রাজশাহীর পুঠিয়ায় দুই ইউনিয়নে আবারো বইছে ভোটের হাওয়া

আরিফুল রুবেল(পুঠিয়া প্রতিনিধি): নানা জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে পুঠিয়ার আলোচিত দুই ইউনিয়নের বহুল প্রত্যাশিত নির্বাচন হতে চলেছে চলতি মাসের ২৯ তারিখ। পরপর দুই বার তফসিল ঘোষনার পর তৃতীয় তফসিলে এসে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে উপজেলার ভালুকগাছি ও শিলমাড়িয়া ইউনিয়ন দু’টিতে। চলতি মাসের ২৯ তারিখেই ভোট গ্রহন হবে বলে জানিয়েছে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রির্টানিং অফিসার জয়নুল আবেদিন।

গত ২০ শে ফেব্রুয়ারী নির্বাচন কমিশন স্থানীয় সরকার নির্বাচন বিধিমালা ২০১০ এর ১০ বিধি অনুযায়ী সারা দেশের ৫৫ টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষনা করা হয়। এর মধ্যে পুঠিয়ার ভালুকগাছি ও শিলামড়িয়া ইউনিয়নও রয়েছে। ইউনিয়ন দুটিতে আবারো বইতে শুরু করেছে ভোটের হাওয়া। ইউনিয়ন দু’টিতে দু’বার তফসিল ঘোষনা হলেও ভোট গ্রহনের আগে দু’বারই নির্বাচন স্থগিত হয়। প্রথম দফায় ইউনিয়ন দু’টির ভোট গ্রহনের ৫ দিন আগে নির্বাচন স্থগিত চেয়ে উচ্চ আদালতে রিট আবেদন করে শিলমাড়িয়া ইউনিয়নের জহির নামের এক ব্যক্তি এবং দ্বিতীয় দফায় ভোট গ্রহনের ২৪ দিন আগে নির্বাচন স্থগিত চেয়ে ফের উচ্চ আদালতে রিট আবেদন করে জহির।

জানা গেছে, সীমানা সংক্রান্ত জটিলতায় আদালতে মামলা থাকায় উপজেলার তিনটি ইউনিয়নের মধ্যে বানেশ্বরে ২২ বছর এবং ভালুকগাছি ও শিলমাড়িয়ায় ১৫ বছর ধরে স্থগিত রয়েছে নির্বাচন। ফলে চরম সেচ্ছাচারিতা দেখা দিয়েছে অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা চেয়ারম্যানদের। আইনি জটিলতা কাটিয়ে গত বছরের ১২ নভেম্বর ভালুকগাছি ও শিলমাড়িয়া ইউনিয়নে দ্বিতীয় দফায় নির্বাচনের তফসিল ঘোষনা করে নির্বাচন কমিশন। দুটি ইউনিয়নের প্রতিদ্বন্দী প্রার্থীদের প্রার্থীতা যাচাই বাছাই শেষ হয় কিন্তু ভোট গ্রহনের ২৪ দিন পূর্বে আদালতের নির্দেশে নির্বাচন স্থগিত করতে বাদ্ধ হয় নির্বাচন কমিশন। এর আগে ২০১১ সালে প্রথম তফসিলে ইউনিয়ন দু’টির ভোট গ্রহনের ৫ দিন পূর্বে নির্বাচন স্থগিত হয় ।

আরও জানা গেছে, বিগত বিএনপি জামায়াত জোট সরকারের শাসনামলে ২০০৩ সালে সর্বশেষ পুঠিয়া উপজেলার ভালুকগাছি ও শিলমাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সে নির্বাচনে ভালুকগাছি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন বিএনপি মনোনিত প্রার্থী মরহুম আবু আমিন ওয়ায়েজুল ইসলাম বাচ্চু এবং শিলমাড়িয়া ইউনিয়নে আ’লীগ মনোনিত প্রার্থী সাজ্জাদ হোসেন মুকুল। দুটি ইউনিয়নের ধোকড়াকুল-গোপালপাড়া অংশ নিয়ে নতুন ইউনিয়ন গঠন করার প্রস্তাবনাকে কেন্দ্র করে নির্বাচন স্থগিত চেয়ে উচ্চ আদালতে রিট আবেদন করে জহির নামক ওই ব্যাক্তি। ফলে সীমানা সংক্রান্ত জটিলতায় উচ্চ আদালতে রিট আবেদন থাকায় ইউনিয়ন দু’টিতে আর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়নি।

এদিকে ১৯৯৬ সালে সর্বশেষ বানেশ্বর ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ২০০১ সালে সাবেক সংসদ সদস্য নাদিম মোস্তফা বানেশ্বর ইউনিয়নকে পৌরসভা ঘোষনার উদ্দ্যোগ নিলে ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা গাজী সুলতান পৌরসভা ঘোষনার বিপক্ষে উচ্চ আদালতে রিট আবেদন করেন। উচ্চ আদালত আবেদনটি নিস্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত ইউনিয়নটিতে নির্বাচন স্থগিত রাখার নির্দেশ দেয়।

অন্যদিকে সকল আইনি জটিলতা কাটিয়ে প্রথম দফায় ২০১১ সালে ভালুকগাছি ও শিলমাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষনা করে নির্বাচন কমিশন। ২৭ জুলাই ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও উচ্চ আদালতে রিট আবেদন করায় ভোট গ্রহনের ৫ দিন আগে ২২ জুলাই নির্বাচন স্থগিত করে নির্বাচন কমিশন। আবারো আইনি জটিলতা কাটিয়ে ১৭ সালের ১২ নভেম্বর দ্বিতীয় বার তফসিল ঘোষনা হলে ভোট গ্রহনের ২৪ দিন আগে উচ্চ আদালতে রিট আবেদন করায় আবারো ৬ মাসের জন্য নির্বাচন স্থগিত হয়। ভালুকগাছি ও শিলমাড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী তাকবীর হাসান ও আবু হায়াত উচ্চ আদালতে রিটের ওপর আপিল করেন। আপিলের দীর্ঘ শুনানি শেষে আদালত এ দুটি ইউনিয়নের নির্বাচনের অনুমতি দেয়।

উপজেলা নির্বাচন অফিস সুত্রে জানা গেছে, ভালুকগাছি ইউনিয়নে মোট ভোটার রয়েছে ২৫ হাজার ৩’শ ৩৭ জন ও শিলমাড়িয়া ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ২৭ হাজার ৬’শ ৬৯ জন। উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জয়নুল আবেদিন জানান, ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী গত ১ মার্চ মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন চলে গেছে। আগামী ১২ মার্চ পর্যন্ত মনোনয়নপত্র পত্যাহার করা যাবে এবং প্রচার প্রচারনা শেষে ২৯ শে মার্চ ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে। তিনি আরো জানান, গত তফসিলে যাদের মনোনয়নপত্র বৈধ হয়েছে তাদের নতুন করে মনোনয়নপত্র উত্তোলন করার প্রয়োজন হয়নি।

উল্লেখ্য যে, ভালুকগাছি ইউনিয়নে আ’লীগের দলীয় প্রার্থী রয়েছেন তাকবীর হাসান ও বিএনপির প্রার্থী রয়েছেন তৌহিদুর রহমান এবং শিলমাড়িয়া ইউনিয়নে আ’লীগের দলীয় প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান সাজ্জাদ হোসেন মুকুল ও বিএনপির আসাদুজ্জামান আবু হায়াত।

Facebook Comments
Please follow and like us: