শনিবার , ৮ আগস্ট ২০২০

রায়হান কবিরের মুক্তির দাবি হিউম্যান রাইটস ওয়াচের

ক্রাইমর্বাতা রিপোট:   আল-জাজিরায় সাক্ষাৎকার দেয়ায় মালয়েশিয়ায় গ্রেপ্তার হওয়া বাংলাদেশি রায়হান কবিরের মুক্তির দাবি জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ। বুধবার নিজেদের ওয়েবসাইটে এ নিয়ে একটি বিবৃতি প্রকাশ করেছে সংস্থাটি। এতে বলা হয়, মালয়েশিয়ায় অভিবাসী শ্রমিকদের বাস্তবচিত্র আল-জাজিরার কাছে তুলে ধরাতেই দেশটির সরকারের চক্ষুশূলে পরিণত হয়েছেন রায়হান কবির। একইসঙ্গে দাবি করা হয়েছে, রায়হান কবিরের সঙ্গে মালয়েশিয়ার সরকারের যে আচরণ তা ‘প্রতিশোধমূলক’।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচ সা¤প্রতিক সময়ের এই আলোচিত ইস্যুতে বলেছে, অভিবাসী শ্রমিকদের অবাধ গ্রেপ্তার, বহিষ্কার, কালো তালিকাভুক্তকরণের মতো তাদের মৌলিক অধিকার কেড়ে নেয়া নিয়ে কেউ যাতে কথা না বলেন সেই বার্তাই দেয়ার চেষ্টা করছে মালয়েশিয়া। ডকুমেন্টরিতে সাক্ষাৎকার দেয়া একজনকে এভাবে গ্রেপ্তার মূলত মালয়েশিয়ার বাক স্বাধীনতা ও গণমাধ্যমের ওপর শক্তিশালী আঘাত।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচের এশিয়া বিষয়ক উপ-পরিচালক ফিল রবার্টসন রায়হান কবিরকে নিয়ে নিজের বক্তব্য জানিয়েছেন বিবৃতিতে। তিনি বলেন, অভিবাসীদের ওপর আচরণ নিয়ে গণমাধ্যমে কথা বলা কোনো অপরাধ নয়।

এ রকম নির্যাতন নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করাও অন্যায় নয়। রায়হান কবিরের ব্যাপারে যেভাবে মালয়েশিয়ার কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিয়েছে তা আমাদের উদ্বিগ্ন করে। মালয়েশিয়ার সরকারের উচিত তাকে অবিলম্বে মুক্তি দেয়া এবং দেশটির মানবাধিকার পরিস্থিতির উন্নতির চেষ্টা করা।

প্রকাশিত বিবৃতিতে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ আরো বলেছে, আলোচিত ওই সাক্ষাৎকার প্রচারের পরই রায়হান কবির এবং আল জাজিরা উভয়েই মালয়েশিয়া সরকারের টার্গেটে পরিণত হয়। ইতোমধ্যে আল জাজিরা টেলিভিশনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতা, মানহানি এবং আইসিটি আইন লঙ্ঘন সম্পর্কিত অভিযোগ আনার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। বিবৃতিতে বলা হয়, রায়হান কবিরের গ্রেপ্তার এবং আল জাজিরার বিরুদ্ধে তদন্ত হচ্ছে মালয়েশিয়ার বাক স্বাধীনতা ও গণমাধ্যমের স্বাধীনতার ওপর বড় ধরণের দমন পীড়নের একটি অংশ। সরকারের সমালোচনার করার কারণে বেশ কয়েকজন সাংবাদিক, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি এবং সাধারণ নাগরিকরাও তদন্ত ও বিচারের মুখোমুখি হয়েছেন।

উল্লেখ্য, গত ৩রা জুলাই কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আল-জাজিরা টেলিভিশনের অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে ‘লকডআপ ইন মালয়েশিয়ান লকডাউন-১০১ ইস্ট’ শীর্ষক একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। ২৫ মিনিট ৫০ সেকেন্ডের ওই প্রতিবেদনে করোনা ভাইরাস মহামারিতে মালয়েশিয়ায় অবৈধ অভিবাসীদের সঙ্গে সরকারের নিপীড়ন নিয়ে কথা বলেন রায়হান কবির। এর জের ধরে ২৪ জুলাই গ্রেপ্তারের পর তাকে ১৪ দিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ।

About ক্রাইমবার্তা ডটকম

Check Also

এবার করোনা আক্রান্ত মাশরাফির মা-বাবাসহ পরিবারের ৪ সদস্য

ক্রাইমবার্তা রিপোট :  এবার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন মাশরাফি বিন মর্তুজার বাবা গোলাম মোর্তুজা স্বপন ও  …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *