সাতক্ষীরায় সুপারি চুরির অভিযোগে দুই কিশোরকে গাছে বেধে নির্যাতন!

নগরঘাটা (পাটকেলঘাটা) প্রতিনিধি: সুপারি চুরির অভিযোগে দুই কিশোরকে নির্যাতন শেষে থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে তালা উপজেলার নগরঘাটা ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের বাগপাড়া গ্রামে। ২৩ সেপ্টেম্বর ভোর ৩টার দিকে সুপারি চুরির অভিযোগে ওই দুই কিশোরকে আটক করে গ্রামবাসী। এরপর তাদের হাত পিছমোড়া দিয়ে বেঁধে চালানো হয় নির্যাতন। এলাকাবাসির দাবি, এসময় তাদের কাছ থেকে প্ল¬াস্টিকের প্রায় এক বস্তা সুপারি পাওয়া যায়। নগরঘাটা এলাকার মৃত নিজাম মোড়ল ও বাগপাড়া গ্রামের আনার আলীর গাছ থেকে পাড়া হয় ওই সুপারী। আটককৃতরা হলো ধানদিয়া ইউনিয়নের আলিপুর গ্রামের রাজ্জাক মোল্য¬ার ছেলে জুয়েল (১৭) ও একই এলাকার এরশাদের ছেলে আরিফুল (১৫)। এসময় তাদের সাথে নাকি আরও একজন ছিল বলে জানায় এলাকাবাসী। তবে কৌশলে সে পালিয়ে যায়।

এদিকে এলাকাবাসি জানায়, কয়েকদিন পূর্বে বাগপাড়া গ্রামের কাচামাল ব্যবসায়ী কবির হোসেনের বাড়ি থেকে ভ্যান, সাইকেল ও টর্চ লাইট চুরি হয়। এঘটনায় কবির হোসেন পাটকেলঘাটা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। ভ্যান, সাইকেল ও টর্চ লাইট চুরির ঘটনায়

আটক দুই কিশোরকে নির্যাতন চালিয়ে স্বীকারোক্তি আদায়ের চেষ্টা চালানো হয়। বাড়ির পাকা পিলিয়ার ও মেহগনি গাছে বেঁধে চালানো হয় নির্যাতন। নির্যাতনের পর কিশোরদ্বয় সুপারি চুরির কথা স্বীকার করেছে তবে ভ্যান, সাইকেল ও টর্চ লাইট চুরি কথা কথা তারা অস্বীকার করে। এরপর তাদের নিয়ে যাওয়া হয় ইউনিয়ন পরিষদে। সেখানে হাজির করলে বয়সপ্রাপ্ত না হওয়ায় প্রশাসনের দ্বারস্থ হতে পরামর্শ দেওয়া হয়। এসময় এলাকাবাসি তাদের ভ্যানযোগে গ্রাম ঘুরিয়ে থানায় নিয়ে যায়।
পাটকেলঘাটা থানার অফিসার ইনচার্জের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি ছুটিতে আছি। আপনি থানায় যোগাযোগ করেন। পরে থানায় যোগাযোগ করলে নগরঘাটা এলাকার বিট অফিসার এসআই সুব্রত বলেন, ‘বাদির অভিযোগ না থাকায় এবং ধৃতরা কিশোর হওয়ায় তাদের অভিভাবকদের ডেকে বিষয়টি মিমাংসা করা হয়েছে।

Check Also

মাদক নির্মূলে পুলিশ প্রশাসনের পাশাপাশি জনপ্রতিধিদের এগিয়ে আসতে হবে ……..জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল

হাফিজুর রহমান শিমুলঃকালিগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয়েছে মাদক বিরোধী সমাবেশ। বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) বেলা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *