খাতুন, নাছিমা খাতুন, রতœা পারভীন ও আজিজের ছেলে বাবু’র নাম পরিচয় নিশ্চিত করেছেন ভারপ্রাপ্ত ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুল ইসলাম। নওয়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুজিবর রহমান জানান, তার ইউনিয়নে দুই জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এদের মধ্যে রয়েছেন ভারত থেকে সম্প্রতি দেশে আসা দেবহাটা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল গণি ও চীন থেকে দেশে আসা গরানবাড়ীয়া গ্রামের হাফেজ নজরুল ইসলামের মেয়ে রাজিয়া সুলতানা। দেবহাটা সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবু বকর গাজী জানান, তার ইউনিয়নের আজিজপুরে সম্প্রতি সৌদি আরব থেকে দেশে আসা শাকিলা খাতুন নামের এক নারীকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। পারুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম জানান, সম্প্রতি সিঙ্গাপুর থেকে আসা সেকেন্দ্রা গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে হাফিজুল ইসলাম, একই গ্রামের ভারত থেকে আসা শহিদুল ইসলামের ছেলে তুহিন হোসেন, ভারত থেকে আসা উত্তর কোমরপুর গ্রামের আব্দুল হামিদের ছেলে জিয়ারুল ইসলাম, কেনিয়া থেকে আসা মাঝ পারুলিয়ার গোলাম মোস্তফার মেয়ে মারুফা খাতুন, কানাডা থেকে আসা মাঝ পারুলিয়ায় গোলাম সরদারের মেয়ে মেহেরুন নেছা, ভারত থেকে আসা উত্তর পারুলিয়ার সুকুমার রজকের ছেলে সৌরভ, সিঙ্গাপুর থেকে আসা নিশ্চিন্তপুর গ্রামের কাজেম হাজীর ছেলে মাসুদ রানা ও দুবাই থেকে আসা দক্ষিণ পারুলিয়া গ্রামের এরিম বক্সের ছেলে হাফিজুল ইসলামকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।
দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজিয়া আফরীন বলেন, যাদেরকে চৌদ্দ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে, তাদের ওপর সার্বক্ষণিক নজরদারি করা হচ্ছে। কোয়ারেন্টাইনে থাকা কোন ব্যাক্তি যেন বাইরে ঘুরে বেড়াতে না পারে সেজন্য মাইকিংয়ের পাশাপাশি স্ব স্ব ইউনিয়ন পরিষদ ও স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে তদারকি করা হচ্ছে। পাশাপাশি কোয়ারেন্টাইনে থাকা কোন ব্যাক্তি ঘরের বাইরে ঘোরাফেরা করলে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে তাদেরকে জেল জরিমানা করা হবে বলেও জানান তিনি।

Facebook Comments
Please follow and like us:
একই রকম সংবাদ


সম্পাদক ও প্রকাশক ----- ------ মো: আবু শোয়েব এবেল ....... ...মোবাইল: ০১৭১৫-১৪৪৮৮৪ ------------------------- -

ইউনাইর্টেড প্রির্ন্টাস,হোল্ডিং নং-০, দোকান নং-০, শহীদ নাজমুল সরণী,সাতক্ষীরা অফিস যোগাযোগ ০১৭১২৩৩৩২৯৯ e-mail: crimebarta@gmail.com