সুন্দরবনকে বাঁচিয়ে রাখতে সবার সম্মিলিত উদ্যোগ জরুরি

বিশ্বের অন্যতম বড় ম্যানগ্রোভ বন সুন্দরবন সাতক্ষীরা জেলার গর্ব, বাংলাদেশের গর্ব। কেবল বাংলাদেশ নয়, পৃথিবী যত দিন, সুন্দরবন বেঁচে থাকুক তত দিন। সুন্দরবনকে ভালোবাসার প্রতিজ্ঞা নিয়েই সাতক্ষীরা জেলায় আজ ১৪ ফেব্রুয়ারি সুন্দরবন দিবস পালন করেছে সাতক্ষীরা বন্ধুসভা।

দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য, ‘বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে সুন্দরবনকে ভালোবাসুন।’ ২০০১ সাল থেকে প্রতিবছর দিবসটি পালন করা হচ্ছে। এ উপলক্ষে বুধবার সকাল ১০টায় সাতক্ষীরা ম্যানগ্রোভ সভাঘরে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

প্রথম আলোর নিজস্ব প্রতিবেদক কল্যাণ ব্যানার্জির সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ নজরুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা এস এ এম আবদুল ওয়াহেদ, জেলা নাগরিক কমিটির আহ্বায়ক শেখ আজাদ হোসেন বেলাল, স্বদেশ-এর নির্বাহী পরিচালক মাধব দত্ত, সনাকের সভাপতি হেনরী সরদার ও সাতক্ষীরা বন্ধুসভার সভাপতি কর্ণ বিশ্বাস।

সাতক্ষীরা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ নজরুল ইসলাম বলেন, ‘সুন্দরবনের টিকে থাকার ওপর দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষের বেঁচে থাকা, অর্থনৈতিক অগ্রগতি, সমৃদ্ধি বহুলাংশে নির্ভরশীল। তাই এ বনকে ভালোভাবে বাঁচিয়ে রাখতে সবাইকে সম্মিলিত উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। সুন্দরবনকে বাঁচিয়ে রাখতে সবার সম্মিলিত উদ্যোগ জরুরি।’

স্বদেশ-এর নির্বাহী পরিচালক মাধব দত্ত বলেন, ‘সুন্দরবন প্রশস্ত বনভূমি, যা বিশ্বের প্রাকৃতিক বিস্ময়সমূহের অন্যতম। সমুদ্র উপকূলবর্তী নোনা পরিবেশের সবচেয়ে বড় ম্যানগ্রোভ বন হিসেবে সুন্দরবন বিশ্বের সর্ববৃহৎ অখণ্ড বনভূমি।’

এ সময় বক্তারা সুন্দরবন দিবসকে জাতীয় দিবস হিসেবে ঘোষণা দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, সুন্দরবনের জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে ১৪ ফেব্রুয়ারি সুন্দরবন দিবসকে জাতীয়ভাবে স্বীকৃতি দিতে হবে।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সাংবাদিক, সামাজিক সংগঠনের যুব সদস্য ও সাতক্ষীরা বন্ধুসভার বন্ধুরা।

Please follow and like us:

Check Also

আশাশুনিতে পুশ বিরোধী অভিযান।।২০০ কেজি চিংড়ী জব্দ ও আগুনে পুড়িয়ে বিনষ্ট

এস, এম মোস্তাফিজুর রহমান (আশাশুনি) সাতক্ষীরা।।আশাশুনতে পুশ বিরোধী অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। রবিবার (২১শে এপ্রিল) …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

***২০১৩-২০২৩*** © ক্রাইমবার্তা ডট কম সকল অধিকার সংরক্ষিত।