শুক্রবার , ৭ আগস্ট ২০২০

সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটায় চিহ্নিত সুদখোর রহমত আলীর হাত থেকে রক্ষা পেতে মানববন্ধন

সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটায় চিহ্নিত সুদখোর রহমত আলীর হাত থেকে রক্ষা পেতে আজ শনিবার সকাল ১১টার সময় পাটকেলঘাটা থানার পাচরাস্তা মোড়ে এই মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উক্ত মানববন্ধন অনুষ্ঠানে উপস্থিত বক্তব্য রাখেন ভুক্তভোগী ফিরোজ হোসেন,রবিউল ইসলাম, মিরানা ইসলাম, আমজাদ হোসেন, মমতাজ বেগম, মনিরুল প্রমুখ। এসময় বক্তরা বলেন বিলান চেক নিয়ে জালিয়াতি করে লক্ষ লক্ষ টাকা সরকার কে ভ্যাট না দিয়ে শ্রমজীবী সমবায় সমিতি দূর্নীতির আখড়ায় পরিনত করেছে। সুদের হাত থেকে বাচতে ও সুদখোর রহমত আলী গং এর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারসহ সংশিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনার জন্য ঘন্টা ব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে পাটকেলঘাটা ভুক্তভোগী এলাকাবাসী।

এসময় ভুক্তভোগী ফিরোজ হোসেন বলেন আমি টাকার বিশেষ প্রয়োজনে পাটকেলঘাটা শ্রমজীবী ফাউন্ডেশন থেকে ২৯/১২/২০১৩ তারিখে ৩০% হারে সুদে ১ বছর মেয়াদে পরিশোধের শর্তে ২ লক্ষ টাকা ঋণ গ্রহণ করি। যার প্রমানাদি আমার কাছে আছে।লেনদেনের এক পর্যায়ে মৌখিক ভাবে আমার কাছে ১৯ লক্ষ টাকা দাবি করে,

পাটকেলঘাটা লালচন্দ্রপুর গ্রামের ভুক্তভোগী শেখ সামিউল ইসলাম বলেন, আমার পিতা রবিউল ইসলাম শ্রমজীবী সমবায় সমিতি থেকে ৩০% হারে ৩ লক্ষ টাকা ফাকা চেক দিয়ে লোন নেয় এক পর্যায়ে তারা ২২ লক্ষ টাকার মামলা দায়ের করেছে, সুদখোর রহমতের ফাদে পড়ে এই রকম অনেক মানুষ নিঃস্ব হতে চলেছে।

পাটকেলঘাটা থানার কাটাখালী গ্রামের রজব আলীর ছেলে ভুক্তভুগী শেখ আজিজুর রহমান আমি দৈনিকমজুরির কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করি। গত ২০১৮ সালে আমার টাকার বিশেষ প্রয়োজন হওয়ায় পাটকেলঘাটা শ্রমজীবী ফাউন্ডেশন থেকে ৩০% হারে সুদে ১ বছর মেয়াদে পরিশোধের শর্তে ৫০ হাজার টাকা ঋণ গ্রহণ করি। যার প্রমানাদি আমার কাছে আছে। উক্ত সমিতিতে এখনও আমার ৪০ হাজার ৭৬৬ টাকা সঞ্চয় রয়েছে। তিনি আরও বলেন আমি দ্বীন মজুরির কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করি। গত ২০১৮ সালে আমার টাকার বিশেষ প্রয়োজন হওয়ায় পাটকেলঘাটা শ্রমজীবী ফাউন্ডেশন থেকে ৩০% হারে সুদে ১ বছর মেয়াদে পরিশোধের শর্তে ৫০ হাজার টাকা ঋণ গ্রহণ করি। যার প্রমানাদি আমার কাছে আছে। উক্ত সমিতিতে এখনও আমার ৪০ হাজার ৭৬৬ টাকা সঞ্চয় রয়েছে। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, সমিতিতে আমার টাকাসে সময় ওই ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তারা আমার কাছ থেকে আমার স্বাক্ষরিত একটি ফাঁকা চেক ও ফাঁকা স্ট্যাম্প জমা নেন। কিন্তু ঋণ গ্রহনের পর পারিবারিক অসুবিধার কারণে আমার কয়েকটি কিস্তি দিতে বিলম্ব হওয়ায় ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তা ও সাবেক সভাপতি রহমত আলীর কু-পরামর্শে পাটকেলঘাটা শ্রমজীবী সমবায় সমিতির পক্ষে সাধারণ সম্পাদক আশিকুজ্জামান মোড়ল সাতক্ষীরা জজ কোর্টের এক আইনজীবীর মাধ্যমে ওই চেকের পাতায় ৩ লাখ টাকা বসিয়ে আমাকে একটি লিগ্যাল নোটিশ প্রেরণ করেন। নোটিশ প্রাপ্তির ৩০ দিনের মধ্যে টাকা পরিশোধ না করলে আমার বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের কথাও বলা হয়েছে। লিগ্যাল নোটিশ প্রাপ্তির পর আমিসহ আমার পরিবারের সদস্যরা হতবাক হয়ে পড়ি। ঋণ নিয়েছি ৫০ হাজার টাকা যার কিস্তিও চলমান রয়েছে। অথচ ৩ লাখ টাকা কিভাবে তারা আমার কাছে পাবে এটি আমি বুঝিনা। পরবর্তীতে খোঁজ খবর নিয়ে জানতে পারি তারা শুধু আমাকেই নই পাটকেলঘাটা এলাকার অনেক গ্রাহককে এভাবে ফাঁদে ফেলে মিথ্যা মামলায় হয়রানি করে দিশেহারা করেছেন। হিসাব রক্ষক রহমত আলিসহ অন্যান্য কর্মকর্তাগন বিভিন্ন জায়গায় অফিস খুলে লাইসেন্স বিহীন পাটকেলঘাটা শ্রমজীবি ফাউন্ডেশনের সাইনবোর্ড ব্যাবহার করে দীর্ঘদিন ধরে চক্রাবৃদ্ধি হারে সুদ বানিজ্য পরিচালনা করে আসছেন। গত ৬-১১-২০১৯ তারিখে তাদের দূর্নিতির বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলনের খবর পত্রিকায় প্রকাশিত হওয়ার পর গত ১১-১১- ২০১৯ তারিখে তারা তাদের পাটকেলঘাটা অফিসের সামনে থেকে সাইনবোর্ড নামিয়ে ফেলেন। অবৈধভাবে এই সাইনবোর্ড ব্যবহার করে এক সময়ের ছাগল ব্যবসায়ী রহমত আলি এখন কোটিপতি। সংবাদ সম্মেলন থেকে তিনি (আজিজুর) পাটকেলঘাটা শ্রমজীবি ফাউন্ডেশনের আড়ালে অবৈধ ভাবে সুদের বাণিজ্য পরিচালনাকারী সুদখোর রহমত আলী গং এর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারসহ সংশিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

About ক্রাইমবার্তা ডটকম

Check Also

যুক্তরাষ্ট্রের তুলনায় মৃত্যু কম বাংলাদেশে, সুস্থতাও বেশি

ক্রাইমবাতা ডেস্ক রিপোট: দেশে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ ব্যবস্থাপনা নিয়ে নানা অভিযোগ রয়েছে। তবে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *