সাফল্য আর ব্যর্থতা ছাপিয়ে আলোচনায় সোহাগ কাণ্ড

কামরুজ্জামান হিরু

মাঠ ও মাঠের বাইরে আলোচনাতেই কেটেছে দেশের ফুটবলের ঘটনাবহুল আরও একটি বছর। তবে সকল সাফল্য-ব্যর্থতা ছাপিয়ে বাফুফের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগকে দেওয়া ফিফার নিষেধাজ্ঞাতেই ২০২৩ সাল বাংলাদেশের ফুটবলে সবচেয়ে আলোচিত বিষয়। ‘টক অব দ্য কান্ট্রিতে’ রূপ নেয় ফিফার কাছে দেশের ফুটবল ফেডারেশনের জালিয়াতি। ২ বছরের জন্য ফিফার নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়েন বাফুফের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ। সাফল্যের মধ্যে রয়েছে ১৪ বছর পর সাফের সেমিফাইনালে উঠেছিল বাংলাদেশ, প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে লাতিন আমেরিকার লিগে খেলেছে জামাল ভূঁইয়া আর বরাবরের মতোই সাফল্যের শিখরে নারী ফুটবল দল।

অন্যদিকে ঘরোয়া ফুটবলে বসুন্ধরা কিংসের একচেটিয়া আধিপত্যের বিপরীতে ১৪ বছর পর ফেডারেশন কাপ শিরোপা জিতেছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেড।  টানা ৪ বার লিগ চ্যাম্পিয়ন হয়ে বসুন্ধরা কিংসের ইতিহাস, মদকান্ডে শাস্তি পেয়েছে মোরসালিন, তপু, জিকোরা। এছাড়া ও দুর্নীতির দায়ে বিকেএসপিকে নিষিদ্ধ করেছে বাফুফে।

ফিফার নিষেধাজ্ঞা ও সোহাগ-কা- : চলতি বছরের ১৪ এপ্রিল পহেলা বৈশাখের দিনে গোটা দেশ যখন উৎসবে মেতেছে, ঠিক তখনই কালো মেঘের ছায়া নামে বাংলাদেশের ফুটবলে। অসন্তোষের ষোলো কলা পূর্ণ করে নানান ফিরিস্তিতে দেশের ফুটবলে ঝড় তোলে ফিফার ৫২ পাতার প্রতিবেদন। দুর্নীতির দায়ে ফিফার দুই বছরের নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়েন বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ। এরপর তড়িঘড়ি করে বাফুফে থেকেও তৎকালীন এই সাধারণ সম্পাদককে আজীবন নিষিদ্ধ করা হয়।

দেশের ফুটবল ইতিহাসে এমন ঘটনা বিরল। তবে এ ঘটনায় বাফুফে সভাপতিসহ শীর্ষ কর্তারা রেহাই পেলেও অর্থ বিভাগের কর্মকর্তাদের চাকরি হারাতে হয়েছে।

সোহাগের নিষেধাজ্ঞায় বড় ধাক্কা লাগে বাফুফেতেও। এমনকি সাংবাদিকদের বাফুফেতে ঢুকতে তাদের বাবার জুতা পরা ছবি দেখাতে হবে বলে কটাক্ষ করেন বাফুফের সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন। এ ঘটনায় ফুঁসে ওঠে সাংবাদিক সমাজ। উপায়ন্তর না দেখে কচ্ছপ-গতির একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে বাফুফে। জুলাইয়ের শেষদিকে ছয় পাতার প্রতিবেদন দেয় সেই কমিটি।

প্রতিবেদনে বাফুফের ম্যানেজার অপারেশনস মিজানুর রহমান, সহকারী প্রধান অর্থ কর্মকর্তা অনুপম সরকার ও প্রধান অর্থ কর্মকর্তা আবু হোসেনের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করে তদন্ত কমিটি। তবে প্রতিবেদন জমা পড়ার আগেই চাকরি ছাড়েন আবু ও মিজান।

সাবিনাদের নীরব বিদ্রোহ : গত বছরের সেপ্টেম্বরে ‘বেঙ্গল মেসি কন্যা’ খ্যাত সাবিনা খাতুনের হাত ধরে সাফের শিরোপা ঘরে তুলে বাংলাদেশ নারী ফুটবল দল। এরপর দেশে ফেরার পর ছাদখোলা বাসে সংবর্ধনা দেওয়া হয় লাল-সবুজের প্রতিনিধিদের। এই চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জেতার সুবাদে গোল মেশিন সাবিনাদের সংবর্ধনার সঙ্গে আর্থিক পুরস্কারের ঘোষণাও দিয়েছিল বিভিন্ন ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠান।

অনেকে তা দিয়েও দেন, তবে প্রতিশ্রুত সেই অর্থ নিয়ে গড়িমসি করেন দেশের অনেক বড় প্রতিষ্ঠান ও কর্তাব্যক্তি। এ নিয়ে নীরবে অসন্তোষ প্রকাশ করে দক্ষিণ এশিয়ার ফুটবল ইতিহাসের পাতায় নাম লেখানো বাংলাদেশ নারী ফুটবলাররা।

আরও এক কারণে অসন্তুষ্ট ছিলেন ক্রীড়াঙ্গনের এই নক্ষত্ররা। টাকার অভাবে প্যারিস অলিম্পিক বাছাইপর্বে খেলতে যেতে পারেনি সাবিনারা। এ কারণে দুইদিন ক্যাম্পেও যাননি দলের সিনিয়র নারী খেলোয়াড়রা। প্রধানমন্ত্রী পর্যন্ত গড়ায় বিষয়টি।

এরপর মে মাসে ভাঙ্গন ধরে সাফজয়ী দলে। ফুটবলকেই বিদায় জানান সাফজয়ী আনুচিং মগিনি ও সাজেদা খাতুন। ক্যাম্প ছেড়ে যান সাফজয়ী সদস্য সিরাত জাহান ও আঁখি খাতুন। এরপর বাফুফের চাকরি ছাড়েন নারী দলের সাফল্যের কা-ারি কোচ গোলাম রব্বানী।

এরই মাঝে অভিমান ভুলে প্রমীলারা অনুশীলনে ফিরলেও শুধু জিম করেন। সে সময়ে স্পষ্টই তাদের মধ্যে অসন্তোষ লক্ষ্য করা যায়। তবে ঘটনাবহুল বছরে ঢাক-ঢোল বাজিয়ে কোটি টাকা খরচে পরিকল্পিত ফ্র্যাঞ্চাইজি নারী ফুটবল মাঠে না গড়ালেও বেতন বাড়ে প্রমীলাদের।

সাফজয়ের পর আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে না পারার হাহাকারের মধ্যে ফুটবল ভক্তদের আনন্দে ভাসিয়েছে জাতীয় নারী দল। র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে থাকা সিঙ্গাপুরকে টানা ২ ম্যাচে রীতিমতো বিধ্বস্ত করে দেশের ফুটবলের স্বপ্ন বহন করে চলেছে নারীরা।

দলীয় পারফরম্যান্সের পাশাপাশি ব্যক্তিগত প্রাপ্তি : চলতি বছরে ১৪টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ ফুটবল দল। এর মধ্যে পাঁচ জয়ের বিপরীতে চারটিতে হার দেখেছে লাল-সবুজেরা। আর ড্র হয়েছে পাঁচ ম্যাচে। পরিসংখ্যান বিবেচনা, ফল ভালো না হলেও খুব একটা মন্দ নয়।

বছরের শুরুতে সিশেলসের বিপক্ষে এক জয় আর এক দৃষ্টিকটু হারের বিপরীতে ১৪ বছর পর সাফের সেমিফাইনালে খেলেছে জামাল ভূঁইয়ারা। স্প্যানিশ কোচ হ্যাভিয়ের ক্যাবরেরার অধীনে চমকই দেখিয়েছে লাল-সবুজ শিবির। মহাদেশীয় শ্রেষ্ঠত্ব ছাড়াও ফিফা ২০২৬ বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ঘরের মাঠে লেবাননকে রুখে দেয় বাংলাদেশ। আর সেপ্টেম্বরে আফগানিস্তানের বিপক্ষে দুই ড্রয়ে সন্তুষ্ট থেকেছে লাল-সবুজের সমর্থকরা।

দলীয় পারফরম্যান্স ছাড়াও আছে ব্যক্তিগত প্রাপ্তি ও অর্জন। প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে আর্জেন্টিনার লিগে খেলছেন জাতীয় দলের অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া। নতুন আশার আলো হিসেবে দ্যুতি ছড়াচ্ছেন মোরসালিন। বেশ কিছু গোল করে ঝলকও দেখিয়েছেন তরুণ এই ফুটবলার।

তবে মালদ্বীপকে টপকে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে জায়গা করে নেওয়া সফলতা বিবেচিত হলেও বাছাইয়ে দুই ম্যাচ খেলে জয়ের দেখা পায়নি বেঙ্গল টাইগাররা।

১৯২ ফিফা র‌্যাঙ্কিং নিয়ে বছর শুরু করে ১৮৩-তে শেষ করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। এর মধ্যে অনেকে উন্নতি দেখে তৃপ্তির ঢেকুর তুললেও সন্তুষ্ট নন ফুটবলপ্রেমীরা।

মার্টিনেজ-রোনালদিনহোর ঢাকা আগমন

দেশের ফুটবলের নিয়ন্তা সংস্থা-বাফুফে কিংবা ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সম্পৃক্ততা ছাড়াই বিশ্ব ফুটবলের দুই ব্যক্তিত্ব চলতি বছরে বাংলাদেশে এসেছিলেন। ৩৬ বছরের আক্ষেপ ঘুচানো আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপজয়ী গোলরক্ষক এমিলিয়ানো মার্টিনেজের পর রেকর্ড পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিলের রোনালদিনহোও এসেছিলেন। তবে এই দুই সফর আলোচনার চেয়ে সমালোচনাই বেশি কুড়িয়েছে।

১৪ বছর পর মোহামেডানের শিরোপা : ২০২৩ সালে ঢাকা ডার্বির পুরনো স্বাদ পায় ফুটবলপ্রেমীরা। ১৪ বছর পর ফেডারেশন কাপের চ্যাম্পিয়ন হয় মোহামেডান। আসরের ফাইনালে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আবাহনী ও মোহামেডানের লড়াই অতিরিক্ত সময়েও ৪-৪ গোলে শেষ হয়। এরপর টাইব্রেকারে শিরোপা জিতে ফুটবলের উন্নয়নের বার্তা দেয় মোহামেডান।

এরপর স্বাধীনতা কাপের ফাইনালেও উঠেছিল সাদা-কালো জার্সিধারীরা। তবে দশ জনের কিংসকে পেয়েও জিততে পারেনি মোহামেডান। ঘরোয়া ফুটবলে আধিপত্য অব্যাহত রেখে টানা চতুর্থ লিগ শিরোপা জয়ের রেকর্ড গড়ে বসুন্ধরা কিংস।

দুর্নীতির দায়ে নিষিদ্ধ বিকেএসপি : নাম পরিবর্তন করে একই ফুটবলারকে দুই লিগে খেলতে সহযোগিতা করায় বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে (বিকেএসপি) এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়। সেই সঙ্গে জালিয়াতিতে জড়িত প্রশিক্ষক ও খেলোয়াড়দেরও শাস্তি দেয় বাফুফে ডিসিপ্লিনারি কমিটি। যদিও এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করেছে বিকেএসপি।

পাওয়া-না পাওয়ার বয়সভিত্তিক ফুটবল : বয়সভিত্তিক পর্যায়ে বাংলাদেশের সাফল্য এই বছর মাত্র একটি। কমলাপুর স্টেডিয়ামে সাফ নারী অনূর্ধ্ব-২০ টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে।

এছাড়া সাফ অ-১৭ টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করেছিল শক্তিশালী রাশিয়া। তাই বাংলাদেশ নারী দল সাফ অ-১৭ টুর্নামেন্টে রানার্সআপ হয়। গত দুই আসরে এএফসি অ-১৬ টুর্নামেন্টে নারী দল মূল পর্বে খেলেছিল। এবার মূল পর্বে উঠতে ব্যর্থ হয়েছে বাংলাদেশ।

এবার বয়সভিত্তিক প্রতিযোগিতায় পুরুষদের কোনো শিরোপা নেই। সাফ অ-১৬ টুর্নামেন্টে ভুটানে বাংলাদেশ ভারতের বিপক্ষে হারে এবং অ-১৯ টুর্নামেন্টে কাঠমান্ডুতে সেমিফাইনালেই উঠতে ব্যর্থ হয় বাংলাদেশ।

বয়সভিত্তিক পর্যায়ে বাফুফে দারুণ এক উদ্যোগ নিয়েছে বছরের শেষ মাসে। ১৭০ একাডেমি নিয়ে ফিফার অর্থায়নে টুর্নামেন্ট করছে দেশের ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি। এমন উদ্যোগ বাংলাদেশের ফুটবলে এবারই প্রথম।

 

Check Also

সাতক্ষীরায় সুপেয় পানির সংকট: ভূগর্ভস্থ পানির স্তর নেমে গেছে ৭শ ফুট পর্যন্ত

আবু সাইদ বিশ্বাস, সাতক্ষীরাঃ পানির স্তর নেমে যাওয়াতে সাতক্ষীরাসহ দক্ষিণাঞ্চলে অগভীর নকুপগুলোতে পানির সংকট দেখা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

***২০১৩-২০২৩*** © ক্রাইমবার্তা ডট কম সকল অধিকার সংরক্ষিত।